শুক্রবার ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০৭ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

ইউক্রেনের অগ্রগতি নিয়ে অনিশ্চিয়তায় পশ্চিমা, যুদ্ধ তীব্র হওয়ার আশঙ্কা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ১:১৩ পিএম

বৃহস্পতিবার জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া ভাষণে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি দাবি করেছেন যে, সাম্প্রতিককালে সবচেয়ে বড় সাফল্য পেয়েছে তার বাহিনী। তারা ইউক্রেনের অনেক গ্রাম এবং রাশিয়ার দখলকৃত অঞ্চলের বিশাল অংশ মুক্ত করেছে। ‘সেপ্টেম্বরের শুরু থেকে ইউক্রেনের মোট এক হাজার বর্গকিলোমিটারেরও বেশি ভূখণ্ড মুক্ত করা হয়েছে,’ তিনি বলেছিলেন।

শুক্রবার ইউক্রেনের সামরিক বাহিনী রাশিয়ান সামরিক অভিযানের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ লজিস্টিক হাব ইজিয়াম শহরকে বিচ্ছিন্ন করার জন্য দ্রুত অগ্রসর হচ্ছে বলে দাবি করা হয়েছে। কিন্তু পশ্চিমারা ইজিয়ামের আশেপাশের এলাকায় ইউক্রেনীয় বাহিনীর তেমন কোন অবস্থান খুঁজে পাননি। বরং স্যাটেলাইট ডেটা, স্বাধীন সামরিক বিশ্লেষক এবং ইউক্রেনীয় বাহিনীর ফটো এবং ভিডিওগুলি ইঙ্গিত দেয় যে, তারা দ্রুত ইজিয়ামের উত্তরে আরেকটি লজিস্টিক্যাল হাব কুপিয়ানস্কের দিকে চলে গেছে। এদিকে, রাশিয়ান বাহিনীও তাদের অবস্থান শক্তিশালী করছে। শুক্রবার রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় টেলিগ্রামে বলেছে যে, খারকিভ অঞ্চলকে শক্তিশালী করার জন্য সৈন্য সংখ্যা বৃদ্ধি করা হচ্ছে।

ইউক্রেনীয় এবং পশ্চিমা কর্মকর্তারা সতর্ক করে দিয়েছিলেন যে, ইউক্রেনীয় সেনাদের আক্রমণাত্মক অভিযানগুলো প্রাথমিক পর্যায়ে ছিল। এতে পরিস্থিতি জটিল হয়েছে এবং তারা যতটুকু অগ্রগতি অর্জন করেছে তাও নিরাপদ নয়। ইউক্রেনের অগ্রগতির সমস্ত দাবি স্বাধীনভাবে যাচাই করা যায়নি, এবং ইউক্রেনের পূর্ব এবং দক্ষিণ উভয় অঞ্চলে লড়াইয়ের অবস্থা সম্পর্কে অনেক কিছুই অনিশ্চয়তার মধ্যে ছেয়ে গেছে কারণ কিয়েভের সরকার একটি মিডিয়া ব্ল্যাকআউট প্রয়োগ করে যুদ্ধক্ষেত্রে সাংবাদিকদের প্রবেশাধিকার সীমাবদ্ধ করেছে।

কয়েক মাস ধরে, ইউক্রেনের নেতারা উচ্চস্বরে এবং প্রায়শই বন্দর শহর খেরসনকে ঘিরে দক্ষিণে পাল্টা আক্রমণ চালানোর তাদের অভিপ্রায় ঘোষণা করেছিলেন। এবং তারা এই অঞ্চলে রাশিয়ান সরবরাহ লাইন, গোলাবারুদ ডিপো এবং কমান্ড সেন্টারগুলিকে রকেট দিয়ে আঘাত করার চেষ্টাও করেছিল। তারা শত্রু লাইনের অনেক পিছনে সামরিক ঘাঁটি এবং রাশিয়ান সহযোগীদের উপর গোপন আক্রমণ পরিচালনা করেছিল। কিন্তু তারা এ সপ্তাহ পর্যন্ত বলার মতো কার্যত কিছুই অর্জন করতে পারেনি।

উত্তর-পূর্ব ইউক্রেন থেকে দক্ষিণে কৃষ্ণ সাগর উপকূল পর্যন্ত ১,৫০০ মাইল প্রসারিত ফ্রন্ট লাইনে অধিকৃত অঞ্চল রক্ষা করা রাশিয়ার জন্য একটি বড় চ্যালেঞ্জ। এ এলাকায় ইউক্রেনীয় সেনারা প্রায়শই অনুপ্রবেশ করে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই তারা ব্যর্থ হয়েছে, কিন্তু তারা একেই বড় সাফল্য বলে দাবি করে। মার্কিন জয়েন্ট চিফস অফ স্টাফের চেয়ারম্যান জেনারেল মার্ক এ. মিলি বৃহস্পতিবার বলেছেন যে, ইউক্রেন সাম্প্রতিক দিনগুলিতে হয়তো বাস্তব কিছু অগ্রগতি লাভ করেছে। তবে তিনি যুদ্ধ আরও তীব্র হতে পারে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন এবং ইউক্রেনকে নিয়ে বেশি কিছু প্রত্যাশা না করার কথা বলেছেন।

জার্মানিতে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘খারকিভ থেকে শুরু করে খেরসন পর্যন্ত যুদ্ধ আছে- তার সাথে আক্রমণ এবং প্রতিরক্ষাও আছে। তিনি দাবি করেন, যুক্তরাষ্ট্রের হিমারস মিসাইল ব্যবস্থার কারণে ইউক্রেনীয়রা যুদ্ধে কিছু সুবিধা পাচ্ছে। তবে তিনি জোর দিয়েছিলেন যে, রাশিয়া এখনও যুদ্ধে উল্লেখযোগ্য সুবিধাগুলো ধরে রেখেছে। ‘যুদ্ধ শেষ হয়নি,’ তিনি বলেছিলেন, ‘রাশিয়া একটি বড় দেশ এবং ইউক্রেনের ব্যাপারে তাদের গুরুতর উচ্চাকাঙ্ক্ষা রয়েছে।’ সূত্র: নিউইয়র্ক টাইমস।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন