মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২, ১৪ আষাঢ় ১৪২৯, ২৭ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

ঈদে চলবে ছয়টি বিশেষ ট্রেন

টিকিট কাটার নতুন মোবাইল অ্যাপ চালু

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৩ জুন, ২০২২, ১২:০১ এএম

ঈদুল আজহা উপলক্ষে আগামী ১ জুলাই থেকে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হবে। এবার ৬টি বিশেষ ট্রেন পরিচালনা করা হবে। তা ছাড়া টিকিটপ্রত্যাশীদের দুর্ভোগ কমাতে এবার সাতটি স্থানে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি করা হবে। গতকাল রেলভবনে ঈদুল আজহা উপলক্ষে অগ্রিম টিকিট বিক্রি বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব জানান রেলমন্ত্রী। তবে পদ্মা সেতু চালু হওয়ার কারণে খুলনা স্পেশাল ট্রেন এবার বাতিল করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। রেলমন্ত্রী বলেন, ট্রেনের মোট টিকিটের অর্ধেক কাউন্টারে এবং অর্ধেক রেলের ওয়েবসাইট ও রেল সেবা অ্যাপের মাধ্যমে দেয়া হবে। টিকিট কাটতে হলে জাতীয় পরিচয়পত্র থাকতে হবে। রেল সেবা অ্যাপেও রেজিস্ট্রেশন করতে জাতীয় পরিচয়পত্র লাগবে। ঈদের অগ্রিম টিকিট ফেরত নেয়া হবে না। স্পেশাল ট্রেনের টিকিট অনলাইনে পাওয়া যাবে না, শুধু স্টেশনে পাওয়া যাবে। টিকিট কালোবাজারি বন্ধ করতে চাই, তাই টিকিট যার ভ্রমণ তারা নিশ্চিত করতে চাই। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, আগামী ১০ জুলাই সম্ভাব্য ঈদ ধরে ১ জুলাই দেয়া হবে ৫ জুলাইয়ের অগ্রিম টিকিট। ২ জুলাই দেয়া হবে ৬ জুলাইয়ের টিকিট। ৩ জুলাই দেয়া হবে ৭ জুলাইয়ের টিকিট। ৪ জুলাই দেয়া হবে ৮ জুলাইয়ের টিকিট। ৫ জুলাই দেয়া হবে ৯ জুলাইয়ের টিকিট। এদিকে ঈদযাত্রার ফিরতি টিকিট দেয়া শুরু হবে ৭ জুলাই থেকে। এই দিন দেয়া হবে ১১ জুলাইয়ের অগ্রিম টিকিট।

এবার কমলাপুর রেল স্টেশনে যাত্রীর চাপ কমানোর লক্ষ্যে ঢাকা শহরের ৬টি স্টেশন ও জয়দেবপুর রেলস্টেশনে একটিসহ মোট সাতটি কেন্দ্র থেকে অগ্রিম টিকিট বিক্রি করা হবে। এর মধ্যে রয়েছে কমলাপুর স্টেশন, কমলাপুর শহরতলির প্ল্যাটফর্ম, ঢাকা বিমানবন্দর, তেজগাঁও, ফুলবাড়িয়া, ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট স্টেশনের পাশাপাশি জয়দেবপুর স্টেশনেও টিকিট বিক্রি করা হবে। এবার ঈদে ৬টি বিশেষ ট্রেন চালানো হবে, এর মধ্যে চাঁদপুর স্পেশাল দুই জোড়া, দেওয়ানগঞ্জ স্পেশাল এক জোড়া, শোলাকিয়া স্পেশাল দুই জোড়া এই পাঁচ জোড়া চলবে। পঞ্চগড় স্পেশাল এক জোড়া। সকাল ৮টা থেকে স্টেশনের কাউন্টারে এবং অনলাইনে ও মোবাইল অ্যাপসে টিকিট বিক্রি হবে। ঢাকা স্টেশনের ২৩ কাউন্টার খোলা রাখা হবে মহিলা ও প্রতিবন্ধীদের জন্য একটি কাউন্টার থাকবে। ট্রেন চলাচলের সুবিধার্থে ঈদের তিন দিন পূর্বে কন্টেইনার, জ্বালানি তেলবাহী ও পণ্যবাহী ট্রেন চলাচল করবে না। ঈদ যাত্রা শুরুর দিন থেকে ঈদের পাঁচ দিন পর্যন্ত ঢাকা বিমানবন্দর স্টেশন থেকে ঢাকাগামী কোন ট্রেনের টিকিট ইস্যু করা হবে না। এদিকে ৬ জুলাই থেকে ৯ জুলাই পর্যন্ত ঢাকাগামী একতা, দ্রুতযান, পঞ্চগড়, নীলসাগর, কুড়িগ্রাম, লালমনি ও রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনসমূহ ঢাকা বিমানবন্দর স্টেশনে যাত্রাবিরতি থাকবে না। ফলে যাত্রীদের কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে উঠতে হবে।
এদিকে, ট্রেনের টিকিট কাটার নতুন মোবাইল অ্যাপ চালু করা হয়েছে। এখন থেকে রেল যাত্রীরা রেলওয়ের ই-টিকিট ওয়েবসাইটের পাশাপাশি রেলসেবা অ্যাপ ব্যবহার করে ট্রেনে টিকিট কাটতে পারবেন। বাংলাদেশ রেলওয়ের নতুন মোবাইল ফোন অ্যাপ রেলসেবা তৈরি ও ব্যবস্থাপনার কাজ করেছে রেলওয়ের টিকেটিং পার্টনার সহজ সিনেসিস ভিনসেন জেভি। গতকাল রেল ভবনে অ্যাপটি উদ্বোধন করেন রেলমন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন।
এ সময় রেলমন্ত্রী বলেন, ট্রেনে টিকিট কাটার জন্য মোবাইল অ্যাপ এখন যুগের দাবি। তথ্য প্রযুক্তির এই সময়ে এই অ্যাপটি খুবই দরকার ছিলো। গত ঈদের সময়ই এটা করা দরকার ছিলো কিন্তু আমরা করতে পারিনি। তাই অনেক কথা শুনতে হয়েছে। আমরা রেলকে শীঘ্রই তথ্য প্রযুক্তি ভিত্তিক সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে পরিবর্তন আনতে পারবো। গত ঈদে এই অ্যাপ চালু করতে পারেনি। সহজ দায়িত্ব নেয়ার খুব কম সময়ের মধ্যে অ্যাপটি চালু করেছে। যাত্রীদের বেশ চাহিদা ছিল। ঈদের আগেই আমরা অ্যাপটি চালু করে দিয়েছি। এখন দেখা যাক কতটা ভালো সার্ভিস দিতে পারে তারা।
ঈদের টিকিট এক সপ্তাহ আগে না দিয়ে ১ থেকে ২ মাস আগে বিক্রি করা হলে সমস্যা হতো না এমন এক প্রশ্নের জবাবে রেলমন্ত্রী বলেন, আমাদের রেলের সক্ষমতা নেই। টিকেটসহ রেলের আরও অনেক সার্ভিস দেয়ার ক্ষেত্রে রেলের সক্ষমতা নেই বলে তিনি জানান।
নতুন রেলসেবা অ্যাপটি বর্তমানে গুগল প্লে-স্টোরে পাওয়া যাচ্ছে। টিকিট কাটার জন্য যাত্রীদের অ্যাপটি ডাউনলোড করে নিজের নাম, মোবাইল ফোন নম্বর, ই-মেইল অ্যাড্রেস, জাতীয় পরিচয়পত্র/জন্মনিবন্ধন নম্বর ইত্যাদি তথ্য দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। তবে কোনো যাত্রী যদি ইতিমধ্যে বাংলাদেশ রেলওয়ের ই-টিকিট ওয়েবসাইটে রেজিস্ট্রার করে থাকেন, তাহলে তাকে আর দ্বিতীয়বার রেজিস্ট্রেশন করতে হবে না। শুধু মোবাইল নম্বর ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করলেই হবে।
এই রেলসেবা অ্যাপ ব্যবহার করে টিকিট কাটার জন্য যাত্রীকে তার পছন্দ অনুযায়ী যাত্রা শুরুর স্টেশন, গন্তব্য স্টেশন, পছন্দ অনুযায়ী ট্রেনের ক্লাস ও যাত্রার তারিখ সিলেক্ট করতে হবে। একই সঙ্গে ট্রেন ডিটেইলস থেকে সহজেই ট্রেনের বিস্তারিত তথ্য দেখতে পারবে। তারপর এভাইলেবল ট্রেন থেকে পছন্দমতো বগি ও সিট সিলেক্ট করে অনলাইন পেমেন্টের (ডেবিট/ক্রেডিট কার্ড অথবা এমএফএস) মাধ্যমে টিকিট কেটে ফেলতে পারবেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Google Apps