বৃহস্পিতবার, ১৮ আগস্ট ২০২২, ০৩ ভাদ্র ১৪২৯, ১৯ মুহাররম ১৪৪৪

সারা বাংলার খবর

সুনামগঞ্জে প্রতিদিন ৫ হাজার মানুষ পাচ্ছে রান্না করা খাবার

সাবেক মেয়র মনজুর আলমের উদ্যোগ

চট্টগ্রাম ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২৬ জুন, ২০২২, ১২:০০ এএম

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র এম মনজুর আলমের উদ্যোগে আলহাজ মোস্তফা-হাকিম ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন ও আলহাজ হোসনে আরা মনজুর ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনায় তার তত্ত্বাবধানে প্রতিদিন বন্যা কবলিত সুনামগঞ্জের বিভিন্ন ইউনিয়নে পাঁচ হাজার মানুষকে রান্না করা খাবার বিতরণ করা হচ্ছে। নিজস্ব বাবুর্চি দ্বারা রান্না করা এসব খাবার নৌকায় করে বানভাসি মানুষের ঘরে ঘরে বিতরণ করা হচ্ছে। গত শুক্রবার থেকে শুরু হয়েছে এ ত্রাণ তৎপরতা। সদর উপজেলার মোহনপুর, কাঠাইর, মোল্লা পাড়া ও লক্ষ্মণছড়ি ইউনিয়নে গত দুইদিন খাবার বিতরণ করা হয়। এই কার্যক্রম চলবে আগামী ৭ দিন পর্যন্ত। এই কার্যক্রমে সার্বিক সহযোগিতা করছেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনী সুনামগঞ্জ ইউনিট ও বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যানবৃন্দ। একই সাথে দুর্গম এলাকায় সহজে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে খাবার ও ত্রাণ পৌঁছে দেয়ার জন্য আধুনিক মানের ৩০ জন ধারণক্ষমতা সম্পন্ন দু’টি স্পীডবোট সুনামগঞ্জ সেনাবাহিনীর নিকট হস্তান্তর করা হয়। এদিকে গত সপ্তাহে বন্যার শুরুতেই সিলেটে ও হরিপুরে বানভাসি মানুষের মাঝে ত্রাণ সামগ্রি বিতরণ করেন মনজুর আলম। বানভাসি অসহায় দুই হাজার পরিবারের মাঝে চাল, ডাল, চিড়া, চিনি, সয়াবিন তেল, বিস্কুট, পাউরুটি, খাবার স্যালাইন, মোমবাতি ম্যাচসহ নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী বিতরণ করা হয়। এ বিষয়ে মনজুর আলম বলেন, আমরা সব সময় মানুষের পাশে থাকি। মানুষের কল্যাণে কাজ করি। প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে শুরু করে মানবতার কল্যাণে আমরা সবসময় নিবেদিত থাকি। সকল প্রাকৃতিক দুর্যোগে অসহায় দরিদ্র মানুষের পাশে থেকে আমাদের সেবা কার্যক্রম পরিচালনা করছি। এরই ধারাবাহিকতায় সুনামগঞ্জের বন্যার্ত মানুষের জন্য আমাদের এই উদ্যোগ।
মনজুর আলমের পক্ষে সুনামগঞ্জ বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ইউনিটকে দু’টি স্পীড বোট হস্তান্তর করেন মোস্তফা হাকিম কলেজের সাবেক ভাইস প্রিন্সিপাল বাদশা আলম ও মোস্তফা হাকিম গ্রুপের কর্মকর্তাবৃন্দ। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার মোহনপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, মঈনুল হক, কাঠাইর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. শামসুল আলম, লক্ষ্মণছড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. নাজিম উদ্দিন, নুরুল ইসলাম প্রমুখ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন