বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ২০ আশ্বিন ১৪২৯, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

জ্বালানি নিরাপত্তা জোরদার করেছে তুরস্ক : এরদোগান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৫ আগস্ট, ২০২২, ১২:০০ এএম

কৃষ্ণ সাগর এবং ভূমধ্যসাগরে অনুসন্ধানী মিশনের মাধ্যমে তুরস্ক তার জ্বালানি নিরাপত্তা জোরদার করছে। শনিবার তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেপ এরদোগান এ তথ্য জানিয়েছেন। ইউরোপ যখন আসন্ন শীত নিয়ে উদ্বিগ্ন, তখন তুরস্ক ‘আমাদের জ্বালানি সরবরাহের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য ইতিমধ্যেই কৌশলগত অধ্যয়ন চালিয়ে যাচ্ছে,’ এরদোগান কেন্দ্রীয় কোরাম প্রদেশে একটি অনুষ্ঠানে বলেছিলেন।

তুরস্কের আব্দুলহামিদ হান ড্রিলশিপ এই সপ্তাহে ভূমধ্যসাগরে তার প্রথম দুই মাসের মিশনের জন্য যাত্রা করেছে। এটি পূর্ব ভূমধ্যসাগরে অনুসন্ধান কূপ খনন করবে, অন্য দুটি জাহাজ, ইয়াভুজ এবং কানুনি, কৃষ্ণ সাগরে খনন কাজ চালিয়ে যাবে। বহরে সর্বশেষ সংযোজন হল একটি সপ্তম প্রজন্মের জাহাজ। এটি বিশ্বব্যাপী সেরা পাঁচটির মধ্যে একটি যা ১২ হাজার ২০০ মিটার (৪০ হাজার ফুটের বেশি) গভীরতায় ড্রিলিং করার ক্ষমতা রাখে।
‘আমি বিশ্বাস করি আব্দুলহামিদ হান আমাদের জাতির জন্য সুসংবাদ বয়ে আনবে, ঠিক যেভাবে আমরা কৃষ্ণ সাগরে ৫৪ হাজার কোটি ঘনমিটারের (বিসিএম) প্রাকৃতিক গ্যাস ক্ষেত্র আবিষ্কার করেছি,’ এরদোগান বলেছেন। যে মুহূর্ত থেকে আমরা প্রাকৃতিক গ্যাস উত্তোলন শুরু করব, এই দেশটি ‘অন্যরকম এবং অনেক শক্তিশালী হবে,’ তিনি যোগ করেছেন।

এ সপ্তাহের শুরুর দিকে, জ্বালানি ও প্রাকৃতিক সম্পদ মন্ত্রী ফাতিহ ডোনমেজ বলেছিলেন যে, তুরস্ক আগামী মার্চের মধ্যে কৃষ্ণ সাগরের আবিষ্কার থেকে প্রাকৃতিক গ্যাস ব্যবহার করতে প্রস্তুত হবে। বিশ্বব্যাপী জ্বালানি সঙ্কটের পটভূমিতে বিশেষ করে ইউরোপ যখন জর্জরিত, ডনমেজ বলেছেন যে, এই শীতে তুরস্কে গ্যাস সরবরাহে কোনো বাধা থাকবে না, যদি সরবরাহকারীরা তাদের চালানের পরিকল্পনা মেনে চলে।

কৃষ্ণ সাগরে তুরস্কের উপকূল থেকে প্রায় ১৫০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত, সাকারিয়া গ্যাসক্ষেত্রটি তুরস্কের সর্বকালের বৃহত্তম প্রাকৃতিক গ্যাস ক্ষেত্র। এর জন্য উত্তরাঞ্চলীয় জোনগুলডাক প্রদেশের ফিলিওস বন্দরে একটি উপকূলীয় গ্যাস প্রক্রিয়াকরণ সুবিধার নির্মাণও চলছে। সূত্র : ডেইলি সাবাহ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন