বৃহস্পিতবার, ১৮ আগস্ট ২০২২, ০৩ ভাদ্র ১৪২৯, ১৯ মুহাররম ১৪৪৪

মহানগর

জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত বাতিল করতে হবে বিভিন্ন ইসলামী দলের নেতৃবৃন্দ

ঢাকায় বিক্ষোভ সমাবেশ কাল--

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৬ আগস্ট, ২০২২, ৭:৫৭ পিএম

জ্বালানি তেলের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি সম্পূর্ণ অযৌক্তিক। তেলের মূল্যবৃদ্ধি জনগণের উপর চরম জুলুম। নতুন করে জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির ফলে সবকিছুর দাম আরো বাড়বে। অবিলম্বে জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত বাতিল করতে হবে। জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে বিভিন্ন ইসলামী দলের নেতৃবৃন্দ আজ শনিবার পৃথক পৃথক বিবৃতি ও সভায় এসব কথা বলেন। জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবিতে আগামীকাল রোববার বিভিন্ন সংগঠনে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে।
পীর সাহেব চরমোনাই ঃ জ্বালানি তেলের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধিতে গভীর উদ্বেগ ও ক্ষোভ প্রকাশ করে তেলের দামবৃদ্ধির এ সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মাদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই। এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, এই অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির ফলে দেশ মহাসঙ্কটে পড়বে। উন্নয়নের চাকা স্থবির হয়ে পড়বে। সাধারণ মানুষের জীবন জীবিকা দুর্বিষহ করে তুলবে।
পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের দাম যেদিন কমলো, সেদিন বাংলাদেশে বাড়লো অস্বাভাবিক ভাবে। এই সময়ে বাজার পর্যবেক্ষণ না করে, কেবল আইএমএফের প্রেসক্রিপশন বাস্তবায়নে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত অযৌক্তিক ও গণবিরোধী। অনতিবিলম্বে বর্ধিত মূল্য প্রত্যাহার করে, আগের মূল্য বহাল রাখার দাবি জানান তিনি। তিনি বলেন, এ মূল্যবৃদ্ধির কারণে শিল্প কল-কারখান বন্ধ হয়ে যাবে। ফলে নতুন করে সঙ্কট সৃষ্টি হবে। শ্রমিক অসন্তোষ বাড়বে। পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, এ অমানিবক সিদ্ধান্ত সরকারকে বাতিল করতেই হবে। অন্যথায় সারাদেশে গণরোষ সৃষ্টি হয়ে গণআন্দোলনে রূপ নিতে বাধ্য। তাই সাধারণ মানুষের কথা ভেবে জ্বালানি তেলের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত বাতিল করুন।
খেলাফত মজলিস ঃ খেলাফত মজলিসের আমীর মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক বলেছেন, সরকারের জ্বালানি তেলের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির স্দ্ধিান্ত সম্পূর্ণ অযৌক্তিক। জ্বালানি তেলের দাম এক লাফে প্রতি লিটারে ৩৪-৪৬ টাকা বৃদ্ধি কোনো ভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম বর্তমানে গত ছয় মাসের মধ্যে সর্বনি¤œ। এ অবস্থায় এভাবে তেলের মূল্যবৃদ্ধি জনগণের উপর চরম জুলুম। দ্রব্যমূল্যের অসহনীয় উচ্চ মূল্যের মধ্যে নতুন করে জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির ফলে সবকিছুর দাম আরো বাড়বে। অবিলম্বে জ্বালানি তেলের বর্ধিত মূল্য প্রত্যাহার করতে হবে। আজ শনিবার খেলাফত মজলিসের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা পরিষদের বৈঠকে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
পল্টনস্থ’ মজলিস মিলনায়তনে আমীরে মজলিস মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাকের সভাপতিত্বে ও মহাসচিব ড. আহমদ আবদুল কাদেরের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন প্রধান উপদেষ্টা ভাষা সৈনিক প্রিন্সিপাল মাসউদ খান, নায়েবে আমীর অধ্যাপক মাওলানা যোবায়ের আহমদ চৌধুরী, মাওলানা সাখাওয়াত হোসাইন, মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী, অধ্যাপক মুহাম্মদ আবদুল হালিম, সদস্য ডাঃ আবদুল্লাহ খান, মাওলানা সৈয়দ ফেরদাউস বিন ইসহাক, হাফেজ মাওলানা ওয়ালিউল্লাহ, মাওলানা আবু তাহের জিহাদী, প্রিন্সিপাল সৈয়দ মুহিবুর রহমান, অ্যাডভোকেট একেএম বদরুদ্দোজা, মাওলানা ফরিদ আহমদ সিদ্দিকী, আবদুস সামাদ সরকার, ড. ইউসুফ আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা ক্বারী বজলুল হক, ডাঃ আবু হোসেন, অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর হোসাইন, মুহাম্মদ মুনতাসির আলী, অধ্যাপক মো. আবদুল জলিল, মাওলানা তোফাজ্জল হোসেন মিয়াজী,অ্যাডভোকেট মিজানুর রহমান, প্রশিক্ষণ সম্পাদক অধ্যাপক কাজী মিনহাজুল আলম ও মাওলানা সৈয়দ মুশাহিদ আলী।
বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন নারায়ণগঞ্জ জেলা ঃ বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার আমীর আলহাজ আতিকুর রহমান নান্নু মুন্সি আজ শনিবার জ্বালানি তেলের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, একদিকে সারাদেশে বিদ্যুতের লোড শেডিংয়ের ফলে জনজীবন দুর্বষহ হয়ে উঠছে। এখন আবার জ্বালানির দাম বাড়ায় নিত্যপণ্যের বাজার অস্থির হয়ে উঠবে। এর প্রভাব পড়বে সাধারণ ও খেটে খাওয়া মানুষের উপর। তিনি বলেন, জ্বালানি তেলের দাম বাড়ায় দেশে পরিবহন ভাড়া বাড়বে, জিনিসপত্রের দাম বাড়বে, বাড়বে মুদ্রাস্ফীতি। তিনি অবিলম্বে জ্বালানি তেলের বর্ধিত মূল্যবৃদ্ধির গণবিরোধী সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের জোর দাবি জানান।
বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস ঃ জ্বালানি তেলের দাম অস্বাভাবিক বৃৃদ্ধির তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মাওলানা জালালুদ্দীন আহমদ। তিনি এক বিবৃতিতে বলেন, বিদ্যুৎ লোডশেডিংয়ে মানুষ বিপর্যস্ত এবং নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিপত্রের দাম বেড়েই চলছে। কোনো ভাবেই সরকার নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে না, এর মধ্যে সবধরণের জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি মানুষের জীবনকে আরও দুর্বিষহ করে তুলবে। সরকার গত নভেম্বরে ডিজেল ও কেরোসিনের দাম এক লাফে ১৫ টাকা বৃদ্ধি করেছিল। তখন দাম নির্ধারণ করা হয় ৮০ টাকা লিটার। ডিজেলের দাম বাড়ানোর পর বাস ভাড়া বাড়ানো হয় প্রায় ২৭ শতাংশ, লঞ্চ ভাড়া বাড়ানো হয় ৩৫শতাংশ যা তেলের দাম বাড়ানো হারের চেয়ে অনেক বেশি। শুক্রবার আবার জ্বালানি তেলের দাম এক লাফে প্রায় ৫০ শতাংশের কাছাকাছির বাড়ানোর ফলে জনজীবনে চরম দুর্ভোগ নেমে আসবে। পরিবহন ভাড়াসহ সবজিনিসপত্রের দাম আরও বেড়ে যাবে। মানুষের জীবনে নেমে আসবে ভয়াবহ সঙ্কট। তিনি আরও বলেন, সাধারণ মানুষের কথা ভাবুন। মানুষের আয়ের সাথে ব্যয়ের কোনো সমন্বয় নেই। এভাবে সবকিছুর দাম বাড়তে থাকলে মানুষ নিজেদের জীবন বাঁচাতে অন্য পথ বেঁছে নিবে। তখন সমাজ ও রাষ্ট্রে ভীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হবে। তিনি বলেন,বিশ্ববাজারে তেলের দাম নি¤œমুখী হলেও হঠাৎ করে আমাদের দেশে কেনো তেলের দামবৃদ্ধি করা হলো তা আমাদের বোধগম্য নয়। তিনি সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা করে জ্বালানি তেলের অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করার জন্য সরকারের প্রতি জোর দাবি জানান।
জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ ঃ জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের নেতৃবৃন্দ জ্বালানি তেলের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে বলেছেন, মূল্যবৃদ্ধির এই সিদ্ধান্তের প্রভাবে গার্মেন্টস ও কৃষিসহ প্রতিটি খাত হুমকির মুখে পড়বে। এমনিতেই মানুষের আয়ের সাথে ব্যয়ের কোন সামঞ্জস্য নেই। ভয়াবহ লোডশেডিং ও দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতিতে জনসাধারণের হাঁসফাঁস অবস্থা। সারের মূল্যবৃদ্ধিতে কৃষকদের মাথায় হাত। এমতাবস্থায় হুট করে এক লাফে জ্বালানি তেলের এমন মূল্যবৃদ্ধি নিঃসন্দেহে নজিরবিহীন। সরকারকে এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে প্রয়োজনে ভর্তুকি দিতে হবে।
এক বিবৃতিতে দলের সভাপতি আল্লামা শায়খ যিয়া উদ্দীন,সহসভাপতি মাওলানা উবায়দুল্লাহ ফারুক, সহসভাপতি মাওলানা আব্দুর রব ইউসুফী, মহাসচিব মাওলানা মঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দী ও যুগ্মমহাসচিব মাওলানা বাহাউদ্দীন যাকারিয়া এ সব কথা বলেছেন। বিশ্ব বাজারে জ্বালানি তেলের মূল্য নি¤œমুখী থাকা সত্ত্বেও মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত কেন? এমন প্রশ্ন রেখে জমিয়ত নেতৃবৃন্দ বলেন গণমানুষের সাথে সংবেদনশীল আচরণ না করে উল্টো তাদের দুর্ভোগ বাড়িয়ে দেয়ার পরিণাম ভালো হবে না।
ইসলামী ঐক্যজোট : ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ নেজামে ইসলাম পার্টির সভাপতি মাওলানা অ্যাডভোকেট আব্দুর রকিব জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধিতে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে আজ শনিবার এক বিবৃতিতে বলেন, জ্বালানি তেলের অযৌক্তিক মূল্যবৃদ্ধির দরুণ গণপরিবহন খাতসহ অন্যান্য খাতেও জনদুর্ভোগ সীমাহীনভাবে বাড়বে। তেলের মূল্যবৃদ্ধিতে জনজীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠবে। তিনি জনগণের বৃহৎস্বার্থে অনতিবিলম্বে জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের জোর দাবি জানান।
আল্লামা আতাউল্লাহ হাফেজ্জী : জ্বালানি তেলসহ নিত্যপণ্যের অসাভাবিক মূলবৃদ্ধির ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে এর তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন প্রধান আমীরে শরীয়ত আল্লামা আতাউল্লাহ হাফেজ্জী। হঠাৎ করে ডিজেল ও কেরোসিনের ৪২.৫ শতাংশ অকটেন ও পেট্রলের ৫১শতাংশ মূল্যবৃদ্ধি নজির বিহীন ও হতাশা জনক আখ্যায়িত করে তিনি বলেন, এর প্রভাবে পরিবহন, শিল্প- বানিজ্যসহ নিত্যপণ্যের বাজারে নৈরাজ্য শুরু হয়েছে। জনগণ দিশেহারা হয়ে গেছে। জনসাধারণের জীবন জীবিকা অনেকাংশেই অচল হয়ে পড়েছে। এই অবস্থা কিছুতেই মেনে নেয়া যায় না। অবিলম্বে জ্বালানি তেল,চাল, ভোজ্যতেল,ঔষধও নিত্যপণের মূল্য জনগনের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে রাখার জন্য তিনি আহবান জানান।
তিনি আরো বলেন, ইতিমধ্যেই কাঁচা বাজারসহ নিত্যপণ্যের মূল্য ইতিহাসের রেকর্ড ছাড়িয়ে যাচ্ছে। এখনি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে না পারলে বিক্ষুব্ধ জনগণ রাস্তায় নেমে আসতে বাধ্য হবে। তখন দেশের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হলে এর দায়ভার সরকারকেই নিতে হবে।
ইসলামী ঐক্যজোট : জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধিতে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ইসলামী ঐক্যজোট। আজ এক বিবৃতিতে দলটির চেয়ারম্যান মাওলানা আবুল হাসানাত আমিনী ও মহাসচিব এই উদ্বেগ প্রকাশ করেন। বিবৃতিতে তারা বলেন, শুক্রবার রাতে পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই হঠাৎ করে সরকার জ্বালানি তেলের অস্বাভাবিক দাম বৃদ্ধি করায় বিপাকে পড়েছে সকল পেশার মানুষ। বিদ্যুতের সীমাহীন লোডশেডিং তার সাথে নতুন যোগ হলো জ্বালানি তেলের দাম। এর প্রভাব পড়েছে সকল পেশার মানুষের উপর। সকল প্রকার পণ্যের দাম বেড়েছে। পরিবহনের যাত্রীদের গুনতে হচ্ছে দ্বিগুণ অর্থ। বিবৃতিতে তারা বলেন, জ্বালানি তেলের এমন মূল্যবৃদ্ধিতে জনজীবনে বিপর্যয় সৃষ্টি হবে। অবিলম্বে জনদুর্ভোগের কথা চিন্তা করে জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার জন্য সরকারের প্রতি অনুরোধ করছি।
কর্মসূচী : জ্বালানি তেলের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ এবং বর্ধিত মূল্যের সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবিতে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর আগামীকাল রোববার বিকেল ৩টায় রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাব চত্ত্বরে বিক্ষোভ সমাবেশের ঘোষণা দিয়েছে।
এনডিএম কেন্দ্রীয় কমিটি : জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবিতে আগামীকাল বেলা ২টায় রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এনডিএম কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে প্রতিবাদী অবস্থান এবং গণস্বাক্ষর সংগ্রহ কর্মসূচি পালিত হবে। এনডিএম এর চেয়ারম্যান ববি হাজ্জাজ উক্ত কর্মসূচি সফল করার অনুরোধ জানিয়েছেন।
খেলাফত মজলিস : জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে খেলাফত মজলিসের উদ্যোগে আগামীকাল বিকেল ৪টায় বিক্ষোভ কর্মসূচির ডাক দিয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন