বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ২৩ আষাঢ় ১৪২৯, ০৭ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

পূর্বে ইউক্রেনীয় সেনাদের ঘিরে ফেলেছে রাশিয়া

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ মে, ২০২২, ১:১৭ পিএম

অগ্রসর হওয়া রাশিয়ান বাহিনী পূর্বে ইউক্রেনীয় সেনাদের ঘিরে ফেলেছে। তারা ইউক্রেন-নিয়ন্ত্রিত শহরগুলোর একটি গুরুত্বপূর্ণ সংযোগ রাস্তায় অবস্থান দখল করে নিয়েছে। বৃহস্পতিবার একজন ইউক্রেনীয় কর্মকর্তা বলেছেন।

ইউক্রেনের শিল্প এলকা ডনবাস অঞ্চলের নিয়ন্ত্রণ একীভূত করার চেষ্টা করছে রাশিয়া, যেখানে তারা ২০১৪ সাল থেকে স্বাধীনতাকামীদের সমর্থন করছে। সিভিয়ারোডোনেটস্ক এবং লিসিচানস্কে ইউক্রেনীয় বাহিনীকে ঘেরাও করার চেষ্টা করতে হাজার হাজার সৈন্য তিন দিক থেকে আক্রমণ করছে। যদি সিভারস্কিডোনেৎস নদীতে বিস্তৃত দুটি শহর পড়ে যায়, তবে লুহানস্কের ডনবাস প্রদেশের প্রায় পুরোটাই রাশিয়ার নিয়ন্ত্রণে থাকবে।

ইউক্রেনের জেনারেল স্টাফের প্রধান অপারেশন বিভাগের ডেপুটি চিফ জেনারেল ওলেক্সি গ্রোমভ বলেছেন, ‘রাশিয়ার সুবিধা আছে, তবে আমরা যা করতে পারি তা করছি।’ লুহানস্কের গভর্নর সের্হি গাইদাই বলেছেন, প্রায় ৫০ জন রাশিয়ান সৈন্য হাইওয়েতে পৌঁছেছে, তারা সেখানে একটি চেকপয়েন্ট স্থাপন করেছে। পশ্চিমা সামরিক বিশ্লেষকরা এই দুটি শহরের যুদ্ধকে যুদ্ধের একটি সম্ভাব্য মোড় হিসাবে দেখেছেন।

আরও দক্ষিণে রুশ-নিয়ন্ত্রিত অঞ্চলে রয়টার্সের সাংবাদিকরা স্বিতলোদারস্কে মস্কোর অগ্রগতির প্রমাণ দেখেছিলেন, যেখানে ইউক্রেনীয় বাহিনী এই সপ্তাহের শুরুতে প্রত্যাহার করেছিল। শহরটি এখন দৃঢ়ভাবে রাশিয়াপন্থী যোদ্ধাদের নিয়ন্ত্রণে, যারা স্থানীয় সরকার ভবন দখল করেছে এবং দরজায় সোভিয়েত হাতুড়ি এবং কাস্তে পতাকা ঝুলিয়েছে।

কাছাকাছি পরিত্যক্ত যুদ্ধক্ষেত্রের রয়টার্সের ড্রোন ফুটেজে দেখা গেছে, ধ্বংসস্তূপ বিল্ডিং দিয়ে ঘেরা একটি সবুজ মাঠের পকমার্ক করা গর্ত। রুশপন্থী যোদ্ধারা পরিখার মধ্যে ঘোরাঘুরি করছিল। ইউক্রেনের সামরিক বাহিনী জানিয়েছে যে, বৃহস্পতিবার দোনেস্ক এবং লুহানস্কের ৫০টি শহর গোলাগুলির শিকার হয়েছে, যার মধ্যে নয়জন বেসামরিক লোক নিহত হয়েছে।

ডনবাসে রাশিয়ার সাম্প্রতিক লাভগুলি গত সপ্তাহে মারিউপোলে ইউক্রেনের গ্যারিসন আত্মসমর্পণের পরে এবং কয়েক সপ্তাহ পরে গতিতে পরিবর্তনের পরামর্শ দেয় যেখানে ইউক্রেনীয় বাহিনী উত্তর-পূর্বে খারকিভের কাছে অগ্রসর হয়েছিল। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক সিএনএ থিঙ্ক-ট্যাঙ্কের রুশ গবেষণার পরিচালক প্রতিরক্ষা বিশ্লেষক মাইকেল কফম্যান টুইট করেছেন, ‘সাম্প্রতিক রাশিয়ান লাভগুলি নিকটবর্তী সময়ের জন্য প্রত্যাশার উপর একটি সুস্পষ্ট পরীক্ষা প্রদান করে।’

রাশিয়ান সৈন্যরা সিভিয়েরোডোনেৎস্কের দক্ষিণে পোপাসনায় ইউক্রেনীয় লাইন ভেঙ্গেছে এবং ইউক্রেনীয় বাহিনীকে ঘিরে ফেলার হুমকি দিচ্ছে, তিনি লিখেছেন। ইউক্রেনের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উপদেষ্টা ভাদিম ডেনিসেনকো একটি ব্রিফিংয়ে বলেছেন, ২৫টি রুশ ব্যাটালিয়ন ইউক্রেনের বাহিনীকে ঘিরে ফেলার চেষ্টা করছে। ইউক্রেনের সশস্ত্র বাহিনীর প্রধান, ভ্যালেরি জালুঝনি, টেলিগ্রামে আরও পশ্চিমা অস্ত্রের জন্য আহ্বান জানিয়েছেন, বিশেষ করে ‘অস্ত্র যা আমাদের শত্রুকে অনেক দূরত্বে আঘাত করতে দেবে’।

রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ পরে সতর্ক করে দিয়েছিলেন যে. রাশিয়ার ভূখণ্ডে পৌঁছাতে পারে এমন অস্ত্রের সরবরাহ ‘অগ্রহণযোগ্য বৃদ্ধির দিকে একটি গুরুতর পদক্ষেপ’ হবে। ইউক্রেন থেকে বিবিসি সংবাদদাতা আযাদেহ্ মশিরি জানাচ্ছেন, ইউক্রেনে প্রেসিডেন্ট পুতিনের সামরিক অভিযানের প্রাণকেন্দ্র এখন এই ডনবাস অঞ্চল। পুরো এলাকাটি তিনি দখল করতে চান। আর সেজন্যই সেখানে রুশ হামলা জোরদার হয়েছে। রুশ বাহিনী তিন দিক থেকে সেভারোডোনেৎস্ক এবং লিসিচ্যানস্ক শহরের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।

এই শহরগুলোর নিয়ন্ত্রণ নিতে পারলে পুরো ওব্লাস্ট অর্থাৎ পুরো অঞ্চলটি রাশিয়ার হাতে চলে যাবে, এবং এসব শহরকে রক্ষার জন্য ইউক্রেনের বাহিনী যেসব জায়গায় ঘাঁটি গেড়ে বসে আছে, তারা মূলত অকার্যকর হয়ে পড়বে। সূত্র: রয়টার্স, বিবিসি।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (2)
jack ali ২৭ মে, ২০২২, ৩:২০ পিএম says : 0
আমেরিকা ইউরোপ কত বড় বর্বর যুদ্ধ লাগিয়ে দিয়ে সাধারণ মানুষকে হত্যা করছে তাদের বাড়িঘর সব ধ্বংস করে দিয়েছে রাশিয়ান বর্বর সৈন্যরা
Total Reply(0)
jack ali ২৭ মে, ২০২২, ৩:২২ পিএম says : 0
আমেরিকা ইউরোপ কত বড় বর্বর যুদ্ধ লাগিয়ে দিয়ে সাধারণ মানুষকে হত্যা করছে তাদের বাড়িঘর সব ধ্বংস করে দিয়েছে রাশিয়ান বর্বর সৈন্যরা
Total Reply(0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Google Apps