বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ২১ আশ্বিন ১৪২৯, ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

সারমাট’ ক্ষেপণাস্ত্রকে আরো শক্তিশালী করেছে রাশিয়া

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ১২:০০ এএম

রাশিয়ার আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ‘সারমাট’ সর্বাধুনিক কৌশলী ওয়ারহেড বহন করে। যার ফলে এটি আরও শক্তিশালী হয়েছে। পশ্চিমা বিশ্বে এটি ‘শয়তান’ ক্ষেপণাস্ত্র নামে পরিচিত। জেএসসি মাকেয়েভ ডিজাইন ব্যুরোর সিইও (রসকসমসের একটি সহযোগী) ভøাদিমির দেগতিয়ার এ তথ্য জানিয়েছেন।
দেগতিয়ার বলেন, ‘সারমাট সবচেয়ে উন্নত কৌশলী ওয়ারহেড দিয়ে সজ্জিত।’ ‘ক্ষেপণাস্ত্রটি তার অতুলনীয় গতি, রেকর্ড-ব্রেকিং রেঞ্জ, সর্বোচ্চ নির্ভুলতা এবং ক্ষেপণাস্ত্র-বিরোধী প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ভেদ করার সময় সম্পূর্ণ অভেদ্যতার দিক থেকে অনন্য,’ তিনি বলেন, ‘সারমাট আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র যেকোনো পরিস্থিতিতে উৎক্ষেপণে সক্ষম হবে।’ ‘এর বর্তমান বৈশিষ্ট্য অনুযায়ী, ক্ষেপণাস্ত্রটি যেকোনো অবস্থাতেই তার সাইলো (একটি ভূগর্ভস্থ চেম্বার যেখানে একটি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের জন্য প্রস্তুত রাখা হয়) ত্যাগ করবে এবং ১০০ শতাংশ নিশ্চিততার সাথে তার কাজটি সম্পন্ন করবে। এটির নির্ভরযোগ্যতার মার্জিনটি এতটাই নিখুঁত,’ দেগতিয়ার বলেন।
জুন মাসে, তিনি বার্তা সংস্থা তাসকে বলেছিলেন যে, সারমাটের জন্য সাইলো একটি জটিল প্রকৌশল কাঠামো যা প্রচলিত উচ্চ-নির্ভুল অস্ত্র এবং পারমাণবিক অস্ত্রগুলো দিয়ে হামলার ক্ষেত্রে ক্ষেপণাস্ত্রের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে। দেগতিয়ার সারমাটকে ক্ষেপণাস্ত্র প্রযুক্তিতে ‘মুকুট অর্জন’ হিসাবে বর্ণনা করেছেন। তিনি বিশ্বাস করেন, এই নতুন ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা আগামী ৪০-৫০ বছরের জন্য রাশিয়ার বাহ্যিক হুমকি থেকে নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে।
‘আজকের প্রতিকূল ভূ-রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে, এটি আমাদের দুর্ভেদ্য ঢাল, পারমাণবিক প্রতিরোধের প্রধান কারণ এবং শান্তির গ্যারান্টি,’ তিনি যোগ করেছেন। দেগতিয়ার স্মরণ করেন যে, সারমাট ভয়েভোদা ব্যবস্থাকে প্রতিস্থাপন করবে, যা সোভিয়েত যুগে তৈরি হয়েছিল। নতুন ক্ষেপণাস্ত্র, তিনি জোর দিয়ে বলেন, একটি নতুন প্রজন্মের আইসিবিএম যার দুর্দান্ত পারফরম্যান্স বৈশিষ্ট্য রয়েছে। এ কারণেই একে ইতিমধ্যে ‘ইঞ্জিনিয়ারিং মিরাকল’ এবং ‘রকেট প্রযুক্তিতে মুকুট অর্জন’ বলে অভিহিত করা হয়েছে, দেগতিয়ার বলেছেন।
সরমাটের বৈশিষ্ট্য: সারমাট আইসিবিএম জেএসসি মেকেয়েভ ডিজাইন ব্যুরোতে পরিকল্পিত এবং ক্রসম্যাশ প্ল্যান্টে তৈরি করা হয়েছিল (উভয়টিই রোসকসমসের অনুমোদিত)। বিশেষজ্ঞদের মতে, আরএস-২৮ সারমাট ক্ষেপণাস্ত্র ১০ টন পর্যন্ত এমআইআরভি (একই সাথে অনেকগুলো স্থানে হামলায় সক্ষম ওয়ারহেড) বহন এবং পৃথিবীর যেকোনো স্থানে হামলা করতে সক্ষম। ২০ এপ্রিল আরখানগেলস্ক অঞ্চলের প্লেসেটস্ক কসমোড্রোম থেকে এটির প্রথম উৎক্ষেপণ হয়েছিল। পরীক্ষাটি সফল হয়েছিল। রকেটের ফ্লাইট পথের সমস্ত পর্যায়ে ডিজাইনের বৈশিষ্ট্যগুলি নিশ্চিত করা হয়েছিল। সূত্র : তাস।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন