শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ১৮ আষাঢ় ১৪২৯, ০২ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

তালেবান নেতা সিরাজুদ্দীন হাক্কানির মুখের প্রথম ছবি প্রকাশ্যে

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৬ মার্চ, ২০২২, ১২:০১ এএম

মার্কিন ‘মোস্ট ওয়ান্টেড’ তালিকায় থাকা তালেবানের সবচেয়ে গোপন নেতাদের একজনের প্রথম ছবি তোলা হয়েছে গতকাল। আফগান পুলিশের নতুন গ্র্যাজুয়েশন সম্পন্নকারী একটি দলের পাসিং-আউট প্যারেডে প্রথম প্রকাশ্যে তার ছবি তোলা হয়েছে। হাক্কানি নেটওয়ার্কের প্রধান তালেবানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সিরাজুদ্দিন হাক্কানির এর আগে কেবল পেছন থেকে অস্পষ্টভাবে ছবি তোলা হয়েছিল, এমনকি গত আগস্টে ইসলামপন্থীরা ক্ষমতা দখল করার পর থেকেও। গতকাল কাবুলে কুচকাওয়াজে এক বক্তৃতায় তিনি বলেন, ‘আপনাদের সন্তুষ্টির জন্য এবং আপনাদের বিশ্বাস গড়ে তোলার জন্য... আমি আপনার সাথে একটি জনসভায় মিডিয়াতে উপস্থিত হচ্ছি’। তালেবানের প্রত্যাবর্তনের আগে নেতা হিবাতুল্লা আখুন্দজাদার তিনজন ডেপুটিদের মধ্যে হাক্কানি ছিলেন সবচেয়ে সিনিয়র। আখুন্দজাদাকে কয়েক বছর ধরে জনসম্মুখে দেখা যায়নি এবং অনেক আফগান বিশ্লেষক বিশ্বাস করেন যে, তিনি বেঁচেও নেই। হাক্কানি তালেবানের একটি শক্তিশালী উপদলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তাকে গ্রেফতারে সহায়ক তথ্যের জন্য ১ কোটি মার্কিন ডলার পর্যন্ত পুরস্কারের প্রস্তাব দেয়। তারা বলেছে যে, তিনি একের পর এক সন্ত্রাসী হামলার জন্য দায়ী ছিলেন।
গতকাল তালেবান কর্মকর্তারা সোশ্যাল মিডিয়ায় হাক্কানির ছবি ব্যাপকভাবে শেয়ার করেছেন। আগে তার শুধুমাত্র এমন ছবি পোস্ট করেছিল যেগুলোতে তার মুখ দেখা যায়নি, অথবা এডিটিংয়ের মাধ্যমে অস্পষ্ট করা হয়। গতকাল পুলিশ প্যারেডে খুব ভারী দাড়ি এবং কালো পাগড়ি এবং সাদা শাল পরা হাক্কানি অনেক সিনিয়র তালেবান কর্মকর্তাদের মতো পোশাক পরেছিলেন। তিনি বলেন যে, তিনি তার মুখ দেখাচ্ছেন যাতে ‘আপনি জানতে পারেন আমাদের নেতৃত্বের সাথে আমাদের কতটা মূল্য রয়েছে’।

হাক্কানির উপস্থিতিও ইঙ্গিত দেয় যে, তালেবানরা গত মার্কিন নেতৃত্বাধীন বিদেশী বাহিনী চলে যাওয়ার দুই সপ্তাহ আগে ১৫ আগস্ট ক্ষমতা দখলের পর থেকে দেশে তাদের দখলের বিষয়ে আরো বেশি আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠেছে। পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূতসহ বেশ কয়েকজন কূটনীতিক ভিড়ের মধ্যে ছিলেন যদিও কোনো দেশই নতুন তালেবান শাসনকে আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকৃতি দেয়নি।

জালালুদ্দিন হাক্কানি ১৯৭০-এর দশকে প্রতিষ্ঠিত হাক্কানি নেটওয়ার্ক আফগানিস্তানে সোভিয়েত দখলদারিত্বের বিরুদ্ধে মুজাহিদিনদের যুদ্ধের সময় সিআইএ’র ব্যাপকভাবে সমর্থন পেয়েছিল।

২০১৮ সালে তার মৃত্যুর পর তার ছেলে সিরাজুদ্দিন হাক্কানি (৪০) তার স্থলাভিষিক্ত হন। পরবর্তীটিকে কাবুলের সেরেনা হোটেলে ২০০৮ সালের মারাত্মক হামলার জন্য দায়ী করা হয়, যে হামলায় ছয়জন নিহত হয়েছিল, সেইসাথে প্রাক্তন আফগান প্রেসিডেন্ট হামিদ কারজাইয়ের বিরুদ্ধে অন্তত একটি হত্যা প্রচেষ্টার জন্যও তাকে দায়ী করা হয়।

তিনি আফগানিস্তান, পাকিস্তান এবং তাদের মধ্যবর্তী দুর্গম ভূখণ্ডে যা হাক্কানি নেটওয়ার্কের কেন্দ্রস্থল সেখানে বেশ কয়েকটি মার্কিন ড্রোন হামলার লক্ষ্যবস্তু হয়েছেন বলে জানা গেছে। সূত্র : দ্য টেলিগ্রাফ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (10)
H M AsʌdʋjJʌɱʌn ৬ মার্চ, ২০২২, ৭:৫০ এএম says : 0
Masha'Allah
Total Reply(0)
HM Abdul Ahad ৬ মার্চ, ২০২২, ৭:৫০ এএম says : 0
আল্লাহুআকবার
Total Reply(0)
Uncommon Mahfuz Mt ৬ মার্চ, ২০২২, ৭:৫০ এএম says : 0
আল্লাহ হুজুর কে নেক হায়াত দান করুন
Total Reply(0)
আযানের ধনি ৬ মার্চ, ২০২২, ৭:৫০ এএম says : 0
· মাশাআল্লাহ মুসলিম লিডার
Total Reply(0)
আব্দুল আলিম ৬ মার্চ, ২০২২, ৭:৫০ এএম says : 0
মাশাআল্লাহ সুবহানাল্লাহ আলহামদুলিল্লাহ
Total Reply(0)
Sarfuddin Ruman ৬ মার্চ, ২০২২, ৭:৫১ এএম says : 0
যুদ্ধ বিধস্ত আফগানকে সহযোগিতা করে শক্তিশালী করা দরকার। মুসলিমরাই হবে আগামী দিনের সারা বিশ্বের শাসক।
Total Reply(0)
Jakir The Great ৬ মার্চ, ২০২২, ৭:৫১ এএম says : 0
আলহামদুলিল্লাহ, মাশাআল্লাহ, প্রকৃত নীতিবান ও মহৎ নেতা।
Total Reply(0)
শেখ মোহিত আবদাল মিয়া ৬ মার্চ, ২০২২, ৮:৩৭ এএম says : 0
আমি গুনাহগার রব্বে কারিমের কাছে এই প্রার্থনা করি???????????????? ওনি যেন, আফগান মিল্লাতকে হ্মমা করেন,রহম করেন এবং তাদের সাথে তারের উসিলায় আমাদেরকেও যেন আল্লাহপাক হ্মমা করেন????????????????
Total Reply(0)
Md Wahid Zzaman ৬ মার্চ, ২০২২, ৮:৫৭ এএম says : 0
আলহামদুলিল্লাহ্
Total Reply(0)
Md Jahidur Rahman ৬ মার্চ, ২০২২, ৯:৫২ এএম says : 0
তারা যুদ্ধা ছিলো
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Google Apps