ঢাকা বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮ আশ্বিন ১৪২৭, ০৫ সফর ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

জাকার্তায় গভর্নরের পদত্যাগ শাস্তি দাবিতে তুমুল বিক্ষোভ

প্রকাশের সময় : ৬ নভেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : কোরআন অবমাননার অভিযোগে ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তার গভর্নরের পদত্যাগের দাবিতে প্রেসিডেন্ট প্রাসাদ অভিমুখে প্রচ- বিক্ষোভ করেছে হাজার হাজার মুসলিম। তাদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ টিয়ার গ্যাস ছুড়েছে। মুসলিম অধ্যুষিত দেশ ইন্দোনেশিয়ায় জাকার্তার গভর্নর বাসুকি তাজাহাজা পুরনামা দেশটির জাতিগত চীনা সম্প্রদায়ের খ্রিস্টান। তার বিরুদ্ধে কোরআন অবমাননার অভিযোগ আনা হয়েছে। বিক্ষোভকারীরা এর শাস্তিস্বরূপ গভর্নরের কারাদ- চাইছে। পুলিশ জানায়, গত শুক্রবার বিক্ষোভকারীরা প্রেসিডেন্ট প্রাসাদের খুব কাছে চলে আসলে পুলিশ টিয়ার গ্যাসের শেল নিক্ষেপ করে। বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় অন্তত এক পুলিশ আহত হয়েছে। ইন্দোনেশিয়ার ২৫ কোটি মানুষের মধ্যে মাত্র ১ শতাংশ জাতিগত চীনা। প্রসঙ্গত, আগামী ফেব্রুয়ারিতে জাকার্তায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। বর্তমান গভর্নর পুরনামা দ্বিতীয় মেয়াদের জন্য নির্বাচনে অংশ নেয়ার পরিকল্পনার কথা আগেই জানিয়েছেন। কিন্তু কয়েকটি ইসলামিক দল ভোটারদেরকে পুরনামাকে ভোট না দেয়ার আহ্বান জানায়। তাদের যুক্তি পুরনামার কাজ কোরআন পরিপন্থী। খবরে আরো বলা হয়, কোরআনের আয়াতে মুসলিমদের অমুসলিম নেতার অধীনে বসবাস বিষয়ে বাধা রয়েছে। যদিও অনেক মুসলিম নেতাই মনে করেন, বর্তমান সময়ে ওই বিধি নিষেধ আসলে বাধা নয়। এর আগে ১৯৯৮ সালে চীন বিরোধী দাঙ্গায় উত্তেজিত জনতা আদিবাসী চীনাদের ঘরবাড়ি ও দোকানপাট লুটপাট এবং অগ্নিসংযোগ করে। বিবিসি জানায়, বিক্ষোভকারীরা প্রসিডেন্ট জোকো উইদোদোর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে ব্যর্থ হওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে উঠে। কেউ কেউ প্রেসিডেন্ট প্রাসাদ লক্ষ্য করে প্লাস্টিকের বোতল ছুড়ে মারে। তবে বিক্ষোভকারীদের প্রতিনিধিরা ভাইস-প্রেসিডেন্ট ইউসুফ কাল্লার সঙ্গে দেখা করেছে এবং তিনি দুই সপ্তাহের মধ্যে পুরনামার বিরুদ্ধে তদন্ত শেষ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। গত ২৮ সেপ্টেম্বর পুরনামা এক ভাষণে বলেন, যারা কোরআনের আয়াতের দোহাই দিয়ে আমাকে ভোট না দিতে জনগণকে উৎসাহিত করছে তারা আসলে মিথ্যা বলছে। ভদ্রমহিলা ও ভদ্রমহোদয়গণ, যারা মনে করেন আমাকে ভোট দিলে কোরআনের সঙ্গে মিথ্যা বলা হবে তারা আমাকে ভোট দেবেন না। ভোট দেওয়া আপনার অধিকার। পুরনামার এই বক্তব্যকে অনেকে কোরআনের সমালোচনা বলে বিবেচনা করেন এবং তার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ শুরু করেন। যদিও দেশটির সবচেয়ে বড় ইসলামিক সংগঠন নাহদলাতুন উলামা তাদের চার কোটি সদস্যকে পুরনামা বিরোধী বিক্ষোভে অংশ না নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছে। পুরনামা তার ওই বক্তব্যের জন্য পরে ক্ষমা প্রার্থনা করেন। এর পরও তার বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে এবং পুলিশ বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করছে। মুসলিম অধ্যুষিত ইন্দোনেশিয়ায় পুরনামাকে নিয়ে সমস্যা এবারই প্রথম নয়। ২০১৪ সালে জোকো উইদোদো যখন জাকার্তার গভর্নর ছিলেন তখন পুরনামা ডেপুটি গভর্নরের দায়িত্বে ছিলেন। এরপর উইদোদা প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলে ইসলামিক ডিফেন্স ফ্রন্ট (এফপিআই) চায়নি পুরনামা গভর্নর হোক। এফপিআই এর আগেও সংখ্যালঘুদের উপর নৃশংস হামলা ও রক্তক্ষয়ী বিক্ষোভ করেছে। ইউরোনিউজ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন