শনিবার, ১৩ আগস্ট ২০২২, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৪ মুহাররম ১৪৪৪

জাতীয় সংবাদ

পদ্মা সেতুকে প্রধানমন্ত্রী অপয়া করে দিয়েছেন: রিজভী

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১২ জুন, ২০২২, ২:০৮ পিএম

পদ্মা সেতুকে অপয়া করে দিয়েছেন বর্তমান অবৈধ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি'র সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী

তিনি বলেন,'আমাদের দেশে যে প্রধানমন্ত্রী আছেন সে তো জনগণের ভোটে নির্বাচিত হননি। আমার মনে হয় উনি(শেখ হাসিনা) মনে করেন গোটা বাংলাদেশটাই তার বাড়ি আর বিএনপি দেশের জনগণ ও অন্যান্য বিরোধী দল তার ভাড়াটিয়া।

রোববার (১২ জুন)
অসুস্থ বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে বিদেশে উন্নত চিকিৎসার দাবিতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে দুপুরে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ বিএনপির উদ্দ্যোগে সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে রিজভী বলেন, পদ্মা সেতু আপনি বানিয়েছেন? গোপালগঞ্জে আপনার বাবার জমানো টাকা দিয়ে বানিয়েছেন? নাকি রংপুর পীরগঞ্জে আপনার স্বামী টাকা রেখে গেছে সেই জমিজমা বিক্রি করে বানিয়েছেন? এ পদ্মা সেতুর প্রতিটি ইট,রড,সিমেন্ট আমার আপনার জনগণের টাকা নিহিত রয়েছে। আপনি সেই পদ্মা সেতুকে অপয়া করেছেন। আপনি পদ্মা সেতু থেকে সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে টুস করে ফেলে দিবেন। যিনি দেশের সম্মান নিয়ে এসেছেন সেই ডঃ ইউনুসকে চুবানি দিবেন। তাই জনগণ এখন মনে করছে এই পদ্মা সেতু দিয়ে যাওয়া যাবে না কারণ এটা প্রথমে অপায়া করে দিয়েছেন। মানুষের কাছে একটি বিরক্তি সৃষ্টি করেছেন।

শেখ হাসিনার উদ্দেশে বিএনপির এই মুখপাত্র আরও বলেন, আপনি বলেছেন পদ্মা সেতু উদ্বোধনের সময় দেশ-বিদেশ থেকে যারা আসবে সবাই কে উপহার দেওয়া হবে। আর বাজেটে কি করছেন? একজন ছাত্র একটা ল্যাপটপ কিনতে গেলে তাকে শুল্ক দিতে হবে। মধ্যবিত্তরা একটা ফ্রিজ কিনতে গেলে শুল্ক দিতে হবে। আপনি জনগণের গলায় ফাঁসির দড়ি দিয়ে পদ্মা সেতু দেখাচ্ছেন। আর অন্যদিকে সাবেক প্রধানমন্ত্রী যে ৯ বছর সংগ্রাম করে দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে দিয়েছেন তিনি হাসপাতালে ভর্তি তাকে সুচিকিৎসা নিতে দিচ্ছেন না। কারণ বিচার আপনার হাতে, আইন আপনার হাতে, আপনি গোটা দেশকে নিজের বাড়ি মনে করেন।

রিজভী অভিযোগ করে বলেন,'
হাজী সেলিম চিকিৎসার জন্য বিদেশে যেতে পারে সাজাপ্রাপ্ত আসামির চিকিৎসার জন্য বিদেশে যেতে পারে আর যিনি তিন তিনবারের প্রধানমন্ত্রী যে মিথ্যা মামলা তার নামে দেয়া হয়েছে এ মামলায় তার কোন স্বাক্ষর নাই। সেই মিথ্যা মামলার সাজা দিয়ে তাকে আটক করে রেখেছেন।

তিনি বলেন,'প্রধানমন্ত্রী আপনাকে বলতে চাই এভাবে আর চলবে না। আপনি যদি এবার আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী, বিচার বিভাগ ব্যবহার করেন তাহলে জনগণের পক্ষে থেকে আলাদা আইন শৃঙ্খলাবাহিনী, বিচার বিভাগ গড়ে তোলা হবে। আর সেই বিচারে আপনি কিন্তু পার পাবেন না।

বিএনপির এই নেতা বলেন,'দেশে যদি পশ্চিমা দেশ, ইউরোপ, জাপান এর মত শাসন থাকতো তাহলে আপনি জেলে থাকতেন। আপনার মন্ত্রীরা জেলে থাকত। যারা লুটপাট করছে, অন্যায় করছে তারা বাহিরে কারণ সত্যি কারের শাসন নাই বলে। আর দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে আটক করে রেখেছেন।

তিনি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন,'সবদিক থেকে দেশের জনগণ জেগে উঠেছে। সবাই শেখ হাসিনার পতন দেখতে চায় অন্য কিছু দেখতে চাচ্ছে না। কেউ নাটক সিনেমা দেখতে চায় না। মানুষের একটাই আখাংকা শেখ হাসিনার পতন। তাছাড়া অন্য কিছু দেখতে চায় না।

ডাকসুর সাবেক ভিপি ও ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির সভাপতি আমান উল্লাহ আমানের সভাপতিত্বে এবং মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের সদস্য সচিব যথাক্রমে আমিনুল ইসলাম ও রফিকুল ইসলাম মজনুর সঞ্চালনায় বিক্ষোভ সমাবেশে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর,চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব,আবুল খায়ের ভূইয়া,
যুগ্ম-মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দীন খোকন,খায়রুল কবির খোকন,
যুবদলের সভাপতি সুলতান সালাউদ্দীন টুকু,
সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মোনায়েম মুন্না,কৃষকদলের সভাপতি হাসান জাফির তুহিন,সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাবুল,স্বেচ্ছাসবেক দলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের ভূইয়া জুয়েল,ছাত্রদলের সভাপতি কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণ,সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল,শ্রমিক দলের সভাপতি আনোয়ার হোসেন,বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য ইকবাল হোসেন শ্যামল,কৃষকদলের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ মেহেদী হাসান পলাশ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
Jakir ১২ জুন, ২০২২, ৩:২৮ পিএম says : 0
১৪ টি বছর বাংলাদেশে নির্বাচন নাই, ... লীগ জোর জবরদস্তি তন্ত্রে দেশ চালাচ্ছে ৷ সাধারন পাবলিক এই জবরদস্তি তন্ত্রের পতন দেখতে চায় এটা ১০০% সত্য কথা ৷তবে রিজভী সাহেব, এদেশ রাত পোহালে হবে শ্রীলঙ্কা, আপনারা এখন যা বলছেন এগুলো ১০ বছর আগে বলে সত্তিকারের বিরোধী দলের পরিচয় যদি দিতেন, তাহলে এদেশকে জবরদস্তি লীগ মেঘা প্রজেক্টের পতাকা ঝুলিয়ে শ্রীলঙ্কা বানাতে পারতোনা।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন