শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ১১ আষাঢ় ১৪২৯, ২৪ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

মার্কিন নেতৃত্বাধীন বাণিজ্য গোষ্ঠীর লক্ষ্য চীনকে বিচ্ছিন্ন করা

টোকিওতে মাহাথির মোহাম্মদ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৯ মে, ২০২২, ১২:০০ এএম

মালয়েশিয়ার প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ গত শুক্রবার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে নতুন অর্থনৈতিক জোটের সমালোচনা করে বলেছেন, এর লক্ষ্য চীনকে বিচ্ছিন্ন করা এবং বেইজিং ছাড়া আঞ্চলিক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি লাভবান হবে না। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এ সপ্তাহের শুরুতে জাপান সফরের সময় ১৩-জাতির ইন্দো-প্যাসিফিক ইকোনমিক ফ্রেমওয়ার্ক চালু করেছেন। তিনি বলেন, এটি যুক্তরাষ্ট্রকে এশীয় দেশগুলোর সাথে সাপ্লাই চেইন, ডিজিটাল বাণিজ্য, ক্লিন এনার্জি এবং দুর্নীতিবিরোধী ক্ষেত্রে আরো ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করতে সাহায্য করবে।
টোকিওতে এক আন্তর্জাতিক সম্মেলনে মাহাথির বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র সবসময় চীনকে বিচ্ছিন্ন করতে এ ধরনের জোটকে ব্যবহার করতে চাইবে’। ’অনেক দেশ বুঝতে পেরেছে যে, এটি একটি অর্থনৈতিক গ্রুপিং নয়, আসলেই একটি রাজনৈতিক গ্রুপিং’। স্বাক্ষরকারী দেশগুলো হলো অস্ট্রেলিয়া, ব্রুনাই, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, জাপান, মালয়েশিয়া, নিউজিল্যান্ড, ফিলিপাইন, সিঙ্গাপুর, দক্ষিণ কোরিয়া, থাইল্যান্ড, যুক্তরাষ্ট্র এবং ভিয়েতনাম। একসাথে, তারা বিশ্বব্যাপী জিডিপির ৪০ শতাংশের জন্য দায়ী।

গ্রুপিং দেশগুলোর বিষয়ে মাহাথির বলেন, ‘এটি তাদের অর্থনৈতিক উন্নয়নের স্বার্থে নয়’। ‘চীন মালয়েশিয়ার একটি বড় বাণিজ্য অংশীদার, আমরা চীনের সাথে কোনো উত্তেজনা বা কোনো সংঘর্ষ দেখতে চাই না এবং আমরা আশাকরি যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র উপলব্ধি করবে যে, চীন আছে এবং অদৃশ্য হবে না এবং আমাদের চীনের সাথে থাকতে হবে, যা নিক্কেই ইনকর্পোরেটেড আয়োজিত ‘ফিউচার কনফারেন্স’ এশিয়া’-তে তিনি বলেন, এখন বিশ্বের অধিকাংশ দেশের চেয়ে ধনী।

পরে শুক্রবার, মালয়েশিয়ার বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ইসমাইল সাবরি ইয়াকুব, যিনি টোকিওতেও রয়েছেন, তার জাপানি সমকক্ষ ফুমিও কিশিদার সাথে দেখা করেছেন। জাপানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে যে, কর্মকর্তারা অর্থনৈতিক কাঠামোর সূচনাকে স্বাগত জানিয়েছেন এবং ডিজিটাল রূপান্তর, সাইবার নিরাপত্তা, উদীয়মান প্রযুক্তি এবং সরবরাহ চেইন স্থিতিস্থাপকতার মতো ক্ষেত্রে তাদের সহযোগিতার উপর জোর দিয়েছেন।

মন্ত্রণালয় বলেছে যে, কিশিদা ইন্দো-প্যাসিফিকের ‘স্বাধীনতা এবং উন্মুক্ততা’ অর্জনে মালয়েশিয়ার সমর্থন চেয়েছিলেন, যা এ অঞ্চলে চীনের সামরিক ও অর্থনৈতিক উত্থানের বিরুদ্ধে জাপান এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দ্বারা প্রচারিত একটি দৃষ্টিভঙ্গি। সূত্র : এপি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (5)
Shamim Reza ২৯ মে, ২০২২, ৫:২১ এএম says : 0
আমি আপনার সাথে একমত। যুক্তরাষ্ট্র মানেই অশান্তি।
Total Reply(0)
Bazlur Rashid ২৯ মে, ২০২২, ৫:২১ এএম says : 0
পৃথিবীতে চলছে শক্তিধর দেশগুলোর আধিপত্যের লড়াই।
Total Reply(0)
Mohamed Saleh ২৯ মে, ২০২২, ৫:২২ এএম says : 0
কিন্তু চীনকে এত সহজেই আটকাতে পারবে বলে মনে হয় না।
Total Reply(0)
Mohamed Saleh ২৯ মে, ২০২২, ৫:২২ এএম says : 0
কিন্তু চীনকে এত সহজেই আটকাতে পারবে বলে মনে হয় না।
Total Reply(0)
Md Ali Azgor ২৯ মে, ২০২২, ৫:২২ এএম says : 0
চীনেরও উচিত শক্তিশালী একটা বাণিজ্য জোট গঠন করা।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Google Apps