শুক্রবার, ১২ আগস্ট ২০২২, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৩ মুহাররম ১৪৪৪

আন্তর্জাতিক সংবাদ

তুরস্ক রুবলে শস্য-জ্বালানি কিনবে

সোচিতে পুতিন-এরদোগান হৃদ্যতাপূর্ণ বৈঠক

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৭ আগস্ট, ২০২২, ১২:০০ এএম

রুশ মুদ্রার মাধ্যমে রাশিয়া থেকে শস্য ও জ্বালানি ক্রয়ে সম্মত হয়েছে তুরস্ক। গত শুক্রবার রাশিয়ার সোচি শহরে বৈঠকে বসেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন ও তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগান। সেখানেই এ সংক্রান্ত চুক্তি চূড়ান্ত হয়। বৈঠকে পরিবহন, জ্বালানি, কৃষিসহ বিভিন্ন খাতে সমঝোতা হয় দুই দেশের মধ্যে। আঙ্কারা জানায়, মস্কোর কাছ থেকে শস্য, সার এবং সার তৈরির কাঁচামাল কিনবে তুরস্ক। এসব পণ্য ক্রয়ের একটি অংশ রুশ মুদ্রার মাধ্যমে মূল্য পরিশোধ করা হবে। দীর্ঘ চার ঘণ্টার বৈঠকে দুই দেশের মধ্যে কূটনৈতিক ক্ষেত্রে সম্পর্কন্নয়ে আরও জোর দেন পুতিন এবং এরদোগান।

প্রসঙ্গত, রাশিয়ার সোচিতে শুক্রবার হওয়া এ বৈঠকে চেচেন প্রজাতন্ত্রের প্রধান রমজান কাদিরভও রাশিয়ান প্রতিনিধি দলের সদস্য হিসেবে আসেছেন বলে এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে ইয়াহু নিউজ। বৈঠকে তুর্কি উদ্যোগে ইউক্রেন থেকে শস্য রফতানি পুনরায় শুরু হওয়ার জন্য এরদোগানকে ধন্যবাদ দেন পুতিন। এর আগে শস্য রফতানি পুনরায় শুরুর জন্য রাশিয়া ও ইউক্রেনকে এক টেবিলে এনে একটি চুক্তি করেছিল তুরস্ক। ফলে খাদ্য সঙ্কট নিয়ে একটি বিরাট অচলাবস্থার অবসান হয়। কারণ, ইউক্রেন এবং রাশিয়া বিশ্বের বৃহত্তম শস্য রফতানিকারক দুই দেশ। শুক্রবার ৬০ হাজার টন শস্য বহনকারী আরো তিনটি জাহাজ ইউক্রেনের কৃষ্ণ সাগর বন্দর ছেড়ে গেছে। জাহাজগুলো ব্রিটেন, আয়ারল্যান্ড এবং তুরস্কের দিকে যাচ্ছে।

তুরস্ক গত মাসে ইস্তাম্বুলে ইউক্রেন, রাশিয়া এবং জাতিসংঘের স্বাক্ষরিত একটি চুক্তির মধ্যস্থতা করেছিল যার অধীনে কয়েক মাস অবরুদ্ধ থাকার পর ইউক্রেনের কৃষ্ণ সাগর বন্দরগুলো থেকে শস্য রফতানি আবার শুরু হয়।
বৈঠকের পর দেয়া বিবৃতিতে, পুতিন এবং এরদোগান ‘তাদের উৎপাদনের জন্য রাশিয়ার শস্য, সার এবং কাঁচামাল নিরবিচ্ছিন্ন রফতানিসহ ইস্তাম্বুল চুক্তির সম্পূর্ণ বাস্তবায়নের’ প্রয়োজনীয়তার ওপর জোর দিয়েছেন।

রাশিয়ার উপ-প্রধানমন্ত্রী আলেকজান্ডার নোভাক আলোচনার পর সাংবাদিকদের বলেন, দুই নেতা রাশিয়ান গ্যাসের জন্য অর্থপ্রদানের কিছু অংশ রুবেলে পরিবর্তন করতে সম্মত হয়েছেন। দু’জন সিরিয়ায় ‘সব সন্ত্রাসী সংগঠনের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সমন্বয় ও সংহতিতে কাজ করার জন্য তাদের দৃঢ় সংকল্প পুনর্ব্যক্ত করেছেন’। সূত্র : রয়টার্স ও ইয়াহু নিউজ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন