সোমবার, ০৮ আগস্ট ২০২২, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৯, ০৯ মুহাররম ১৪৪৪ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

কমিটিতে বিতর্কিতরা

ঢাকা মহানগর মৎস্যজীবী লীগ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩১ মে, ২০২২, ১২:০১ এএম

আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন মৎস্যজীবী লীগ যেন বিতর্কিতদের আশ্রয়কেন্দ্র। বেশির ভাগ নেতাই মৎস্য বা মৎস্য সংশ্লিষ্ট কর্মকান্ডের সঙ্গে জড়িত না থাকলেও তারা পদে আছেন। ইতোমধ্যে ঢাকা মহানগর উত্তরের কমিটি দেয়ার পর এই বিষয়টি আরও বেশি প্রমাণিত হয়েছে। গত ১১ মে বহুল আলোচিত তাজরীণ ফ্যাশন গার্মেন্টেসর ব্যবস্থাপনা পরিচালক দেলোয়ার হোসেন ঢাকা মহানগরের উত্তরের সভাপতি হয়েছেন। সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন মৎস্যজীবী লীগ থেকে একাধিকবার বহিস্কৃত এক সময়ের বিএনপি নেতা আবদুল জলিলকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে। এ নিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ঢাকা মহানগর উত্তর মৎসজীবী লীগের নেতারা।
২০১২ সালের ২৪ নভেম্বর ঢাকার সাভারের আশুলিয়ার নিশ্চিন্তপুরে তাজরীন ফ্যাশনসে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ১১২ জনের মৃত্যু হয়। অসংখ্য লোক আহত হয়ে পুঙ্গত বরণ করছে। শতাধিক শ্রমিকের মৃত্যুর ঘটনায় মামলার প্রধান আসামি দেলোয়ার। বর্তমানে মামলা চলমান এবং হাইকোর্টে তার পাসপোর্ট জব্দ রয়েছে। এর পরও তাকে কোনো সভাপতি করা হয়েছে এ নিয়ে সংগঠনটিতে সমালোচনার অন্ত নেই।
অন্যদিকে ঢাকা মহানগর উত্তর মৎস্যজীবী লীগের সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে আবদুল জলিল। আবদুল জলিল সম্মেলন প্রস্তুত কমিটির সদস্য সচিব ছিলেন। সদস্য সচিব থাকা অবস্থায় টাকার বিনিমেয়ে ঢাকার তিনটি থানার কমিটি দিয়েছেন বলে অভিযোগ আছে। যদিও সম্মেলন আহবায়ক কমিটি কোনো কমিটি দেওয়ার এখতিয়ার নেই। এছাড়া তিনি বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় তিনি মিরপুরের পল্লবী থানা বিএনপির নেতা ছিলেন বলে জানা গেছে।
এ বিষয়ে সদ্য নির্বাচিত উত্তর মৎস্যজীবী লীগ সভাপতি মুহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন বলেন, আমার কোনো প্রতিযোগী ছিল না, কাউকে পায় নাই। তাই আমাকে সভাপতি করা হয়েছে। ২০১৮ সালে উত্তর মৎস্যজীবী লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে। এখন তারা সম্মেলনের মাধ্যমে আমাকে সভাপতি বানিয়েছে। এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘হ্যা, মামলা আছে। ১০৪ জন সাক্ষী কেউ তো একদিনও সাক্ষ্য দিতে আসে না। তিনি আরো বলেন, আমি ছাত্রলীগ করতাম। ছাত্রলীগের কাগজ দিয়েছি মৎস্যজীবী লীগের সাধারণ সম্পাদকের কাছে। টাকার বিনিময়ে পদ নেয়ার বিষয়টি মিথ্যা বলে দাবি করেন তিনি।
এদিকে গত ১২ মে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ মৎস্যজীবী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে সভাপতি প্রার্থী হিসেবে মূল আলোচনায় আছেন শাহজাহান হাওলাদার। পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার তুষখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহজাহান হাওলাদার এর আগে সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক ছিলেন। সভাপতি পদে ওইরকম কোনো প্রার্থী ছিলো না। তবে, ওই সম্মেলনে ৮-১০ জন সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী ছিল। সাধারণ সম্পাদক পদ নিয়ে সুরাহা না হওয়ায় ওই দিন কমিটি ঘোষণা করা সম্ভব হয়নি। পরে সাত দিনের মধ্যে কমিটি ঘোষণার নির্দেশনা দেওয়া হয়। তবে নির্ধারিত সময় পেরিয়ে গেলেও এখনো কমিটি হয়নি।
জানা গেছে, সাধারণ সম্পাদক করা হচ্ছে আরেক বিতর্কিত নেতা কাজী মহিদুল ইসলামকে। তিনি সম্মেলন প্রস্তুত কমিটি সদস্য সচিব ছিলেন। অভিযোগ আছে তিনি এক সময় মাদারীপুর জেলার শিরুয়াইল ইউনিয়ন যুব দলের নেতা ছিলেন। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগের পার্টি অফিস পুড়ানোর মামলা আছে তার বিরুদ্ধে। এছাড়া গাড়িচুরি, পদবাণিজ্যসহ নানা অভিযোগ আছে তার বিরুদ্ধে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন