সোমবার, ০৮ আগস্ট ২০২২, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৯, ০৯ মুহাররম ১৪৪৪ হিজরী

খেলাধুলা

নতুন ইংল্যান্ড সাহসীও

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৭ জুলাই, ২০২২, ১২:০১ এএম

টেস্টে এখন ইংল্যান্ডের বিপক্ষে কোনো পুঁজিই যেন নিরাপদ নয় প্রতিপক্ষের জন্য! তিনশর কাছাকাছি কিংবা বেশি রানের লক্ষ্য ইংলিশরা সফলভাবে তাড়া করে ফেলে অনায়াসে। নিজেদের সর্বোচ্চ রান তাড়ার রেকর্ড গড়ে এজবাস্টনে ভারতের বিপক্ষে জয়ের পর অধিনায়ক বেন স্টোকস বললেন, তারা টেস্ট ক্রিকেটকে নতুন জীবন দিতে চান। রেখে যেতে চান তাদের নির্ভীক ক্রিকেটের ছাপ।
৩৭৮ রানের লক্ষ্য তাড়ায় জো রুট ও জনি বেয়ারস্টোর অপরাজিত সেঞ্চুরিতে সিরিজের পঞ্চম টেস্ট গতপরশু শেষ দিনে ইংল্যান্ড জিতে নেয় ৭ উইকেটে, দুই সেশন বাকি থাকতে। গত বছর ম্যানচেস্টারে স্থগিত হওয়া পঞ্চম ম্যাচটিই এবার নতুন সূচিতে হলো এজবাস্টনে। পাঁচ ম্যাচের সিরিজ শেষ হলো ২-২ সমতায়।
আগের সিরিজে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ইংল্যান্ড টানা তিন টেস্ট জেতে ২৭৭, ২৯৯ ও ২৯৬ রানের লক্ষ্য তাড়া করে। টানা চার ম্যাচে চতুর্থ ইনিংসে আড়াইশর বেশি রান তাড়া করে জেতা টেস্ট ইতিহাসের প্রথম দল তারাই। কিউইদের বিপক্ষে ট্রেন্ট ব্রিজে ২৯৯ রানের লক্ষ্য তাড়ায় ইংল্যান্ড ৫ উইকেটে জিতেছিল ৫০ ওভারে, ওভারপ্রতি রান ৫.৯৮! লিডসে ২৯৬ রানের লক্ষ্য তারা ছুঁয়ে ফেলে ওভারপ্রতি ৫.৪৪ করে রান তুলে। ভারতের বিপক্ষে ৩৭৮ রান তাড়ায় জয় ধরা দেয় ওভারপ্রতি ৪.৯৩ রান করে। সবগুলোতেই তাদের আগ্রাসী ব্যাটিংয়ের প্রতিফলন।
ম্যাচের পর স্টোকস বললেন, ইংল্যান্ডে টেস্ট খেলার ধরন নতুন করে লিখতে চান তারা, ‘ইংল্যান্ডে যেভাবে টেস্ট ক্রিকেট খেলা হয়েছে, সেই ধরনটা আমরা নতুন করে লেখার চেষ্টা করছি। গত চার-পাঁচ সপ্তাহে আমরা যে সব পরিকল্পনা করেছি, তা সামনে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করব। আমরা জানি, টেস্ট ক্রিকেটকে আমরা নতুন জীবন দিতে চাই। খুব অল্প সময়ের মধ্যে যে সমর্থন আমরা পেয়েছি, তা ছিল দুর্দান্ত। পরবর্তী প্রজন্মকে আমরা অনুপ্রাণিত করতে চাই। আমরা নতুন সমর্থক আনতে চাই, টেস্ট ক্রিকেটে আমরা ছাপ রেখে যেতে চাই।’
প্রথম ইনিংসে ১৩২ রানে পিছিয়ে থাকার পর ইংল্যান্ড এভাবে ম্যাচ জিতবে, অনেকের হয়তো ধারণাতেও ছিল না তা। রান তাড়ায় চতুর্থ দিন ১৩১ বলে ১০৭ রানের জুটিতে ভিত গড়ে দেন অ্যালেক্স লিস ও জ্যাক ক্রলি। এরপর ২ রানের মধ্যে ৩ উইকেট হারালেও রুট ও বেয়ারস্টোর অবিচ্ছিন্ন ২৬৯ রানের রেকর্ড জুটিতে অনায়াসে লক্ষ্য ছুঁয়ে ফেলে স্বাগতিকরা।
নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের আগে টেস্ট ক্রিকেটে ব্যর্থতার চোরাবালিতে ঘুরপাক খাচ্ছিল ইংল্যান্ড। আগের ১৭ টেস্টে তাদের জয় ছিল স্রেফ একটি। ওই সিরিজ দিয়ে শুরু হয় টেস্ট অধিনায়ক স্টোকস ও কোচ ব্রেন্ডন ম্যাককালামের পথচলা। দলটির বদলে যাওয়ার শুরু সেখানেই।
নিউজিল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক ম্যাককালাম খেলোয়াড়ি জীবনে চ্যালেঞ্জ নিতে কখনও ভয় পেতেন না। আক্রমণই ছিল তার শেষ কথা। তার কোচিংয়ের ধরনেও সেটির প্রভাব স্পষ্ট। স্টোকস মনে করেন, দলে সবার ব্যক্তিগত ভূমিকা সম্পর্কে জানা থাকলে কাজ সহজ হয়ে যায়। স্পিনার জ্যাক লিচের উদ্ধৃতি দিয়ে তিনি জানিয়ে দলেন তার দলের দর্শন, ‘যখন ড্রেসিংরুমে আমাদের চিন্তাভাবনা পরিষ্কার থাকে, মাঠে তখন কাজটা সহজ হয়ে যায়। পাঁচ সপ্তাহ আগেও ৩৭৮ রানের লক্ষ্য থাকলে সেটা হতো ভীতিকর। কিন্তু এখন সবকিছু ভালো। কখনও কখনও দলগুলো আমাদের চেয়ে ভালো হতে পারে, কিন্তু কেউই আমাদের চেয়ে সাহসী হবে না, জ্যাক লিচ যেটা বলেছিল।’

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন