বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯, ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

মহানগর

বাবা যেন হাসতে হাসতে জান্নাতে প্রবেশ করেন

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১১ আগস্ট, ২০২২, ১:৫০ পিএম

আমার বাবা হাসি-খুশি মানুষ ছিলেন। তিনি সবার সঙ্গে সব সময় হাসি-খুশিভাবে কথা বলতেন। কিন্তু বাবা আর আমাদের মাঝে নেই। আপনারা সবাই দোয়া করবেন আমার বাবা হাসি মুখেই যেন জান্নাতে প্রবেশ করেন।

বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) র‍্যাব সদরদপ্তরের শহীদ লে. কর্নেল আজাদ মেমোরিয়াল হলে র‌্যাবের এয়ার উইংয়ের পরিচালক লে. কর্নেল মোহাম্মদ ইসমাইল হোসেনের দ্বিতীয় জানাজার আগে তার বড় ছেলে আনান অশ্রুসিক্ত হয়ে বাবার জন্য এই আকুতি জানান।

আনান হোসেন বলেন, আমার বাবা অনেক হাসি-খুশি ও ভালো মানুষ ছিলেন। কোনো কারণ ছাড়া আমার বাবা কারো সঙ্গে রাগ করেনি।

বাবার স্মৃতি স্মরণ করে আনান বলেন, আমি যখন প্রতিদিন কোচিং শেষে বাসায় ফিরতাম তখন আশা করতাম বাবা-মা ডাইনিং টেবিলে বসে এক সঙ্গে খাবার খাবে বা টিভি রুমে বসে টিভি দেখবে। আমি বাসায় ফেরার সঙ্গে সঙ্গে বাবা যাই কিছু করতেন না কেন তা থামিয়ে আমাকে হাসি মুখে বলতেন ‘বাবা কেমন আছো।’

তিনি বলেন, অফিস থেকে ফেরার পর বাবা সব সময় আমার রুমে গিয়ে আমাকে খুঁজতেন। তখন আমাকে দেখার সঙ্গে সঙ্গে হাসি দিয়ে বলতেন কেমন আছো বাবা, তুমি দুপুরে খেয়েছ? আমার সঙ্গে বাবা কখনো কারণ ছাড়া রাগ করেনি। রাগ করলেও পরে বলতেন, ‘তোমার ভালোর জন্যই এমন করেছি, তুমি মনে কিছু কইরো না।’

এ সময় অশ্রুসিক্ত চোখে কন্না জড়িত কণ্ঠে বাবার জন্য দোয়ার আবেদন করে আনান বলেন, উনি বাবা হিসেবে অনেক ভালো ছিলেন। আপনারা সবাই দোয়া করবেন আল্লাহ যেন বাবাকে জান্নাত নসিব করেন। তিনি যেভাবে হাসি মুখে সবার সঙ্গে কথা বলতেন, সেভাবেই যেন হাসি মুখে জান্নাতে প্রবেশ করেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন