শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯, ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

মহানগর

বৈধ রিক্রুটিং এজেন্সির মালিকদের হয়রানিমূলক গ্রেফতার বন্ধ করুন

বিএমইটিতে স্মারকলিপিতে নেতৃবৃন্দ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১০ আগস্ট, ২০২২, ৮:০১ পিএম

বৈধ রিক্রুটিং এজেন্সির মালিক কর্মচারীদের হয়রানিমূলক গ্রেফতার বন্ধ করুন। ২০২১ সালের ২১ অক্টোবরের আন্তঃমন্ত্রণালয়ের বৈঠকের সিদ্ধান্ত চরমভাবে উপেক্ষা করে র‌্যাব বৈধ রিক্রুটিং এজেন্সি সমূহের অফিসে অভিযান চালিয়ে মালিক ও কর্মচারীদেরকে মানব পাচার আইনে গ্রেফতার করছে। র‌্যাবের হয়রানিমূলক অভিযানের কারণে বৈধ রিক্রুটিং এজেন্সির মালিকবৃন্দ আত্মসম্মানের ভয়ে আতঙ্কিত অবস্থায় দিনাতিপাত করছে। বিএমইটির দ্বারা যাচাই বাছাই না করে বৈধ কর্মসংস্থানকেও মানব পাচার আইনে জনশক্তি রফতানিকারক ও কর্মচারীদের গ্রেফতার জেল জুলুম ও হয়রানি অবিলম্বে বন্ধ করা না হলে জনশক্তি রফতানিতে সরকারের লক্ষ্যমাত্রা মারাত্মকভাবে ব্যাহত হবে।
সম্প্রতি কনকর্ড অ্যাফেক্সের মালিক আবুল হোসেনকে হয়রানিমূলক গ্রেফতার করা হয়েছে। মানবপাচার আইনের অপব্যবহার করে বৈধ রিক্রুটিং এজেন্সির মালিক ও কর্মচারীদের হয়রানিমূলক গ্রেফতার অভিযান বন্ধের দাবিতে আজ বুধবার দুপুরে রিক্রুটিং এজেন্সিজ ঐক্য পরিষদের সভাপতি এম টিপু সুলতানের নেতৃত্বে বিক্ষুব্ধ রিক্রুটিং এজেন্সির মালিকরা কাকরাইলস্থ বিএমইটির মহাপরিচালক মো. শহিদুল আলমের কাছে স্মারকলিপিতে নেতৃবৃন্দ এসব কথা বলেন। বিএমইটির মহাপরিচারক শহিদুল আলম রিক্রুটিং এজেন্সির নেতৃবৃন্দের বক্তব্য ধৈর্য্যরে সাথে শোনেন। এসময়ে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, আনোয়ার হোসেন, কাজী আব্দুর রহীম, শেখ ইকবাল দাতো এবাদত হোসেন, কাজী জহিরুল ইসলাম বাবুল, ইনাম আব্দুল্লাহ মহসিন, শাহরিয়ার হোসেন, আহম্মদ উল্লাহ বাচ্চু,মকবুল আহমেদ পাটোয়ারী, হেলাল উদ্দিন, তাসলিম আলম সেলিম, হাফিজুর রহমান, মো. সবুজ মিয়া ও আহসানুর রহমান হাসান ও এম এ হান্নান।
বিএমইটির মহাপরিচালক শহিদুল আলম রিক্রুটিং এজেন্সিজ ঐক্য পরিষদের নেতৃবৃন্দের উদ্দেশ্যে বলেন, এক বছরে দশ লাখ কর্মী বিদেশে গিয়েছে। তারা সবাই ফেরত আসেনি। বিদেশে দুই একজন কর্মীর সমস্যা হতেই পারে। তার সমাধানের পথও আছে। দেশে পুলিশ বাহিনী রয়েছে পুলিশকে এড়িয়ে এবং বিএমইটির যাচাই বাছাই ছাড়াই বৈধ রিক্রুটিং এজেন্সির মালিক কর্মচারীদের গ্রেফতার মোটেই উচিৎ নয়। বিএমইটির মহাপরিচালক বলেন, আন্তঃমন্ত্রণায়ের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী অভিযোগ থাকলে বিএমইটির যাচাই বাছাই করার পর সৃষ্ট সঙ্কট নিরসন করা সম্ভব না হলে এজেন্সির মালিক কর্মচারীর বিরুদ্ধে মামলা হতে পারে। এ ক্ষেত্রেও বিএমইটির অনুমতি লাগবে। তিনি প্রধানমন্ত্রীর হাতকে শক্তিশালী করা এবং দেশকে এগিয়ে নিতে জনশক্তি রফতানির গতি চলমান রাখতে সংশ্লিষ্ট সকলকে যথাযথ ভূমিকা রাখারওপর গুরুত্বারোপ করেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন