শনিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০৮ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

বাবরি মসজিদ অবমাননা মামলার কার্যক্রম বন্ধে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩১ আগস্ট, ২০২২, ১২:০০ এএম

ভারতের সুপ্রিম কোর্ট গতকাল উত্তরপ্রদেশ রাজ্য এবং অন্যদের বিরুদ্ধে ১৯৯২ সালে অযোধ্যায় বাবরি মসজিদ ধ্বংসের ফলে উদ্ভূত অবমাননার কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়েছে। বিচারপতি এস কে কাউলের নেতৃত্বে একটি বেঞ্চ বলেছে, সমস্যাটি এখন নেই, যেটির রায় ২০১৯ সালে হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের পাঁচ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চ ২০১৯ সালের ৯ নভেম্বর অযোধ্যার বিতর্কিত জায়গায় একটি রামমন্দির নির্মাণের পথ পরিষ্কার করে এবং কেন্দ্র সরকারকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে পাঁচ একর জমি বরাদ্দ দিয়ে সেখানে একটি মসজিদ নির্মাণ করে দেয়ার জন্য। অবমাননার কার্যক্রম বন্ধের সময় বেঞ্চ পর্যবেক্ষণে বলেছে, বিষয়টি আগেই শুনানির জন্য আসা উচিত ছিল। আবেদনকারীর পক্ষে উপস্থিত আইনজীবী বিচারপতি এ এস ওকা এবং বিক্রম নাথের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চকে বলেন, অবমাননার আবেদনটি দীর্ঘদিন ধরে বিচারাধীন ছিল এবং আবেদনকারী ২০১০ সালে মারা গিয়েছেন।

বিচারপতি কাউল বলেন, ‘আমি বিষয়টির প্রশংসা করি। এটি আরো আগেই উত্থাপিত হওয়া উচিত ছিল।’ আবেদনকারীর পক্ষে উপস্থিত আইনজীবী বলেছেন যে, ১৯৯২ সালে সুপ্রিম কোর্টের দেওয়া আদেশ লঙ্ঘন করা হয় এবং এর পরে অবমাননার আবেদন করা হয়েছিল। তিনি বলেন, প্রায় ৩০ বছর কেটে গেছে এবং আবেদনকারী বিষয়টি তালিকাভুক্ত করার জন্য বেশ কয়েকটি আবেদন করেছিলেন। ‘আমি তোমার উদ্বেগের প্রশংসা করি, কিন্তু এখন এ বিষয়ে কিছুই করার নেই’। বিচারপতি আরো বলেছেন, আপনি একটি মৃত ঘোড়াকে চাবুক মারতে পারবেন না। ‘আমরা পুরোনো বিষয়গুলো তুলে ধরার চেষ্টা করছি। কেউ হয়তো বাঁচবে, আবার কেউ বাঁচবে না। এখন, আপনার কাছে একটি বৃহত্তর বেঞ্চে একটি সম্পূর্ণ রায় দেওয়া হয়েছে’। বেঞ্চ তার আদেশে উল্লেখ করেছে যে, আবেদনকারী মারা গেছেন এবং ২০১৯ সালের নভেম্বরে একটি সাংবিধানিক বেঞ্চ সমস্যাটি নিষ্পত্তি করেছে। মুঘল সাম্রাজ্যের প্রতিষ্ঠাতা বাবরের নির্মিত ১৬ শতকের বাবরি মসজিদটি ১৯৯২ সালের ৬ ডিসেম্বর একদল উন্মত্ত হিন্দুত্ববাদী ধ্বংস করে ফেলে। সূত্র: দৈনিক সিয়াসাত।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন