সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ১৩ আষাঢ় ১৪২৯, ২৬ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

নীতিগত বিষয় নয়, সাংবিধানিক বিষয়ে উদ্বিগ্ন সুপ্রিমকোর্ট

বুধবার পর্যন্ত শুনানি মুলতবি করে পাকিস্তানের প্রধান বিচারপতি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৬ এপ্রিল, ২০২২, ১২:০০ এএম


প্রধান বিচারপতি ওমর আতা বন্দিয়াল গতকাল বলেছেন যে, সুপ্রিম কোর্ট নীতিগত বিষয়গুলোর তদন্তে জড়িত হতে চায় না, কারণ এটি কেবলমাত্র ডেপুটি স্পিকারের অনাস্থা প্রস্তাব অপসারণের পদক্ষেপের সাংবিধানিক অবস্থা জানতে চায়। যার প্রেক্ষিতে আন্দোলন এবং পরবর্তীতে জাতীয় পরিষদ ভেঙে দেওয়া হয়েছে।

দেশের সাংবিধানিক সঙ্কটের পরিপ্রেক্ষিতে স্পিকারের আদেশের পর, সুপ্রিম কোর্ট বিরোধী দলগুলোর জেদে সমস্যাটি সমাধানের জন্য স্বতঃপ্রণোদিত নোটিশ নিয়েছিল যারা একই জন্য আদালতে আবেদন করেছিল। আগের শুনানিতে বিরোধী দলের আইনজীবী ফারুক এইচ নায়েক দুই ঘণ্টা যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন। সুপ্রিম কোর্ট মামলার শুনানির জন্য একটি পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ গঠনের জন্য পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) অনুরোধও প্রত্যাখ্যান করেছিল।

গতকাল শুনানির সময় প্রধান বিচারপতি বন্দিয়াল বলেন, ‘আমাদের একমাত্র মনোযোগ ডেপুটি স্পিকারের রায়ের উপর... সেই নির্দিষ্ট বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া আমাদের অগ্রাধিকার’।
শীর্ষ বিচারক বলেছেন, সুপ্রিম কোর্ট দেখতে চায় যে, ডেপুটি স্পিকারের রায় বেঞ্চে পর্যালোচনা করা যায় কিনা। ‘আদালত রাষ্ট্রীয় বিষয় এবং বৈদেশিক বিষয়ে হস্তক্ষেপ করে না’, তিনি বলেন, সুপ্রিম কোর্ট কেবল স্পিকারের পদক্ষেপের বৈধতা সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেবে।

প্রধান বিচারপতি যোগ করেছেন, ‘আমরা সব পক্ষকে এই পয়েন্টে ফোকাস করতে বলব’। বিচারপতি ইজাজুল আহসান বলেন, বর্তমানে আদালত শুধু সাংবিধানিক বিষয় নিয়েই সংশ্লিষ্ট। পিএমএল-এন আইনজীবী মখদুম আলি খান বিদেশী ষড়যন্ত্রের ইঙ্গিত করে বলেছেন, সুপ্রিম কোর্ট যদি বিরোধী দলের সদস্যদের আনুগত্য পরীক্ষা করতে চায় তবে বেঞ্চ দেশের প্রধান সংস্থার প্রধানের কাছ থেকে চেম্বারে একটি ব্রিফিং পেতে পারে।
সুপ্রিমকোর্ট বিচারক জবাব দেন, ‘আমরা অ্যাটর্নি জেনারেলের কথা শুনব এবং প্রশ্নের ক্ষেত্রে আপনার কাছে ফিরে যাব’।

মখদুম বলেন, ডেপুটি স্পিকার কাসিম সুরির রায় সংবিধানের বর্ণ ও চেতনার পরিপন্থী। তিনি বলেন যে, এ রায়ে ৯৫ ধারা অপ্রয়োজনীয় হয়ে গেছে। আইনজীবী বলেন যে, সংবিধানের ৬৯ অনুচ্ছেদে এমন একটি অসাংবিধানিক রায়ের কভার দেওয়া হয়নি।

তবে বিচারপতি মুনিব আখতার বিস্ময় প্রকাশ করে বলেন, আদালত যদি স্পিকারের রায়ের বিচার করে দরজা খুলে দেয় তাহলে স্পিকারের প্রতিটি কাজ উচ্চ আদালতে চ্যালেঞ্জ করা হবে। বিচারপতি জামাল খান মন্দোখাইল জানতে চাইলেন, এ রায় বেআইনি, নাকি পদ্ধতিগত ত্রুটির আওতায় এসেছে। আইনজীবী বলেন যে, এটি একটি পদ্ধতিগত ত্রুটি নয়, এটি অসাংবিধানিকও।

তিনি এসময় পিটিআই’র পক্ষ থেকে প্রাক্তন প্রধান বিচারপতি গুলজার আহমেদকে তত্ত্বাবধায়ক প্রধানমন্ত্রী মনোনীত করার বিষয়েও প্রশ্ন তোলেন যখন বেঞ্চ বিষয়টির বিচার করছে। আইনজীবী আরো বলেন, ইমরান খানকে অন্তর্বর্তীকালীন প্রধানমন্ত্রী করা সংবিধানের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ নয়।
মখদুম খান যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে নামাজের বিরতি হয়। বিরতির পর, পিপিপির নয়ার বুখারি এবং আওয়ামী ন্যাশনাল পার্টির প্রতিনিধিত্বকারী আইনজীবীরা তাদের যুক্তি উপস্থাপন করেন যেখানে তারা মখদুম আলী খানের যুক্তিকে সমর্থন করেন।

আবেদনকারীরা মামলায় তাদের যুক্তিতর্ক শেষ করেছেন। পিটিআইয়ের আইনজীবী বাবর আওয়ান বলেছেন যে, তিনি বুধবার আদালতে যুক্তি উপস্থাপন করবেন। মামলায় প্রেসিডেন্ট আরিফ আলভির পক্ষে শুনানি করবেন ব্যারিস্টার আলী জাফর। ইমতিয়াজ কুরেশি বলেছেন, তিনি প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের প্রতিনিধিত্ব করবেন। এ সময় বিচারপতি জামাল মন্দোখেল বলেন, ইমরানকে শনাক্ত করার পর প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তিনি কীভাবে প্রতিনিধিত্ব করবেন?

এজিপি খালিদ জাভেদ খান আইনজীবীদের যুক্তিতর্ক শেষে বৃহস্পতিবার তার যুক্তি উপস্থাপন করবেন বলে বেঞ্চকে জানিয়েছেন। তিনি বলেন যে, মামলাটি জাতীয় নিরাপত্তার সাথে সম্পর্কিত হওয়ায় তিনি আদালতকে বিস্তারিতভাবে জানাতে চেয়েছিলেন। বিচারপতি ইজাজুল আহসান বলেন, সময় ফুরিয়ে গেলেও আদালত তাড়াহুড়ো করে মামলার রায় দিতে পারে না। সিজেপি বন্দিয়াল বলেছেন, বেঞ্চ বুধবারের মধ্যে আদেশ জারি করার চেষ্টা করবে। গতকাল শুনানি শেষ না হওয়ায় বুধবার বেলা ১১টা পর্যন্ত শুনানি মুলতবি করেন আদালত।
‘সভা ভেঙে দেওয়া যাবে না’ : গতকাল শুনানি শুরু হলে পিপিপির সিনেটর রাজা রব্বানী পাঁচ সদস্যের বেঞ্চে যুক্তি উপস্থাপন করেন। রব্বানী বেঞ্চকে জানান, প্রধানমন্ত্রীকে অপসারণের প্রক্রিয়া সংবিধানে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। রাব্বানী বলেন, ‘একবার [প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে] অনাস্থা প্রস্তাব হাউসে পেশ করা হলে তিনি সমাবেশগুলো ভেঙে দিতে পারবেন না’। শুধুমাত্র প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগই অনাস্থা প্রস্তাব বন্ধ করতে পারে।

পিপিপি নেতা বলেন, প্রেসিডেন্ট প্রধানমন্ত্রীকে হাউস থেকে আস্থা ভোট নিতেও বলতে পারেন। তিনি যোগ করেছেন যে, অনাস্থা প্রস্তাব খারিজ করার জন্য, হয় প্রধানমন্ত্রীকে পদত্যাগ করতে হবে বা বিরোধীরা প্রস্তাব ফিরিয়ে নিতে হবে। তবে, একবার রেজুলেশন উত্থাপিত হলে এটিতে ভোট দিতে হবে।

রব্বানী বলেন, আদালত সংবিধানের ৯৫(২) অনুচ্ছেদে স্পিকারের রায় পর্যালোচনা করতে পারে। তিনি আরো বলেন, ডেপুটি স্পিকার ৫ ধারার ব্যাখ্যা করে বিরোধী দলের সদস্যদের ওপর প্রয়োগ করেছেন। তিনি ডেপুটি স্পিকারের রায়কে অসাংবিধানিক ঘোষণা করার জন্য আদালতের প্রতি আহ্বান জানান, আদালতের অনুসন্ধান ছাড়া একজন স্পিকার এমন রায় দিতে পারেন কি না।

রব্বানী বলেছেন যে, সংস্থাটি প্রধানমন্ত্রী ইমরানের ‘প্রতিষ্ঠানের দ্বারা তাকে তিনটি বিকল্প দেওয়া’ সম্পর্কে যে দাবি করেছে তাও প্রত্যাখ্যান করেছে। রাব্বানী আদালতকে ‘হুমকি পত্র’ এবং জাতীয় নিরাপত্তা কমিটির কার্যবিবরণী তলব করতেও বলেছেন। ‘আদালতের উচিত স্পিকারের রায় বাতিল করা এবং জাতীয় পরিষদ পুনরুদ্ধার করা’ তিনি যোগ করেছেন। সূত্র : এক্সপ্রেস ট্রিবিউন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (6)
ALi Hossain Saddam ৬ এপ্রিল, ২০২২, ৩:২৮ এএম says : 0
পশ্চিমারা পুতিনের ক্ষমতা পরীক্ষা করছে। পুতিন কি পারবে, ইমরান খানের সরকারকে টিকিয়ে রাখতে?
Total Reply(0)
Rashif ৬ এপ্রিল, ২০২২, ৩:২৪ এএম says : 0
আমরা ইমরান খানের জন্য দোয়া করবো।
Total Reply(0)
Md Niaz Morshed ৬ এপ্রিল, ২০২২, ৩:২০ এএম says : 0
ষড়যন্ত্র করে কিছুই করতে পারবেনা। আবারো প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান হবে ইনশাআল্লাহ
Total Reply(0)
Anik Roy ৬ এপ্রিল, ২০২২, ৩:২০ এএম says : 0
ইমরান খানই পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হবেন।কারণ পাকিস্তানের জনতা কোন আমেরিকার পাচাটা গোলামকে ক্ষমতায় আনবে না
Total Reply(0)
Taniya Akter Tani ৬ এপ্রিল, ২০২২, ৩:২৫ এএম says : 0
Allah obosoi imran khaner Sorman rakbe In sha Allah
Total Reply(0)
মমতাজ আহমেদ ৬ এপ্রিল, ২০২২, ২:৫৪ এএম says : 0
আশা করি রায় ইমরান খানের পক্ষে আসবে
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Google Apps