শুক্রবার, ১৯ আগস্ট ২০২২, ০৪ ভাদ্র ১৪২৯, ২০ মুহাররম ১৪৪৪

মহানগর

খালেদা জিয়ার কিছু হলে দায় সরকারকেই নিতে হবে : মির্জা ফখরুল

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১২ জুন, ২০২২, ৬:৩৬ পিএম | আপডেট : ৮:২৭ পিএম, ১২ জুন, ২০২২

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার কিছু হলে তার দায়-দায়িত্ব সরকারকে নিতে হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, আমরা বারবার আবেদন করেছি, অনুরোধ করেছি, কর্মসূচি দিয়েছি, আন্দোলন করেছি।

তিনি বলেন, আমরা সোজা কথায় বলতে চাই- গতকাল ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সরকার কোনো দায় নেবে না- সরকারকে দায় নিতে হবে। আজ আল্লাহ না করুক দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার যদি কোনো অঘটন ঘটে, তাহলে এই দেশের মানুষ আপনাদের ক্ষমা করবে না। টেনে-হিঁচড়ে আপনাদের ক্ষমতা থেকে নামিয়ে দেবে। আজ (রবিবার) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ঢাকা মহানগর উত্তর-দক্ষিণ বিএনপি আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে এসব কথা বলেন তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, খালেদা জিয়া গুরুতর অসুস্থ, তার জন্য উন্নত চিকিৎসা, উন্নত মেডিকেল সেন্টার দরকার এবং সেটা আমাদের দেশে নেই। তাই আমাদের চিকিৎসকরা বলছেন ওনার উন্নত ট্রিটমেন্ট দরকার, উন্নত মেডিকেল সেন্টারে নিয়ে যাওয়া দরকার, যা বিদেশে আছে। সরকারকে উদ্দেশ্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, আমাদের শেষ কথা- অবিলম্বে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিয়ে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠান। অন্যথায় তার সমস্ত দায়-দায়িত্ব আপনাদের নিতে হবে। অবিলম্বে পদত্যাগ করুন, কারণ আপনারা এদেশের মানুষের সমস্যার সমাধান করতে ব্যর্থ হয়েছেন। শুধু লুটেপুটে নেওয়ার জন্য কর্মকাণ্ড পরিচালনা করছেন।

জীবনে কারও কাছে কখনও মাথানত করিনি- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এমন বক্তব্যের সমালোচনায় বিএনপি মহাসচিব বলেন, স্বৈরাচার এরশাদ যখন ক্ষমতা দখল করে ৮২ সালে, তখন তিনি বলেছিলেন- ‘উই আর নট আনহ্যাপি’- আমরা অখুশি নই। আবার এক-এগারোর অবৈধ সরকারের সময় যখন ফখরুদ্দিন-মইনউদ্দিন রাষ্ট্রক্ষমতা দখল করেছিল, তখন বিমানবন্দরে আপনি ঘোষণা দিয়েছিলেন এই সেনা সমর্থিত অবৈধ সরকারের সমস্ত কার্যক্রম আপনি বৈধ করে দেবেন। আমাদের মেমোরি এখনো এত ‘শর্ট’ হয়নি। এজন্য আমরা বলি, আপনি বরাবরই আঁতাত করে ক্ষমতায় এসেছেন, আপনারা বরাবরই ওই শক্তির সঙ্গে আঁতাত করেছেন যারা বাংলাদেশের বিরুদ্ধে অবস্থান করে, গণতন্ত্রকে ধ্বংস করে।

গণতন্ত্র ও মৌলিক অধিকার রক্ষা করতে এই সরকারকে পদত্যাগ করতে হবে মন্তব্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, নিরপেক্ষ নির্দলীয় সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করতে হবে, সংসদ বাতিল করতে হবে। নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন করে তাদের মাধ্যমে একটি নতুন নির্বাচন আয়োজন করতে হবে, যেখানে জনগণ তাদের পছন্দমতো মানুষদের নির্বাচিত করবেন। পছন্দমতো পার্টি নির্বাচন করে সংসদ গঠন করবেন। এর বাইরে কোনো কিছুই মেনে নিতে এদেশের মানুষ প্রস্তুত নয়, মানবে না।

সাবেক এই প্রতিমন্ত্রী বলেন, এখনও সময় আছে, এখনও বাঁচতে পারবেন, সময় আছে কিছুটা রক্ষা পেতে পারেন। এরপর আর পালাবার সময় পাবেন না। পরিষ্কার করে বলতে চাই সমস্ত রাজনৈতিক দল, রাজনৈতিক সংগঠনগুলো ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে। দেশের সব মানুষ ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে, যে দুর্বার গণআন্দোলন শুরু হবে তার মাধ্যমে এ সরকারের পতন ঘটিয়ে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা হবে। ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির আহ্বায়ক আমান উল্লাহ আমানের সভাপতিত্বে বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব মাহবুব উদ্দিন খোকন প্রমুখ।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন