মঙ্গলবার, ১৬ আগস্ট ২০২২, ০১ ভাদ্র ১৪২৯, ১৭ মুহাররম ১৪৪৪

খেলাধুলা

শেষ দেখে ফেলছেন নাদালও!

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৫ জুন, ২০২২, ১২:০০ এএম

চোট নিয়েই রোঁলা গারোর লাল দুর্গে লড়ছেন রাফায়েল নাদাল। সাফল্য বিচারে ফ্রেঞ্চ ওপেনকে অনেকটাই ‘চিরস্থায়ী বন্দোবস্ত’ করে নেওয়া নাদাল এ গ্র্যান্ড স্ল্যাম টুর্নামেন্টে আগেও চোট নিয়ে খেলেছেন। কিন্তু এবারের প্রেক্ষাপট একটু ভিন্ন। কাল ছত্রিশ বছরে পা রাখলেন নাদাল। চোট নিয়ে এবারও উঠেছেন ফাইনালে। অনেকেরই শঙ্কা, এটাই শেষ! আর নাদালকে না-ও দেখা যেতে পারে!
সেমিফাইনালে কাল আলেক্সান্দার জভেরেভের মুখোমুখি হন নাদাল। জার্মান তারকা অ্যাঙ্কেলের চোটে পড়ায় ম্যাচ শেষ করতে পারেননি। নিজেকে প্রত্যাহার করে নিতে হয়। এর মধ্য দিয়ে ফ্রেঞ্চ ওপেনে ১৪তম ফাইনালের দেখা পেয়ে যান নাদাল। তবে রেকর্ড ২১ গ্র্যান্ড স্ল্যামজয়ী এই কিংবদন্তির চোটও কম নয়। বিরল রোগ মুলার–ওয়েসিস সিনড্রোমে দীর্ঘদিন ভুগছেন নাদাল। তার বাঁ পায়ের পাতা ও পেছনের অংশ এই রোগে আক্রান্ত। তবে দুই পায়েই এই রোগ দেখা দিতে পারে, যা পায়ের পাতার হাড়ে ভীষণ প্রদাহের সৃষ্টি করে।
২০০৫ সাল থেকে নাদাল এই রোগে ভুগলেও চোট সামলে পেশাদার টেনিসে এত দিন দাপট ছড়িয়েছেন। স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম ‘মার্কা’র প্রতিবেদনে বলা হয়, নাদাল যে রোগে ভুগছেন, তাতে এই ফ্রেঞ্চ ওপেনই হয়ে যেতে পারে তার ক্যারিয়ারের শেষ টুর্নামেন্ট। সংবাদ সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, বাঁ পায়ের চোট এতটাই মারাত্মক, যেকোনো ম্যাচই হতে পারে নাদালের শেষ ম্যাচ। ফ্রেঞ্চ ওপেনের ফাইনালে নাদালের প্রতিপক্ষ নরওয়ের ক্যাসপার রুদ।
বাঁ পায়ের চোট কতটা ভোগায়, তা ফাইনালে ওঠার পর বুঝিয়ে দেন নাদাল। আরেকটি নতুন পা নাকি ফাইনাল জয়- কোনটির গুরুত্ব তার কাছে বেশি? নাদাল সাফ জানিয়ে দেন, নতুন একটি পা পেতে তিনি রোববার ফ্রেঞ্চ ওপেনের ফাইনালেও হারতে রাজি, ‘কোনো সন্দেহ নেই আমি ফাইনালে হার বেছে নেব। আমার কথা পাল্টাবে না। নতুন পা আমার দৈনন্দিন জীবনকে সহজ করবে। জয় সব সময়ই ভালো, উত্তেজনা বাড়ায়। কিন্তু সেটা অল্প সময়ের জন্য। তারপর কিন্তু দৈনন্দিন জীবন নিয়ে ব্যস্ত হতে হয়। আমার সামনে জীবনটা পড়ে আছে। ভবিষ্যতে আমি বন্ধুদের সঙ্গে এই খেলাটা খেলতে চাই। আমার ভালো থাকার সঙ্গে শিরোপার কোনো সম্পর্ক নেই।’

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন