রোববার, ২৬ জুন ২০২২, ১২ আষাঢ় ১৪২৯, ২৫ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী

অভ্যন্তরীণ

শ্রমিক সঙ্কটে জমিতেই নষ্ট হচ্ছে ধান

চাটমোহরে হাজার টাকাও মিলছে না কৃষি শ্রমিক

মো. আফতাব হোসেন, চাটমোহর (পাবনা) থেকে | প্রকাশের সময় : ২৪ মে, ২০২২, ১২:০৩ এএম

পাবনার চাটমোহরসহ চলনবিল অঞ্চলে বোরো ধান কাটার শ্রমিক সঙ্কটে জমিতেই ধান নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এ নিয়ে চরম দুশ্চিন্তায় কৃষক। এক হাজার টাকাও মিলছেনা কৃষি শ্রমিক। উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে যমুনা নদীতে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় গুমানী ও চিকনাই নদী হয়ে পানি ঢুকেছে চলনবিলে। পানিতে চাটমোহর উপজেলার বিল এলাকার ৫শ’ বিঘা জমির পাকা ইরি-বোরো ধান ডুবে গেছে। এতে কৃষকের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। কৃষি অফিস বলছে গত দুই দিনে ৫/৬ হেক্টর জমির পাকা বোরো ধান বিনষ্ট হয়েছে। গত কয়েকদিন ধরে বড়াল, গুমানী, টিকনাই নদীতে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। নদীতে পানি বেড়ে যাওয়ার ফলে নদী ও বিলে বন্যার পানি ঢুকে উঠতি পাকা ধান ডুবে যায়। বাম্পার ফলনেও কৃষকের মুখে হাসি নেই। ধান কাটার ভরা মওসুমে চড়া মজুরি দিয়েও মিলছে না শ্রমিক। এতে মাঠেই নষ্ট হচ্ছে কৃষকের ধান। শ্রমিকের অভাবে কৃষক নিজেরাই পানিতে ডুবে থাকা ধান কেটে তোলার চেষ্টা করছেন। পলিথিনের নৌকা বানিয়ে ধান কেটে বিলের কিনারায় নিয়ে আসা হচ্ছে। প্রতিদিনই পানি বাড়ছে। সময় মতো ঘরে তোলা নিয়ে দেখা দিয়েছে শঙ্কা।
সরেজমিনে উপজেলার খলিশাগাড়ি বিল, ডিকশি বিল, আফরার বিল, হান্ডিয়াল দরাপপুর বিলসহ বিভিন্ন এলাকায় দেখা যায়, মাঠের পর মাঠ সোনালি ধান। পানিতেই ধান কাটছে কৃষক ও শ্রমিক। ধান ঘরে তোলা নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষক ও কৃষাণীরা।
চাটমোহর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা এ এ মাসুমবিল্লাহ জানান, চাটমোহরে এবার প্রায় সাড়ে ১১ হাজার হেক্টর জমিতে ধানের আবাদ হয়েছে। কৃষিশ্রমিকের চরম সঙ্কটে চলছে। বিলে বন্যার পানি ঢুকে বিল এলাকার ৫শ’ বিঘা জমির ধান ডুবেছে বলে খবর পেয়েছি। ৫ হেক্টর জমির ধান ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Google Apps