শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ১৭ আষাঢ় ১৪২৯, ০১ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

ডুবে গেল বিশ্বের সবচেয়ে বড় ভাসমান রেস্তোরাঁটি

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২১ জুন, ২০২২, ১০:৪১ এএম

তলদেশ দিয়ে হঠাৎ পানি উঠতে থাকায় দ্রুত সময়ের মধ্যে ডুবে গেল হংকংয়ে অবস্থিত জাম্বু নামের বিশ্বের সবচেয়ে বড় ভাসমান রেস্তোরাঁটি। ব্রিটিশ রানী এলিজাবেথ, অভিনেতা টম ক্রুজ এবং রিচার্ড ব্র্যানসনসহ ৩০ লাখের বেশি অতিথি কয়েক বছর ধরে এই ভাসমান রেস্তোরাঁয় ক্যান্টনিজ খাবার খেয়েছেন। রেস্তোরাঁটি ৫০ বছর যাবত হংকংয়ের ল্যান্ডমার্ক হিসেবে পরিচিত হয়ে আসছে।
বন্দর থেকে সরিয়ে নেয়ার সময় দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় এর তলদেশ দিয়ে হঠাৎ পানি উঠতে শুরু করে। এতে দ্রুততম সময়ের মধ্যে ডুবে যায় জাম্বু নামের ভাসমান রেস্তোরাঁটি।
জাম্বুর মালিক সংস্থা অ্যাবারডিন রেস্তোরাঁ এন্টারপ্রাইজেস কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ভাসমান রেস্তোরাঁটি অজ্ঞাত স্থানে সরিয়ে নেয়ার পথে দক্ষিণ চীন সাগরে ডুবে গেছে, তবে তাদের সব ক্রু বা সদস্যদের নিরাপদে সরিয়ে নেয়া গেছে। কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।
দুর্ঘটনাটিকে খুবই দুঃখজনক উল্লেখ করে সংস্থাটি জানিয়েছে, করোনা মহামারির কারণে ২০২০ সালের মার্চ থেকে বন্ধ রয়েছে রেস্তোরাঁটি।
ব্রিটিশ রানী এলিজাবেথ, অভিনেতা টম ক্রুজ এবং রিচার্ড ব্র্যানসনসহ ৩০ লাখের বেশি অতিথি কয়েক বছর ধরে এই ভাসমান রেস্তোরাঁয় ক্যান্টনিজ খাবার খেয়েছেন।
বন্ড মুভিসহ বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্রে প্রদর্শিত হয়েছিল এটি, তবে মহামারিতে বিশ্বজুড়ে পর্যটকের সংখ্যায় ধস নামায় এর ব্যবসায় বড় ধরনের ধাক্কা লাগে।
নতুন অপারেটরের অপেক্ষায় জাহাজটি একটি অজ্ঞাত স্থানের পথে যাত্রা করছিল। রোববার প্যারাসেল দ্বীপপুঞ্জের কাছে প্রতিকূল আবহাওয়ার মুখে পড়ে ডুবে যায়। তলদেশ ফেটে পানি ঢুকতে শুরু করে যানটিতে, জানিয়েছে অ্যাবারডিন রেস্টুরেন্ট এন্টারপ্রাইজ। ঘটনাস্থলে পানির গভীরতা এক হাজার মিটারের বেশি, এতে উদ্ধার অভিযান অত্যন্ত কঠিন করে তুলেছে।
প্রসঙ্গত, বহু স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্রে এ রেস্তোরাঁটি প্রদর্শিত হয়েছে, যে কারণে এটি পুরো বিশ্বের মানুষের কাছে আকর্ষণীয় স্থান দাঁড়িয়েছে। জাম্বো কিংডম বাইরে থেকেই কেবলমাত্র প্রাসাদসম নয়, এর ভেতরকার সাজসজ্জাও যথেষ্ট রাজকীয়। রেস্তোরাঁটির নির্মাণশৈলী চীনের বিখ্যাত প্রাসাদ 'ফরবিডেন সিটি' থেকে অনুপ্রাণিত। জাম্বো কিংডম তৈরির পূর্বে এমন জাঁকজমকপূর্ণ ভাসমান রেস্তোরা তৈরির চিন্তা কারো মাথায় আসেনি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Google Apps