শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ১৭ আষাঢ় ১৪২৯, ০১ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

আলেপ্পোয় বিদ্রোহীরা বিষাক্ত গ্যাস ব্যবহার করছে

প্রকাশের সময় : ২ নভেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : সিরিয়ার আলেপ্পো নগরীতে গত ৩ দিনে গোলাবর্ষণে অন্তত ৮৪ জন নিহত হয়েছে। নিহতদের মধ্যে বেশিরভাগই নারী ও শিশু। সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, বিদ্রোহীরা সরকার নিয়ন্ত্রিত আলেপ্পোর পশ্চিমাঞ্চলের হামদানিয়া এলাকায় বিষাক্ত গ্যাস নিক্ষেপ করেছে। তবে বিদ্রোহীরা এ অভিযোগ মিথ্যা বলে অভিহিত করেছে। জাতিসংঘের সিরিয়াবিষয়ক বিশেষ দূত স্তাফান ডি মিসতুরা বলেছেন, আলেপ্পোর বিদ্রোহীরা শহরের রকেট ও বিষাক্ত গ্যাস ছোড়ায় তিনি হতভম্ব ও বিস্মিত। তিনি বলেন, গত ৪৮ ঘণ্টায় আলেপ্পোর পশ্চিমাঞ্চলে বেসামরিকদের লক্ষ্য করে অবিরাম ও বাছবিচারহীনভাবে রকেট ছুড়েছে বিদ্রোহীরা। এতে বহু বেসামরিক লোক নিহত হয়েছে। এই ধরনের হামলা যুদ্ধাপরাধ বলে গণ্য হবে। আলেপ্পোর পূর্বাঞ্চলে সরকারি অবরোধ ভাঙতে বিদ্রোহীরা গত শুক্রবার থেকে অভিযান শুরু করে। শহরের পূর্বাঞ্চলের দুই লাখ ৭৫ হাজার বাসিন্দা মাসের পর মাস ধরে অবরুদ্ধ রয়েছে। রাশিয়া ও সিরিয়ার সরকারি বিমান সেপ্টেম্বর থেকে আলেপ্পোতে বিমান হামলা শুরু করে। এরপর থেকে এ পর্যন্ত দুই হাজার ৭০০’র বেশি লোক হতাহত হয়েছে। অসুস্থ ও আহতদের শহর ছাড়ার আহ্বান জানিয়ে ১৮ অক্টোবর থেকে বিমান হামলা বন্ধ রেখেছে রাশিয়া। সিরিয়ায় রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা সানা গত রোববার জানিয়েছে, আলেপ্পোর সরকার নিয়ন্ত্রিত এলাকায় রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার করেছে বিদ্রোহীরা। তবে বিদ্রোহী এক গ্রুপের মুখপাত্র এই অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছে, বিদ্রোহী গ্রুপগুলোর কাছে এই ধরনের কোনো অস্ত্র নেই। সানা জানায়, আলেপ্পো প্রদেশের দাহিয়েত আল-আসাদ ও আল-হামদানিয়ায় বিষাক্ত গ্যাস বোমা হামলায় অন্তত একজনের মৃত্যু হয়েছে এবং প্রবল শ্বাসকষ্ট নিয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অন্তত ৩৫ জন। আলেপ্পোর পশ্চিমাঞ্চলে বিদ্রোহীদের হামলায় ৪০ জনের বেশি বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে। ব্রিটিশভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থা সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস জানিয়েছে, নিহতদের মধ্যে ১৬ শিশু রয়েছে। এছাড়া ৫৫ সরকারি সৈন্য ও ৬৪ বিদ্রোহীও নিহত হয়েছে। আলেপ্পোর বাইরে থেকে বিদ্রোহীরা বলেছে, হামদানিয়াকে লক্ষ্য করে তারা পুরো মাত্রায় অভিযান শুরু করেছে। শহরটি সম্প্রতি সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদ বাহিনী দখল করেছে। বিদ্রোহী গ্রুপগুলোর মধ্যে রয়েছে, আল কায়েদার সঙ্গে সম্পৃক্ত বিদ্রোহী সংগঠন জাবাত ফাতেহ আল শাম (সাবেক নুসরা ফ্রন্ট) ও ইসলামপন্থী আহরার আল-শাম। মিসতুরা বলেন, আলেপ্পোর সরকার নিয়ন্ত্রিত এলাকাগুলোতে বেসামরিক নাগরিকদের লক্ষ্য করে বিদ্রোহীদের নির্বিচারে ব্যাপক রকেট হামলায় তিনি হতভম্ব। তিনি বলেন, আলেপ্পোর পূর্বাঞ্চলের অবরোধ ভাঙতে এমন করা হয়েছে বলে যারা যুক্তি দেখাচ্ছেন তাদের মনে রাখা উচিত বেসামরিক এলাকায় নির্বিচারে প্রাণঘাতী অস্ত্র ব্যবহার কোনোভাবেই যুক্তিসঙ্গত নয় এবং এটি যুদ্ধাপরাধ হিসেবে গণ্য হবে। বিবিসি ও আল জাজিরা।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Google Apps