সোমবার, ০৮ আগস্ট ২০২২, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৯, ০৯ মুহাররম ১৪৪৪ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

একনাথকে শিবসেনা থেকে অপসারণ করলেন ঠাকরে

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩ জুলাই, ২০২২, ১২:০৫ এএম

ভারতের মহারাষ্ট্র বিধানসভায় আস্থা ভোটের আগে আবারও চমক দেখা গেল। মহারাষ্ট্রের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে এক বিবৃতিতে বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী একনাথ শিন্ধেকে শিবসেনার সংগঠনের সব পদ থেকে অপসারণের কথা জানিয়েছেন। শিবসেনার পক্ষ থেকে জারি করা চিঠিতে বলা হয়েছে, ঠাকরে বলেছেন- শিন্ধে দলবিরোধী কার্যকলাপে জড়িত। তিনি স্বেচ্ছায় দলের সদস্যপদ ছেড়েছেন বলে জানানো হয়েছে শিবসেনার পক্ষ থেকে। উদ্ধব ঠাকরের চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে, একনাথ শিন্ধেকে শিবসেনার সব পদ থেকে অপসারণ করা হয়েছে। শিবসেনার পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে তার ওপরে যাবতীয় ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে বলেও জানিয়েছেন উদ্ধব ঠাকরে। সুপ্রিম কোর্ট আস্থা ভোটে স্থগিতাদেশ দিতে না চাওয়ায় ২৯ জুন রাতে উদ্ধব ঠাকরে মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে ইস্তফা দেন। এরপর ৩০ জুন সন্ধ্যায় মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নেন শিবসেনার বিদ্রোহী বিধায়ক একনাথ শিন্ধে। শিবসেনার বেশির ভাগ বিধায়ক উদ্ধব ঠাকরের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করেছেন। অন্যদিকে লোকসভায় শিবসেনার অনেক সদস্যই বিদ্রোহীদের পক্ষ নিয়েছেন। প্রসঙ্গত বিধানসভায় শিবসেনার ৫৫ জন এবং লোকসভায় ১৯ জন সদস্য রয়েছেন। রাজ্যসভায় শিবসেনার সদস্যসংখ্যা ৩ জন। গত ২১ জুন মহারাষ্ট্র বিধান পরিষদের ফল ঘোষণা করা হয়। পর্যাপ্ত বিধায়ক থাকলেও একটি আসন কম পায় শিবসেনা। কার্যত তারপরেই মহারাষ্ট্রে রাজনৈতিক সংকট শুরু হয়। প্রথমে একনাথ শিন্ধে ১৫ জন বিধায়ককে নিয়ে সুরাট চলে যান। তারপর সেখান থেকে আসাম। এর পরেই আস্তে আস্তে তার শিবিরে বিদ্রোহী বিধায়ক ও মন্ত্রীর সংখ্যা বাড়তে থাকে। একনাথের দাবি অনুসারে শিবসেনায় বিদ্রোহী বিধায়ক ৪০ পেরিয়ে যায়। সংকট আরো বাড়তে থাকে। বিদ্রোহীদের শিবিরে যোগ দেন অনেক নির্দলীয় বিধায়কও। একনাথের পাশাপাশি বিজেপির পক্ষ থেকে দেবেন্দ্র ফড়নবিশ রাজ্যপালকে চিঠি দিয়ে আস্থা ভোটের দাবি করেন। রাজ্যপাল আস্থা ভোটের নির্দেশ দিলে, তার বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করেন উদ্ধব ঠাকরে। এনডিটিভি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন