সোমবার, ১৫ আগস্ট ২০২২, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৬ মুহাররম ১৪৪৪

জাতীয় সংবাদ

গৃহযুদ্ধে রূপ নিচ্ছে ইউক্রেন

দলে দলে যোগ দিচ্ছেন বিচ্ছিন্নতাবাদীরা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৭ জুন, ২০২২, ১২:০০ এএম

কিয়েভে পৌঁছেছেন ইউরোপীয় নেতারা : ইউক্রেনে রুশ বাহিনীর হাতে এবার দুই মার্কিন যোদ্ধা আটক : ডনবাসে প্রতিদিন ১ হাজার ইউক্রেনীয় সৈন্য হতাহত হচ্ছে : যুক্তরাষ্ট্রের আদেশে মস্কোর সাথে আলোচনা বন্ধ করেছে কিয়েভ : রাশিয়ার প্রতি সমর্থন পুনর্ব্যক্ত করেলেন চীনের প্রেসিডেন্ট
ইউক্রেনে কিয়েভের সেনাদের সাথে মূলত লড়াই করছে রাশিয়ান-সমর্থিত বিচ্ছিন্নতাবাদীরা। যুদ্ধক্ষেত্রে তারাই বেশি হতাহত হচ্ছে। ২৪ ফেব্রæয়ারি যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে মস্কো রুশ সেনাদের খুব একটা নিয়োগ করেনি। তারা ডোনেৎস্ক এবং লুহানস্ক পিপলস রিপাবলিকের বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সমর্থন দিয়ে আসছে। ফলে লড়াই হচ্ছে মূলত ইউক্রেনের সেনাদের সাথে তাদের দেশেরই লোকেদের। ফলে এটি অনেকটা গৃহযুদ্ধের আকার ধারণ করছে।

প্রকাশিত বিভিন্ন ভিডিওতে দেখা গেছে, ডোনেৎস্ক এবং লুহানস্কের বিচ্ছিন্নতাবাদীরা দলে দলে যুদ্ধে অংশগ্রহণ করছে। তাদের অনেকেরই প্রশিক্ষণ এবং অস্ত্রের অভাব রয়েছে। ‘এখানকার ৯০ শতাংশেরও বেশি লোক মোটেও যুদ্ধ করেনি, তারা প্রথমবার একটি কালাশনিকভ দেখেছিল,’ ডোনেৎস্ক ইউনিটের একজন নেতা বলেছেন, তারপরেও তারা যুদ্ধে যোগ দিচ্ছে। যুদ্ধ শুরু হওয়ার আগে ডোনেটস্কে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সেনাবাহিনীর আকার ২০ হাজার বলে অনুমান করা হয়েছিল। তবে লুহানস্কের বিচ্ছিন্নতাবাদী কর্তৃপক্ষ এখনও পর্যন্ত কোনো পরিসংখ্যান প্রকাশ করেনি। পূর্ব ডনবাস অঞ্চল, যা ডোনেৎস্ক এবং লুহানস্ক দ্বারা গঠিত, রাশিয়া কিয়েভ অঞ্চল থেকে তার বাহিনী প্রত্যাহার করার পর থেকে সবচেয়ে ভারী লড়াই বহন করেছে। কিয়েভ বলেছে যে, তারা প্রতিদিন অন্তত ২০০ সৈন্য হারাচ্ছে।

একটি সম্ভাব্য সংযুক্তির ফলে ইউক্রেন তার ভুখন্ডেরর ২০ শতাংশ হারাতে পারে - যার মধ্যে ডোনেৎস্ক এবং লুহানস্কের সেই অংশগুলি রয়েছে যা গত আট বছর ধরে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের দখলে রয়েছে, সেইসাথে জাপোরিঝিয়া এবং খেরসনের অংশগুলি যা রাশিয়ান সৈন্যরা প্রথম মাসে দখল করেছিল। প্রবাসে থাকা মারিউপোলের মেয়রের উপদেষ্টা পেট্রো আন্দ্রিউশচেঙ্কো গত সপ্তাহে বলেছিলেন যে, বিচ্ছিন্নতাবাদী-নিয়ন্ত্রিত ডোনেৎস্ক ইতিমধ্যে রাশিয়ার আর্থিক ও আইনি ব্যবস্থায় চলা শুরু করেছে। এই সপ্তাহের শুরুর দিকে, খেরসনে রাশিয়ান কর্তৃপক্ষ স্থানীয় ব্যবসা এবং ব্যক্তিদের ইউক্রেনীয় সরকারের পরিবর্তে স্থানীয়ভাবে কর প্রদানের নির্দেশ দিয়েছে। স্থানীয় স্ব-নিযুক্ত গভর্নর গত সপ্তাহে বলেছিলেন যে, স্থানীয় বাসিন্দাদের ‘সম্ভবত’ ইউক্রেনীয় ব্যাঙ্কগুলোতে ঋণ এবং বন্ধক পরিশোধ করতে হবে না।

কিয়েভে পৌঁছেছেন ইউরোপীয় নেতারা : ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁ, জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ স্কোলজ এবং ইতালির প্রধানমন্ত্রী মারিও ড্রাঘি ইউক্রেন সফরে গিয়েছেন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র যুদ্ধরত ইউক্রেনীয় বাহিনীর জন্য ১০০ কোটি ডলার মূল্যের নতুন অস্ত্র ঘোষণার একদিন পর বৃহস্পতিবার তারা কিয়েভে পৌঁছেছেন। এএফপির একটি ভিডিও অনুসারে, তিন নেতা সকালে ট্রেনে পোল্যান্ড ত্যাগ করেন।

কেন তিনি ইউক্রেনে এসেছেন এমন একজন সাংবাদিক জানতে চাইলে, ম্যাখোঁ বলেন, ‘ইউরোপীয় ঐক্যের বার্তার জন্য।’ ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির উপদেষ্টা ওলেক্সি আরেস্টোভিচ এই সপ্তাহে জার্মান সংবাদপত্র বিল্ডকে বলেছেন যে, তিনি উদ্বিগ্ন যে তিন নেতা পুতিনের অনুক‚ল একটি শান্তি চুক্তি মেনে নিতে কিয়েভের উপর চাপ দেবেন। ‘তারা বলবে যে, আমাদের সেই যুদ্ধের অবসান ঘটাতে হবে যা খাদ্য সমস্যা এবং অর্থনৈতিক সমস্যা সৃষ্টি করছে ... যে আমাদের পুতিনের মুখ বাঁচাতে হবে,’ তিনি এই মাসে ম্যাখোঁর মন্তব্যের কথা উল্লেখ করেন যেখানে তিনি বলেছিলেন যে, রাশিয়ানদের অপমান না করা গুরুত্বপূর্ণ ছিল।

ইউক্রেনে রুশ বাহিনীর হাতে দুই মার্কিন যোদ্ধা আটক : ইউক্রেনে রাশিয়ান বাহিনীর সাথে লড়াইয়ের সময় দুই সাবেক মার্কিন সেনাকে আটক করা হয়েছে। তাদের সহকর্মীরা জানিয়েছেন, গত সপ্তাহে উত্তর-পূর্ব শহর খারকিভের বাইরে একটি ভয়াবহ যুদ্ধের সময় ওই দু’জনকে বন্দী করা হয়েছিল। আলেকজান্ডার ড্রুক (৩৯) এবং অ্যান্ডি হুইন (২৭) ওই দুই সেনা নিয়মিত ইউক্রেনীয় সেনা ইউনিটের সাথে স্বেচ্ছাসেবক হিসাবে কাজ করছিলেন। তারাই প্রথম মার্কিন সেনা যারা রাশিয়ার যুদ্ধবন্দী হয়েছিলেন বলে মনে করা হচ্ছে। তারা রাশিয়ান বাহিনীর হাতে বন্দী ক্রমবর্ধমান সংখ্যক পশ্চিমা সামরিক স্বেচ্ছাসেবকদের সাথে যোগ দেবে, যার মধ্যে তিনজন ব্রিটিশ রয়েছে - এইডেন অ্যাসলিন, শন পিনার এবং অ্যান্ড্রু হিল।

গত সপ্তাহে, ডোনেৎস্ক পিপলস রিপাবলিকের রাশিয়াপন্থী বিচ্ছিন্ন রাজ্যের একটি আদালত অ্যাসলিন এবং পিনারকে ‘ভাড়াটে সেনা’ হিসাবে বিচার করার পরে মৃত্যুদন্ড দিয়েছে। দুই আমেরিকানকে আটক করা হবে ক‚টনৈতিকভাবে সংবেদনশীল, কারণ ক্রেমলিন এটিকে প্রমাণ হিসেবে ব্যবহার করতে চাইতে পারে যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সরাসরি যুদ্ধে জড়িত হচ্ছে। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিন সম্ভবত তাদের মুক্তির বিনিময়ে উল্লেখযোগ্য ছাড় দাবি করবেন।

ডনবাসে প্রতিদিন ১ হাজার ইউক্রেনীয় সৈন্য হতাহত হচ্ছে : ডনবাসে প্রতিদিন ইউক্রেনের সেনাবাহিনীর অন্তত ১ হাজার সদস্য নিহত ও আহত হচ্ছে। ইউক্রেনের ক্ষমতাসীন দলের সংসদীয় দলের প্রধান ডেভিড আরাখামিয়া ওয়াশিংটন সফরের সময় বলেছেন। অ্যাক্সিওস ওয়েব পোর্টাল বুধবার রিপোর্ট করেছে। ওয়েব পোর্টাল অনুসারে, জার্মান মার্শাল ফান্ড দ্বারা আয়োজিত একটি গোলটেবিল বৈঠকে তিনি উল্লেখ করেছেন যে, গড়ে প্রতিদিন ২০০ থেকে ৫০০ ইউক্রেনীয় সেনা নিহত হয়। এর আগে বুধবার, জয়েন্ট চিফস অফ স্টাফের চেয়ারম্যান জেনারেল মার্ক মিলি বলেছিলেন যে, ওয়াশিংটনের অনুমান অনুসারে, ইউক্রেনের দৈনিক ক্ষয়ক্ষতি প্রায় ১০০ জন নিহত এবং প্রায় ১০০-৩০০ জন আহত হয়েছে। জুনের শুরুতে, ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি প্রায় ৬০-১০০ সেনা নিহত হিসাবে ক্ষতির মূল্যায়ন করেছিলেন।

আরাখামিয়া যেমন উল্লেখ করেছেন, গত দুই সপ্তাহে এই পরিসংখ্যান উল্লেখযোগ্যভাবে বেড়েছে। তার মতে, ইউক্রেনের কর্তৃপক্ষ আগে ১০ লাখ লোকের খসড়া তৈরি করেছিল এবং আরও ২০ লাখ লোক নিয়োগ করতে পারে। তার মতে, কিয়েভের প্রধান সমস্যা অস্ত্র ও গোলাবারুদের অভাব। তিনি বলেন, ‘আমাদের লোকজনকে আত্মরক্ষা করার, পাল্টা আক্রমণ করার জন্য প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে, কিন্তু এর জন্য আমাদের অস্ত্র দরকার,’ তিনি বলেছিলেন। আরাখামিয়া যিনি মস্কোর সাথে শান্তি আলোচনায় ইউক্রেনের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন, স্বীকার করেছেন যে, কিয়েভের আলোচনার অবস্থান ‘আসলে বেশ দুর্বল।’ ‘সুতরাং, আমরা যদি এই অবস্থানে থাকি তবে আমরা টেবিলে বসতে চাই না। আমাদের এটিকে কোনোভাবে বিপরীত করতে হবে,’ তিনি হারানো অঞ্চলগুলি পুনরুদ্ধারের জন্য কিয়েভের পাল্টা অভিযান শুরু করার আকাঙ্খার উপর জোর দিয়েছিলেন। তিনি বজায় রেখেছিলেন যে, বর্তমান পরিস্থিতি ‘সমঝোতার মাধ্যমে’ নিষ্পত্তি করা যেতে পারে।

কিয়েভ যুক্তরাষ্ট্রের আদেশে মস্কোর সাথে আলোচনা বন্ধ করেছে : রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা বুধবার বলেছেন যে, ইউক্রেন তার মার্কিন প্রভুদের নির্দেশে রাশিয়ার সাথে শান্তি আলোচনা বন্ধ করেছে যখন রাশিয়া চালিয়ে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত ছিল। সেন্ট পিটার্সবার্গ ইন্টারন্যাশনাল ইকোনমিক ফোরামের সাইডলাইনে তিনি বলেন, ‘এই আলোচনা স্থগিত, বাতিল, ভেঙে দেয়া হয়েছিল। তাদের (ইউক্রেন) নিজেদের জন্য বলতে দিন যে, তারা এই আলোচনার সাথে কি করেছে। আমরা এটি খুব ভালো করেই জানি কারণ আমাদের কাছে তথ্য আছে যেটি তাদের আমেরিকান প্রভুদের দেয়া আদেশ ছিল।’

ক‚টনীতিক বলেছিলেন যে, কিয়েভ এখনও দেশের পরিস্থিতি নিষ্পত্তির জন্য ইউক্রেনের প্রস্তাবে রাশিয়ার প্রতিক্রিয়ার প্রতিক্রিয়া জানায়নি। জাখারোভা আরও বলেছিলেন যে, ইউক্রেনই আলোচনা চেয়েছিল এবং রাশিয়া এই প্রস্তাবে সম্মত হয়েছিল। যাইহোক, মুখপাত্র বলেছেন কিয়েভ সরকার পরবর্তীতে আলোচনার জন্য বিভিন্ন শর্ত দিতে শুরু করে। ‘আমরা অনেক কিছু দেখেছি: ভেন্যুটি ভুল, প্রতিনিধি দলের মেকআপ সঠিক নয়, আয়োজক দেশকে আলাদা হতে হবে। সেখানে অনেক ব্যঙ্গ ছিল,’ তিনি বলেন। রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে আলোচনা বর্তমানে স্থগিত রয়েছে।

রাশিয়ার প্রতি সমর্থন পুনর্ব্যক্ত করেলেন চীনের প্রেসিডেন্ট : চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং রাশিয়ার নেতা ভ্লাদিমির পুতিনের সাথে এক ফোন কলে সার্বভৌমত্ব ও নিরাপত্তার ইস্যুতে মস্কোর প্রতি তার দেশের সমর্থন পুনর্ব্যক্ত করেছেন। সরকারি বার্তা সংস্থা সিনহুয়া জানায়, শি বুধবার পুতিনকে বলেছেন, ইউক্রেন সঙ্কটের যথাযথ নিষ্পত্তির জন্য সকল পক্ষকে দায়িত্বশীলভাবে চাপ দিতে হবে। ক্রেমলিন বিবৃতিতে বলেছে যে, পুতিন ‘ইউক্রেনের পরিস্থিতি সম্পর্কে তার মৌলিক মূল্যায়নের রূপরেখা দিয়েছেন’। মস্কোর অফিসিয়াল রিডআউট অনুসারে, শি ‘বহিরাগত শক্তির দ্বারা সৃষ্ট সুরক্ষার চ্যালেঞ্জের মুখে মৌলিক জাতীয় স্বার্থ রক্ষার জন্য রাশিয়ার গৃহীত পদক্ষেপের বৈধতা উল্লেখ করেছেন’। চীন ইউক্রেনে রাশিয়ার অভিযানের সমালোচনা করেনি বা একে ‘আগ্রাসন’ বলে উল্লেখ করেনি বরং ন্যাটো এবং পশ্চিমের বিরুদ্ধে মস্কোকে আক্রমণের জন্য উস্কানি দেয়ার অভিযোগ করেছে। সূত্র : আল-জাজিরা, তাস, দ্য টেলিগ্রাফ, রয়টার্স।

 

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (4)
হামজা ১৭ জুন, ২০২২, ৬:২২ এএম says : 0
এখনই বিশ্ব নেতাদের উচিত যুদ্ধ বন্ধ করা।
Total Reply(0)
আলিফ ১৭ জুন, ২০২২, ৬:২৬ এএম says : 0
এ যুদ্ধের কারণে বিশ্বের বিভিন্ন পণ্যের দাম বেড়ে গেছে । এখনই ইউক্রেন সঙ্কটের যথাযথ নিষ্পত্তির জন্য সকল পক্ষকে দায়িত্বশীলভাবে চাপ দিতে হবে।
Total Reply(0)
হামজা ১৭ জুন, ২০২২, ৬:২৩ এএম says : 0
ইউক্রেন ও রাশিয়ার যুদ্ধ বন্ধ হলে বিশ্বের মাঝে শান্তি ফিরে আসবে। নয়তো বিশ্বের পরিস্থিতি আরো খারাপ হতে পারে
Total Reply(0)
আকিব ১৭ জুন, ২০২২, ৬:৩০ এএম says : 0
এ যুদ্ধ যদি আরো দীর্ঘস্থায়ী হয় তাহলে বিশ্বের পরিস্থিতি আরো খারাপ হবে
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন