সোমবার, ০৮ আগস্ট ২০২২, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৯, ০৯ মুহাররম ১৪৪৪ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

মিউজিয়াম থেকে লোডশেডিং ফিরল কেন? ড. মোশাররফ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৮ জুলাই, ২০২২, ১২:০২ এএম

বিদ্যুত খাতে এতদিন ধরে যে সাফল্যের কথা ক্ষমতাসীনরা বলে আসছে, বর্তমান পরিস্থিতি তা মিথ্যা প্রমাণ করছে বলে দাবি করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। তিনি বলেন, আজকের প্রধানমন্ত্রী ফলাও করে অনুষ্ঠান করে ঘোষণা করেছিলেন, এই লোড শেডিংকে আমরা মিউজিয়ামে পাঠিয়ে দিয়েছি। কোথায় আপনার সেদিনের আস্ফালন? মিউজিয়াম থেকে লোডশেডিং ফিরল কেন?

গতকাল বুধবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে জাতীয়তাবাদী নবীন দলের উদ্যোগে ২০১১ সালের ৬ জুলাই সংসদ ভবনের সামনে তৎকালীন বিরোধীদলীয় প্রধান হুইপ জয়নুল আবদিন ফারুকসহ বিএনপির সংসদ সদস্যদের উপর পুলিশি হামলার স্মরণে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
খন্দকার মোশাররফ বলেন, প্রধানমন্ত্রী আপনাকে জিজ্ঞাসা করতে চাই, আজকে কেন এই লোড শেডিং এদেশের জনগণ প্রতিনিয়ত অনুভব করছে। আমি গত মঙ্গলবার ডেমরাতে একটা অনুষ্ঠানে গিয়েছিলাম। এক ঘণ্টা দেরি হয়েছে অনুষ্ঠান শুরু করতে। ঢাকা শহরে লোড শেডিং, গ্রামে-গঞ্জে প্রতিদিন ৬ ঘণ্টা লোড শেডিং হচ্ছে। আর সরকার প্রধান বলছেন, লোড শেডিংকে মিউজিয়ামে পাঠিয়ে দিয়েছেন! কী পরিমাণ চাপাবাজি দিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করছে।
ড. মোশাররফ বলেন, বিদ্যুৎকেন্দ্রের জ্বালানি গ্যাস দেশে উৎপাদন না বাড়িয়ে আমদানির পথ ধরায় এই সঙ্কট তৈরি হয়েছে। আমাদের যে গ্যাস থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন হয়, সেই গ্যাসের যে উত্তোলন, বিতরণ- এ ব্যাপারে গত ১৪ বছর যাবত সরকার কোনো রকমের পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। গ্যাস উৎপাদনের ব্যবস্থা করে নাই। বিদেশ থেকে আমদানিকৃত গ্যাসের উপর নির্ভর করেছে। এই অব্যবস্থার কারণে আজকে বিদ্যুৎ উৎপাদন কমে গেছে, বার বার লোড শেডিং হচ্ছে। রেন্টাল বা ভাড়াভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের উপর ভর করে উৎপাদন বাড়ানোর সমালোচনাও করেন বিএনপির এই নেতা।
তিনি বলেন, সরকার শুধু একটি সিন্ডিকেটকে খুশি করার জন্য রেন্টাল বিদ্যুৎ নিয়ে এসেছে। যার জন্য আমাদের শাসনামলে যে বিদ্যুতের দাম ছিল ২ টাকার নিচে, সেটা এখন ১০ টাকার ওপরে। কেন? ওই সিন্ডিকেটকে লাভবান করার জন্য তারা এসব করেছে।
তিনি আরও বলেন, অর্থনীতিতেও সঙ্কট চলছে। এসব সঙ্কট ধামাচাপা দিচ্ছে। এরপর একদিন না একদিন দেখবেন, শ্রীলঙ্কার চাইতেও খারাপ অবস্থা হতে পারে। দুর্নীতিতে মেগা প্রজেক্টের নামে মেগা ডাকাতিতে, ব্যাংকগুলোকে ঋণে জর্জরিত করে দিয়ে, রিজার্ভের থেকে ঋণ নেওয়ার নিয়ম না থাকলেও সেই রিজার্ভ থেকে ঋণ নিয়ে আবার সেই ঋণের কথা গোপন করে, রিজার্ভকে বাড়িয়ে দেখিয়ে আজকে অর্থনীতিকে নিয়ে যাচ্ছে-এই লুটেরা অর্থনীতি বেশিদিন টিকবে না। এই অবস্থা থেকে উত্তরণে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে রাস্তায় নামার প্রস্তুতি নিতে আহ্বান জানান খোন্দকার মোশাররফ।
বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্য বলেন, শুধু বিএনপি নয়, এদেশের মানুষ পরিবর্তন চায়, আর এই সরকারকে দেখতে চায় না। কোনো স্বৈরাচারী সরকারের রেকর্ড নাই নিজেরা ইচ্ছা করে ক্ষমতা থেকে সরে যাবে। সেটা করতে হলে আমাদের সকলকে রাস্তায় নামতে হবে।
নবীন দলের সভাপতি হুমায়ুন্ আহমেদ তালুকদারের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানার সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, বিএনপির এবিএম আশরাফ উদ্দিন নিজান, আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ, যুবদলের ইসাহাক সরকার বক্তব্য রাখেন।###

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন