ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ০৮ আষাঢ় ১৪২৮, ১০ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

অনিরাপদ লোকদের যুক্তরাষ্ট্রে জায়গা দেয়া হবে না

ওহাইওর ধন্যবাদ সমাবেশে ট্রাম্পের ঘোষণা

| প্রকাশের সময় : ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিজয়ী ডোনাল্ড ট্রাম্প নির্বাচন-পরবর্তী সমাবেশে আবারো অভিবাসনের বিরুদ্ধে কড়া বক্তব্য দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো থেকে আগত যেসব অভিবাসীকে আমরা নিরাপদ মনে করব না তারা যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসের সুযোগ পাবে না। ডোনাল্ড ট্রাম্প মার্কিনিদের উৎপাদনমুখী কাজে ফিরিয়ে নেয়া এবং মধ্যপ্রাচ্যের কিছু কিছু দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসী হওয়ার পথ বন্ধ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করে বৃহস্পতিবার ওহাইওতে তার ধন্যবাদ সফর শেষ করেছেন। সেখানে এক জনাকীর্ণ সমাবেশে গণমাধ্যমকে আবারও ‘চরম অসাধু’ বলে আক্রমণ করে ট্রাম্প লাখ লাখ ভোটারের কাছে ভালো বার্তা পৌঁছে দিয়ে তাদের অনুপ্রাণিত করার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, কোনো বৈশি^ক স্লোগান নেই, কোনো বৈশি^ক মুদ্রা নেই, নেই বৈশি^ক নাগরিকত্ব পাওয়ার কোনো সনদ। আমরা সবাইকে একই পতাকাতলে একত্রিত হওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি এবং সে পতাকাটি হচ্ছে আমেরিকার পতাকা। ট্রাম্প উত্তর আমেরিকান মুক্তবাণিজ্য চুক্তিসহ বাণিজ্য চুক্তির মাধ্যমে কর্মসংস্থানের বিষয় পুনর্বিবেচনা করার কথা বলেন। এ সপ্তাহের গোড়ার দিকে ওহাইও বিশ^বিদ্যালয় ক্যাম্পাসে এক সোমালি অভিবাসীর হামলার কথা উল্লেখ করে ট্রাম্প বলেন, আমেরিকানদের প্রতি এ ধরনের হুমকি আমাদের কিছু অপদার্থ রাজনীতিবিদের শরণার্থী নীতির কারণেই সৃষ্টি হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রকে ফের এ ধরনের হামলা থেকে রক্ষা করার লক্ষ্যে ট্রাম্প অভিবাসন ব্যবস্থা বাতিলের কথা বলেন। ট্রাম্প বলেন, মধ্যপ্রাচ্যের দেশসহ যেসব অঞ্চলের লোকদের যুক্তরাষ্ট্রের জন্য নিরাপদ মনে হবে না, তাদের অভিবাসন ব্যবস্থা বন্ধ করে দেয়া হবে। তিনি বলেন, মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো থেকে ঢলের মতো মানুষ আসছে। আমরা জানি না তারা কারা, কোত্থেকে এসেছে। তারা যা ভাবছে, আমরা তা বন্ধ করে দিতে যাচ্ছি। এর আগে নির্বাচনপূর্ব সমাবেশে ট্রাম্প বলেছিলেন, যুক্তরাষ্ট্রে মুসলমানদের প্রবেশ সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করে দেয়া হবে। বৃহস্পতিবার সকালের দিকে এক টুইট বার্তায় ট্রাম্প লেখেনÑ ওহাইও স্টেট ইউনিভার্সিটিতে সোমালি শরণার্থী তাদের সদস্য বলে ওই হামলার দায় স্বীকার করেছে আইএস, আমাদের দেশে যার থাকা উচিত নয়। আমেরিকান ইসলামিক রিলেশন্স কাউন্সিল ওহাইওর মর্মান্তিক ঘটনার জন্য ট্রাম্পকে অভিযুক্ত করেছে। তারা বলেছে, ট্রাম্পের ইসলাম-বিদ্বেষী কথাবার্তাই এর জন্য দায়ী। ট্রাম্প ইন্ডিয়ানায় ক্যারিয়ার কর্পোরেশন নামে এক এয়ারকন্ডিশনার নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানান। এ কোম্পানিটি সম্প্রতি এক হাজার কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করেছে। তিনি বলেন, এরা কাজের জন্য মেক্সিকো যেত, তার চেয়ে এটা অনেক ভালো হয়েছে। ইন্ডিয়ানাপলিসে নির্বাচনী প্রচারকালে ট্রাম্প স্থানীয় প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রতি কর্মসংস্থান সৃষ্টির আহ্বান জানিয়েছিলেন এবং যুক্তরাষ্ট্রের যেসব কোম্পানি বিদেশে তাদের ব্যবসা পরিচালনা করছে, তাদের কর ফাঁকির বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার কথাও বলেছিলেন। ক্যারিয়ার কর্পোরেশন ট্রাম্পের ওই নীতির সূত্র ধরেই সম্প্রতি এ ব্যবস্থা নিয়েছে। তারা আরও এক হাজার তিনশো লোকের কর্মসংস্থানের কথা ভাবছে। রয়টাসর্, ওয়েসাইট।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন