বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ২০ আশ্বিন ১৪২৯, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

খেলাধুলা

সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারালেন ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সফল আম্পায়ার

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৯ আগস্ট, ২০২২, ৮:৩৩ পিএম

এইতো কিছুদিন আগ পর্যন্ত আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশি ম্যাচে(৩৩১ ম্যাচ) আম্পায়ারিং করার রেকর্ডটা ছিল তার দখলে।দীর্ঘ ৩০ বছরের আম্পায়ারিং ক্যারিয়ারে সিদ্ধান্তের নির্ভুলতা,ম্যাচ পরিচালনার দক্ষতা আর সন্দেহাতীত পেশাদারিত্বে ক্রিকেটাঙ্গনে নিজেকে নিয়ে গেছেন অনন্য উচ্চতায়।

বোলারদের আবেদনের সাড়া দিয়ে তার অত্যন্ত ধীর গতিতে আঙ্গুল তোলার চিরাচরিত অভ্যাসটি ক্রিকেটপ্রেমীদের কাছে তাকে দিয়েছিল স্বতন্ত্র পরিচয়। ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সফল আম্পায়ার হিসেবে পরিচিত সেই রুডি কোয়ের্তজেন আজ এক মর্মান্তিক কার এক্সিডেন্টে প্রাণ হারিয়েছেন।

দক্ষিণ আফ্রিকার একাধিক সংবাদ মাধ্যম তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। সেখানকার স্থানীয় বিভিন্ন সংবাদপত্রের অনলাইন ভার্শনে প্রকাশিত সংবাদ থেকে জানা যায়, কেপটাউনে একটি গলফ কোর্সে বন্ধুদের সাথে গলফ খেলে নিজের বাড়িতে ফেরার পথে উল্টো পাশ থেকে আসা একটি গাড়ির সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয় কোয়ের্টজেনদের গাড়ির। ঘটনাস্থলেই মারা যান ৮৫ বছর বয়সী কোয়ের্টজেন।

বাবার মৃত্যু নিয়ে দেশটির আলগোয়া এফএম নিউজকে কোয়ের্তজেনের ছেলে রুডি কোয়ের্তজেন জুনিয়র বিস্তারিত জানিয়েছেন। সংবাদমাধ্যমটিকে তিনি বলেন,বাবা তার বন্ধুদের নিয়ে এই উইকেন্ডে(রবিবার) একটি গলফ্ টুর্নামেন্টে অংশ নিয়েছিলেন। সোমবার তাদের ফেরার কথা থাকলেও তারা আরো একদিন থেকে যান গলফ খেলার জন্য। আর আজ বাড়িতে ফেরার সময় বাবাকে বহন করা কারটি মারাত্মক দুর্ঘটনায় পড়ে।ঘটনাস্থলে তিনি প্রাণ হারান। তার সাথে একই গাড়িতে থাকা আরও অন্তত তিনজনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে।

১৯৪৯ সালে ২৬ মার্চ কেপ প্রভিন্সের কেনিসনায় জন্মগ্রহণ করা এই দক্ষিণ আফ্রিকান আম্পায়ারের কাটিয়েছন বর্ণাঢ্য এক জীবন। তরুণ বয়সে স্থানীয় লিগে ক্রিকেটে খেলার পাশাপাশি রেলওয়েতে কেরাণি হিসেবে যোগ দিয়েছেন কোয়ের্তজেন।

আম্পায়ারিং ক্যারিয়ার শুরু করার ১১ বছর পর ১৯৯২ সালে তিনি প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচ পরিচালনার সুযোগ পান।১৯৯৭ সালে আইসিসির পূর্ণকালীন আম্পায়ার হওয়া কোয়ের্তজেন ১০৮টি টেস্ট, ২০৯টি ওয়ানডে, ১৪টি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে (৩৩১টি )আম্পায়ার ছিলেন। এ ছাড়া টিভি আম্পায়ার হিসেবে কাজ করেছেন আরও ৬৬টি আন্তর্জাতিক ম্যাচে।

ওয়ানডেতে এখনো তার ২০৯ ম্যাচ আম্পায়ারিং রেকর্ড সর্বোচ্চ হিসেবে রয়েছে।আর দীর্ঘদিন ধরে তার দখলে থাকা সর্বমোট ৩৩১ ম্যাচে আম্পায়ার হিসেবে থাকার রেকর্ডটি সম্প্রতি ভেঙেছেন পাকিস্তানের আলিম দার। দক্ষিণ আফ্রিকার স্টিভ বার্কনারের পর রুডি কোয়ের্তজেন দ্বিতীয় আম্পায়ার হিসেবে ১০০ টেস্ট পরিচালনা করার মাইফলক অর্জন করেছিলেন।

২০১০ সালের ৯ জুন হারারেতে শুরু হওয়া জিম্বাবুয়ের সাথে শ্রীলংকার টেস্ট ম্যাচটি তার ক্যারিয়ারের সর্বশেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ ছিল। ম্যাচটি পরিচালনার সময় তার বয়স ছিল ৭৩ বছর।

*https://twitter.com/i/status/1556950628920098816

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন