শুক্রবার, ১২ আগস্ট ২০২২, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৩ মুহাররম ১৪৪৪

সারা বাংলার খবর

বিদ্যুৎ ঘাটতি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে জাতি হতাশ

বিভিন্ন ইসলামী দলের নেতৃবৃন্দ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৬ জুলাই, ২০২২, ৮:২৫ পিএম

সারাদেশে ভয়াবহ লোডশেডিং জনজীবন চরম দুর্বিষহ করে তুলেছে। বিদ্যুৎখাতে সরকারের ব্যর্থতা স্পষ্ট। রাষ্ট্রীয় অর্থ তছরুপের জন্য পুরো বিদ্যুৎখাতে চলছে অরাজকতা। পিডিবির সূত্রমতে সারাদেশে গত সোমবার ১৪০০ মেগাওয়াট লোডশেডিং হয়েছে। বিদ্যুৎ সরবারাহের ঘাটতি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য জাতি হতাশ। বিদ্যুতের সংকটের দরুণ দেশের হিমাগারগুলোর মজুতকৃত খাদ্যপণ্যের মান নষ্ট হচ্ছে। বার বার বিদুতের দাম বাড়ানোর চক্রান্ত দেশবাসী রুখে দাড়াবে। বিদ্যুতের ভয়াবহ সঙ্কটে আজ বুধবার বিভিন্ন ইসলামী দলের নেতৃবৃন্দ গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে পৃথক পৃথক বিবৃতিতে এসব কথা বলেন।

ইসলামী আন্দোলন ঢাকা মহানগর : ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সভাপতি মাওলানা মুহাম্মদ ইমতিয়াজ আলম বলেছেন, সারাদেশে ভয়াবহ লোডশেডিং জনজীবন চরম দুর্বিষহ করে তুলেছে। সরকার বলছে ১০০ ভাগ বিদ্যুৎয়ায়ন করা হয়েছে। এখন দেখি সারাদেশে লোডশেডিংয়ে জনগণ চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে। এভাবে প্রতারণার কোন মানে হয় না। সরকার দলীয় নেতাকর্মীদের ভয়াবহ দুর্নীতির কারণে আজ সর্বক্ষেত্রে এক ভয়াবহ অবস্থা বিরাজ করছে। এরমধ্যে কয়েক দফা বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয়েছে। এখন আবার বিদুত্যের দাম বাড়ানোর কথা শোনা যাচ্ছে। শতভাগ বিদ্যুৎ নিশ্চিত না করে বার বার বিদুতের দাম বাড়ানোর চক্রান্ত দেশবাসী রুখে দাঁড়াবে।

বুধবার এক বিবৃতিতে মাওলানা ইমতিয়াজ আলম এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী লোডশেডিং এর জন্য আলোকস্বজ্জা বন্ধের কথা বলেছেন। কিন্তু তিনি দুর্নীতি বন্ধের কথা বলেননি। দুর্নীতি ও বিদেশে টাকা পাঁচার বন্ধ করতে পারলে লোডশেডিং থাকবে না।

ইসলামী ঐক্যজোট : ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ নেজামে ইসলাম পার্টির সভাপতি অ্যাডভোকেট মাওলানা আব্দুর রকিব ও মহাসচিব মাওলানা আব্দুল করিম খাঁন বিদ্যুত সঙ্কট চরম আকার ধারণ করায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, দেশের জ্বালানী খাতে প্রাকৃতিক সম্পদ গ্যাস ব্যবহার করা হয়েছে অথচ বিদ্যুৎ উৎপাদন সরকার নিয়ন্ত্রণ করে সারা দেশে জনদুর্ভোগ বৃদ্ধি পয়েছে। নেতৃদ্বয় দেশের জাতীয় স্বার্থে অনতিবিলম্বে বিদ্যুৎ ঘাটতি নিরসনের লক্ষ্যে বাস্তবমুখী উদ্যোগ নেয়ার জোর দাবি জানান। দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদনে নিয়োজিত বেসরকার প্রতিষ্ঠানের স্বার্থে অহেতুক বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির ষড়যন্ত্রে উৎপাদনের হার ইচ্ছা করে কমানো হয়েছে। তারা বলেন, বিদ্যুৎ সঙ্কট অব্যাহত থাকলে দেশের স্কুল ও কলেজ মাদরাসা, হাসপাতাল ব্যবসা বানিজ্য প্রত্যেক বিভাগেই মহাসঙ্কট দেখা দিবে। এইজন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ বিদ্যুৎ উৎপাদনের ব্যবস্থা করতে হবে। অন্যথায় দেশের উন্নয়নের অগ্রযাত্রা চরমভাবে বিঘ্নিত হবে।

বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন : বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগরীর আমির মাওলানা মুহাম্মদ হোসাইন আকন্দ এক বিবৃতিতে বলেন,সরকার ঘরে ঘরে বিদ্যুতের আলো ছড়িয়েছে। কিন্ত ঘন ঘন বিদ্যুৎ বিভ্রাটে জনজীবনে চরম বিপর্যয় নেমে এসেছে। বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছে। অথচ বিদ্যুতের ঘাটতি পূরণ না করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ রয়েছে। ভয়াবহ লোডশেডিং বেড়েই চলছে । সাধারণ মানুষের ভোগান্তি পোহাতে হয়। বিদেশ থেকে বিদ্যুত আমদানির নামে জাতিকে প্রতারণার ফাঁদে ফেলে দেয়া হচ্ছে। তিনি অনতিবিলম্বে লোডশেডিং সঙ্কট নিরসনে বাস্তবমুখী উদ্যোগে নেয়ার জোর দাবি জানান।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন