বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯, ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

রাষ্ট্রদ্রোহের মামলায় গ্রেপ্তার ইমরানের সহকারী, বন্ধ টিভি চ্যানেল

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১০ আগস্ট, ২০২২, ১১:৫৯ এএম

পাকিস্তানের সংবাদভিত্তিক টিভি চ্যানেল এআরআইকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে কথা বলায় গ্রেপ্তার হয়েছেন দেশটির বিরোধী দলীয় নেতা ইমরান খানের ঘনিষ্ঠ সহকারী শাহবাজ গিল। তার বিরুদ্ধে থানায় রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগ আনা হয়েছে।

শাহবাজকে গ্রেপ্তার করার আগের দিন একই অভিযোগে ওই টিভি চ্যানেলটির সম্প্রচারও বন্ধ করে দিয়েছে পাকিস্তানের মিডিয়া বিষয়ক নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

মঙ্গলবার রাজধানী ইসলামাবাদের অভিজাত এলাকা বানিগালা চক থেকে সাদা পোষাক পরা পুলিশের একটি দল তাকে গ্রেপ্তার করে বলে এক টুইটবার্তায় নিশ্চিত করেছে ইমরান খানের রাজনৈতিক দল পাকিস্তান তেহরিক-ই ইনসাফ (পিটিআই)। টুইটবার্তায় বলা হয়, ‘সোমবার এআরআই’র সম্প্রচার বন্ধ করার পর আজ (মঙ্গলবার) তারা শাহবাজ গিলকে গ্রেপ্তার করেছে। পাকিস্তান একটি ফ্যাসিবাদী আমদানিকৃত সরকারের অধীনে রয়েছে। এ সরকার মানবাধিকার, জনগণের অধিকারের তোয়াক্কা করে না। আমরা অবিলম্বে শাহবাজ গিলের মুক্তি দাবি করছি।’

পিটিআইয়ের প্রেসিডেন্ট ও পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ও পিটিআইয়ের জ্যেষ্ঠ নেতা ফাওয়াদ চৌধুরি অবশ্য এক্ষেত্রে ‘গ্রেপ্তার’ শব্দটি ব্যবহার করতে নারাজ। তাদের অভিযোগ, শাহবাজ গিলকে ‘অপসারণ’ করা হয়েছে।

নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে টুইট করা এক বার্তায় ফাওয়াদ চৌধুরি বলেন, ‘একদল লোক বানিগালা চক থেকে শাহবাজ গিলকে অপহরণ করেছে। যে গাড়িতে তাকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে, সেটির নাম্বার প্লেট ছিল না।’

পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যমগুলোর বরাত দিয়ে ভয়েস অব আমেরিকার প্রতিবেদনে বলা হয়, সোমবার এআরআই নিউজকে লাইভ সাক্ষাৎকার দেন শাহবাজ গিল। সেখানে তিনি মন্তব্য করেন, গত এপ্রিলে পার্লামেন্টের আস্থা ভোটে ইমরান খানের হেরে যাওয়া ও প্রধানমন্ত্রীর পদ হারানোর জন্য দায়ী দেশটির সেনাবাহিনীর মধ্যকার অন্তর্দ্বন্দ্ব। তার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই গ্রেপ্তার হন তিনি।

মঙ্গলবার সকালে শাহবাজ গিলকে গ্রেপ্তারের কয়েক ঘণ্টা পর ইসলামাবাদে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে দেশটির কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রানা সানাউল্লাহ বলেন, রাষ্ট্রদ্রোহিতা ও উসকানিমূলক বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগে বানিগালা পুলিশ স্টেশনে সোমবার শাহবাজ গিলের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। সেই মামলার অভিযুক্ত হিসেবেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে তাকে এবং তিনি বর্তমানে পুলিশ হেফাজতে আছেন।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘গিল একজন মার্কিন নাগরিক এবং তিনি পাকিস্তানের প্রতিরক্ষা বাহিনীর সদস্যদের বিদ্রোহ করার প্ররোচনা দিচ্ছেন। আগামী কাল (বুধবার) তাকে আদালতে তোলা হবে এবং তার ব্যাপারে কী পদক্ষেপ নেওয়া হবে, সেই সিদ্ধান্ত আদালতে হবে।;

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের পর পাকিস্তানের বর্তমান প্রধান বিরোধী নেতা ইমরান খান এক টু্ইটবার্তায় তীব্র ক্ষোভ জানিয়ে বলেন, ‘এটা গ্রেপ্তার নয়, বরং অপহরণ। কোনো গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থায় এমন লজ্জাজনক ঘটনা ঘটতে পারে? একদিকে রাজনৈতিক কর্মীদের শত্রু বলে বিবেচনা করা হচ্ছে, অন্যদিকে বিদেশি মদতপুষ্ট এই জালিয়াতদের সরকারকে গ্রহণ করতে সবাইকে বাধ্য করা হচ্ছে।’

এদিকে, শাহবাজ গিলের সাক্ষাৎকারের জেরে সোমবারই দেশজুড়ে এআরআই নিউজ চ্যানেলের সম্প্রচারে স্থগিতাদেশ দিয়েছে পাকিস্তানের মিডিয়া বিষয়ক নিয়ন্ত্রক সংস্থা পাকিস্তান ইলেকট্রনিক মিডিয়া রেগুলেটরি অথিরিটি (পেমরা)। পরবর্তী নির্দেশ না আসা পর্যন্ত এআরআইকে সম্প্রচার বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে আদেশে।

পেমরার এই স্থগিতাদেশের বিরোধিতা করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বার্তা দিয়েছে পাকিস্তানের মানবাধিকার কমিশন (এইচআরসিপি)। কমিশনের টুইটার অ্যাকাউন্টে টু্ইট করা এক বার্তায় এ সম্পর্কে বলা হয়, ‘এআরওয়াই নিউজ চ্যানেলের সম্প্রচারে স্থগিতাদেশ দেওয়াকে এইচআরসিপি কঠোরভাবে বিরোধিতা করছে। এই ধরনের কার্যক্রম দেশের গণতন্ত্র ও সংবাদপত্রের স্বাধীনতায় গুরুতর হস্তক্ষেপের শামিল।’

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন