রোববার, ২৬ জুন ২০২২, ১২ আষাঢ় ১৪২৯, ২৫ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

ফিনল্যান্ড ও সুইডেনকে হুঁশিয়ারি রাশিয়ার

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৬ মে, ২০২২, ৭:১৫ পিএম

ফিনল্যান্ড পার্লামেন্টে প্রধানমন্ত্রী মারিনের বক্তৃতা।


রাশিয়া ফিনল্যান্ড এবং সুইডেনকে বলেছে যে, তাদের ন্যাটো সামরিক জোটে যোগদানের সিদ্ধান্ত সুদূরপ্রসারী পরিণতি সহ একটি গুরুতর ভুল এবং তাদের মনে করা উচিত নয় যে, মস্কো চুপ করে বসে থাকবে।

সোমবার ফিনল্যান্ড সীমান্তে অদূরে রুশ সুখোই যুদ্ধবিমানের মহড়া শুরু করেছে রাশিয়া। এতে এমন আশঙ্কা তৈরি হয়েছে যে, ইউক্রেনের পরে এ বার ফিনল্যান্ডেও হামলা চালাতে পারে রুশ সেনা। এরই মধ্যে রুশ উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই রিয়াবকভ বলেছেন, ‘ন্যাটো জোটে যোগদানের সিদ্ধান্ত নিয়ে মারাত্মক ভুল করেছে ফিনল্যান্ড।’ এরই মধ্যে সোমবার ফিনল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী সান্না মারিন সে দেশের পার্লামেন্টে বক্তৃতায় নেটো জোটে যোগদানের জন্য আবেদনের কথা জানিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার মারিন জানিয়েছিলেন, অবিলম্বে নেটোয় যোগ দিতে আবেদন জানাবেন তারা। জানিয়েছিলেন, সোমবার আনুষ্ঠানিক ভাবে এ বিষয়ে আবেদন জানানো হতে পারে। দিন কয়েক আগে সুইডেনের তরফেও একই ইঙ্গিত দেয়া হয়েছিল। বিশেষত, ফিনল্যান্ডের এই উদ্যোগ রাশিয়ার নিরাপত্তার পক্ষে বড় আশঙ্কা বলে মনে করছে ভ্লাদিমির পুতিনের সরকার। ফিনল্যান্ডের সঙ্গে প্রায় ১২৮৮ কিলোমিটার সীমান্ত রয়েছে রাশিয়ার। অতীতে দু’দেশের একাধিক বার যুদ্ধও হয়েছে।

সোমবার ন্যাটোয় যোগ দেয়া প্রসঙ্গে ফিনল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট সাওলি নীনিস্তো ও প্রধানমন্ত্রী সান্না মারিনের যে যৌথ বিবৃতি প্রকাশ করা হয় তার বয়ান অনুযায়ী, ‘নেটোর সদস্যপদ ফিনল্যান্ডের নিরাপত্তা আরও জোরদার করবে। পরিবর্তে নেটোর সদস্য হিসেবে গোটা প্রতিরক্ষা অক্ষটির শক্তি বাড়াবে ফিনল্যান্ডও।’ এর প্রতিক্রিয়ায় রাশিয়ার উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই রিয়াবকভ বলেছেন, ‘অবশ্যই যা ঘটছে তার আলোকে পরিস্থিতির আমূল পরিবর্তন হচ্ছে। এর ফলে ফিনল্যান্ড এবং সুইডেনের নিরাপত্তা জোরদার হবে না তা আমাদের কাছে খুব স্পষ্ট।’

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের গোড়ায় ন্যাটোতে যোগদানের ইঙ্গিত দিয়েছিলেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। এর পরেই কিয়েভের বিরুদ্ধে সামরিক তৎপরতা শুরু করে মস্কো। ভ্লাদিমির পুতিন সরকারের অভিযোগ, আমেরিকা এবং ন্যাটো গোষ্ঠীভুক্ত দেশগুলো রাশিয়াকে ভৌগোলিক ভাবে ঘিরে ফেলার ছক কষছে। সে কারণেই ইউক্রেন, ফিনল্যান্ড-সহ প্রতিবেশি দেশগুলিকে ন্যাটোয় অন্তর্ভুক্তির প্রক্রিয়া শুরু করা হয়েছে। সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Google Apps