রোববার, ২৬ জুন ২০২২, ১২ আষাঢ় ১৪২৯, ২৫ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

সেনাবাহিনীর ভুয়া ক্যাপ্টেন পরিচয়ে প্রতারণা শ্বশুর ও জামাতা আটক

বরিশাল ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ২৪ মে, ২০২২, ১২:০১ এএম

সেনাবাহিনীর ভুয়া ক্যাপ্টেন পরিচয়ে শ্বশুরের সহযোগিতায় গ্রামের বেকার-যুবকদের সেনাবাহিনীসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানে চাকুরির প্রলোভন দেখিয়ে প্রতারণার মাধ্যমে কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে গৌরনদী থানা পুলিশ প্রতারণার প্রধান সহযোগী শ্বশুর রকিব বেপারীকে আটক করেছে। এলাকাবাসীর সন্দেহ হলে ভুক্তভোগীদের অভিযোগের ভিত্তিতে গত রোববার রাকিবকে আটক করা হয়।

গৌরনদী থানার ওসি (তদন্ত) মো. হেলাল উদ্দিন সাংবাদিকদের জানান, পৌর এলাকার ২ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা রকিব বেপারী ও তার জামাতা কবির হোসেন প্রতারণার মাধ্যমে গ্রামের বেকার-যুবকদের সেনাবাহিনী ও অন্যন্য সরকারি প্রতিষ্ঠানের বিভিন্নপদে চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে মোটা অংকের টাকার হাতিয়ে নিয়েছে। সেনাবাহিনীর ভুয়া ক্যাপ্টেন পরিচয় দেয়া কবির হোসেন ঝিনাইদহ জেলার কালীগঞ্জ থানার ছোট দিঘাটি গ্রামের বাসিন্দা। গত তিনদিন আগে মুন্সীগঞ্জের লৌহজং থানা পুলিশ কবিরকে আটক করেছে। গৌরনদী থানা পুলিশের অভিযানে আটক রকিব বেপারীর বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও ওসি-তদন্ত জানিয়েছেন।
গৌরনদীর টরকীর চর গ্রামের বাসিন্দা মো. শাহাবুদ্দিন বলেন জানান, রকিব বেপারী তার ছোট মেয়ের জামাতা কবির হোসেনকে এলাকাবাসীর কাছে সেনাবাহিনীর ক্যাপ্টেন হিসেবে পরিচয় করিয়ে দেয়। এমনকি সেনাবাহিনীর পোশাক পরে কবির হোসেন তার শ্বশুরালয়ে একাধিকবার এসেছেন। তিনি আরও জানান, তার ছেলে ওসমান মোল্লাকে সেনাবাহিনীতে চাকরি দেবার প্রলোভন দেখিয়ে রকিব বেপারী ও তার মেয়ে জামাতা কবির হোসেন বিভিন্ন সময়ে সাড়ে পাঁচ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। পরবর্তীতে ওসমান মোল্লার চাকরি হয়েছে মর্মে সেনাবাহিনীর একটি পরিচয়পত্র প্রদান করে।
একই এলাকার বাসিন্দা দলিল উদ্দিন হাওলাদারের পুত্র সজিব হাওলাদার জানায়, ছয় মাস আগে তাকে সেনাবাহিনীতে চাকরি দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে তার বাবার কাছ থেকে পাঁচ লাখ টাকার হাতিয়ে নিয়েছে রকিব ও তার মেয়ে জামাতা কবির। তাকেও সেনাবাহিনীর একটি ভুয়া পরিচয়পত্র প্রদান করা হয়েছে। মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার চরফতে বাহাদুরপুর গ্রামের মাহমুদ হোসেন জানান, তাকেও চাকরি দেবার প্রলোভন দেখিয়ে ছয় লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে প্রতারক শ্বশুর ও তার মেয়ে জামাতা। পরবর্তীতে তাকে সেনাবাহিনীর ভুয়া পরিচয়পত্র দিয়ে ঢাকায় নিয়ে একটি চাইনিজ রেস্টুরেন্টের দারোয়ানের চাকরি দেয়া হয়। এতে আপত্তি জানানোর পর তাকে কবির হোসেন নিজের বাসায় নিয়ে আটকে রাখেন। মাহমুদ হোসেন আরও জানায়, কবিরের বাসা থেকে ৭০ জন চাকরি প্রত্যাশীর জাতীয় পরিচয়পত্রের কার্ড ও অন্যান্য কাগজপত্র উদ্ধার করা হয়েছে। এমনকি কবির হোসেনের বাসায় কয়েক কোটি টাকাও তিনি দেখেছেন।
শ্বশুর ও জামাতার প্রতারণায় চাকরির ফাঁদে সহায় সম্পত্তি বিক্রি করে নিঃস্ব হয়ে পরা পরিবারগুলো এ ঘটনায় সুষ্ঠু তদন্ত করে অভিযুক্তদের সর্বোচ্চ শাস্তির পাশাপাশি তাদের সম্পূর্ণ টাকা ফেরত পেতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Google Apps