বৃহস্পতিবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১৩ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

সারা বাংলার খবর

ভূমিদস্যু জমিরের বিরুদ্ধে প্রবাসীর স্ত্রীর সংবাদ সন্মেলন

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ২:৩৯ পিএম

চট্টগ্রামের চাঁদগাঁও থানার খতিববাড়ী মাহবুব কলোনিতে সন্ত্রাসী দ্বারা এক প্রবাসীর জায়গা জোরপূর্ব দখল ও ভিতরে থাকা ভাড়াটি এবং মহিলা কেয়ারটেকারকে মারধর ও শারীরিকভাবে হেনস্তা করার ঘটনায় আজ শুক্রবার চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন করেছে ভুক্তভোগী প্রবাসীর স্ত্রী কামরুন নাহার।

উক্ত সংবাদ সম্মেলনে প্রবাসীর স্ত্রী বলেন, আজ আপনাদের সামনে উপস্থিত হয়েছি এক ভূমিদস্যু ও তার গংরা চাঁদগাঁও ১৪ নং গ্যারেজ, খতিববাড়ী মুখে রাতের অন্ধকারে আমার স্বামীর জমিতে জোরপূর্বক প্রবেশ করে হামলা, ভাংচুর, কেয়ার টেকারকে কিডন্যাপের প্রতিবাদে এই সংবাদ সন্মেলন। আমার স্বামী মোহাম্মদ হানিফ গ্রামঃ- উরকিরচর থানা রাউজান, জেলা চট্টগ্রাম এর স্থায়ী বাসিন্দা ও দেশের আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। আমি আমার স্বামীর প্রতিনিধি হয়ে আজ আপনাদের সামনে হাজির হয়েছি। আমার স্বামী ও আমার দেবর মোহাম্মদ বাবর ও আমার বাসুর মোহাম্মদ মাহবুবুল আলম। থানা রাউজান, জেলা চট্টগ্রাম। স্থায়ী বাসিন্দা ও দেশের প্রচলিত আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।

গত ৩১ জানুয়ারী ২০১৬ ইং তারিখে চাঁদগাঁও সাব রেজিস্ট্র অফিসে প্রথমে বায়না পরবর্তীতে রেজিস্ট্রীমুলে আমার স্বামী আবু হানিফ আমার দেবর মোহাম্মদ বাবর জমির প্রকৃত মালিক মোহাম্মদ শোয়াইব এর কাছ থেকে জমির মালিকানা স্বত্ব বুঝে নেয়। গত ৬ বছর যাবত আমরা আমাদেন কেনা সম্পত্তিতে ভোগ দখল করে আসছি। গত ০২ সেপ্টেম্বর ২০২২ ইং তারিখে ভূমিদস্যু মোহাম্মদ জমিরউদ্দীন ও আবুল কাসেম গংদের নেতৃত্বে ৪০ থেকে ৫০ জনের সন্ত্রাসী দল আমাদের চাঁদগাঁও থানার ১৪ নং গ্যারাজ সংলগ্ন খতিববাড়ী মুখ মাহবুব কলোনী নামীয় স্থাপনায় হামলা চালায়। এসময় আমাদের ভাড়াটিয়াদের মারধর ও স্থাপনায় থাকা ভাড়াঘরে হামলা ভাংচুর চালায়।

সন্ত্রাসীরা আমার বিদ্যুত লাইন, মিটার, সিসি ক্যামেরা, সেমি-পাকা ঘরের ব্যাপক ক্ষতি সাধন করে। এক পর্যায়ে আমাদের কেয়ারটেকার নাসিমাকে তারা একটি হাইস গাড়িতে তুলে নিয়ে যায় হত্যার উদ্দেশ্য। এসময় কেয়ারটেকারকে জমির ও কাসেম গংদের ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীরা শানীরিকভাবে মারধর করে। নাসিমাকে মেরে ফেলার পরিকল্পনা বুঝতে পেরে কিডনাপকারীদের হাতে পায়ে ধরে প্রাণভিক্ষা চাইলে তাকে কুয়াইশ অক্সিজেন রোডে নির্জন স্থানে ফেলে যায়। আহত অবস্থায় তাকে টহল পুলিশ উদ্ধার করে। আমাদের এই জমির উপর আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকার সত্বেও তারা পরিকল্পিতভাবে হামলা করে।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, এই ঘটনার সুষ্ট বিচারে আমার বড় ভাই (ভাসুর) প্রথমে চাঁদগাঁও থানায পরদিন সাধারণ ডায়েরি ও পরদিন অর্থাত সোমবার জমির উদ্দিন আবুল কাশেম গংদের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করে চাঁদগাঁও থানায়। এই ঘটনার সত্যতা দেশের বিভিন্ন গণ-মাধ্যমে সম্প্রচার ও ছাপানো হয়। পরবর্তীতে মঙ্গলবার রাতে পুলিশ মামলার ৫ আসামীকে গ্রেফতার করে। তবে প্রধান আসামী ভূমিদস্যু জমির ও কাসেম পলাতক থাকায় আমরা ভীতিকর সময় অতিবাহিত করছি। আপনাদের লিখনির মাধ্যমে প্রশাসন ঐ দিনের ন্যাক্কারজনক ঘটনার মুল আসামী জমির ও তার গংদের দ্রুত আইনের আওতায় আনবে বলে আশাবাদব্যক্ত করছি।

এমতাবস্থায় কামরুন নাহার ও তার পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে বলে জানান।অবিলম্বে প্রধান আসামি জমির উদ্দিন ও কাশেমকে গ্রেফতার পূর্বক শাস্তি ও আমার পরিবারের নিরাপত্তার দাবি জানান।এক্ষেত্রে সুষ্ঠু বিচারের জন্য মাননীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন