শনিবার, ২০ আগস্ট ২০২২, ০৫ ভাদ্র ১৪২৯, ২১ মুহাররম ১৪৪৪

জাতীয় সংবাদ

তাইওয়ান পরিস্থিতি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে ঢাকা

বাংলাদেশ ‘এক চীন নীতি’ মেনে চলবে প্রত্যাশা রাষ্ট্রদূতের

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৫ আগস্ট, ২০২২, ১২:০০ এএম

বাংলাদেশ অব্যাহতভাবে ‘এক চীন নীতি’ মেনে চলবে বলে প্রত্যাশা করেছেন ঢাকায় নিযুক্ত চীনা রাষ্ট্রদূত লি জিমিং। গতকাল বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে এ আশা ব্যক্ত করেন তিনি। তবে তাইওয়ান পরিস্থিতি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে বাংলাদেশ। এ ইস্যুতে সংশ্লিষ্ট সব পক্ষকে সর্বোচ্চ সংযম অবলম্বনের আহŸান জানিয়েছে ঢাকা।
চীনা রাষ্ট্রদূত লি জিমিং বিবৃতিতে বলেন, তাইওয়ানের ব্যাপারে চীনের আইনসম্মত ও ন্যায্য অবস্থান বাংলাদেশ বুঝবে ও সমর্থন করবে বলেও আশা প্রকাশ করছি। একই সঙ্গে আঞ্চলিক শান্তি, স্থিতিশীলতা ও সমৃদ্ধি রক্ষায় চীনের সঙ্গে বাংলাদেশ একসঙ্গে কাজ করবে বলেও প্রত্যাশা করেন।

লি জিমিং বলেন, চীন ও বাংলাদেশ একে অন্যের ভালো প্রতিবেশী। দুই দেশই একে অপরের বিশ্বস্ত বন্ধু এবং নির্ভরযোগ্য অংশীদার। দুই দেশ সব সময় নিজেদের সার্বভৌমত্ব, নিরাপত্তা এবং আঞ্চলিক অখÐতাসংক্রান্ত মৌলিক স্বার্থের বিষয়ে একে অপরকে বুঝেছে এবং সমর্থন করেছে।
এক চীন নীতির প্রতি বাংলাদেশের দীর্ঘদিনের অঙ্গীকার ও ‘তাইওয়ানের স্বাধীনতা’র প্রতি বাংলাদেশের জোরালো বিরোধিতার প্রশংসা করেছেন লি জিং মিং।
উল্লেখ্য, মার্কিন কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির তাইওয়ান সফর ঘিরে যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে তীব্র উত্তেজনা চলছে। এ প্রেক্ষিতে ঢাকার চীন দূতাবাস এই বিবৃতি দেয়।

এদিকে গতকাল বৃহস্পতিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলা হয় তাইওয়ান পরিস্থিতি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে বাংলাদেশ। এ ইস্যুতে সংশ্লিষ্ট সব পক্ষকে সর্বোচ্চ সংযম অবলম্বনের আহŸান জানিয়েছে ঢাকা।
বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়, তাইওয়ান ইস্যুতে উত্তেজনা বাড়তে পারে এবং এই অঞ্চলে ও এর বাইরে শান্তি-স্থিতিশীলতা নষ্ট করতে পারে এমন কোনো কাজ থেকে বিরত থাকার আহŸান জানায় বাংলাদেশ।

বাংলাদেশ ‘এক চীন’ নীতির প্রতি তার দৃঢ় সমর্থন পুনর্ব্যক্ত করছে। একই সঙ্গে জাতিসংঘের সনদ অনুযায়ী এবং আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে তাদের মতপার্থক্য নিরসনের জন্য সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলোকে আহŸান জানায়। ##

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন