মঙ্গলবার ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০৪ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

মহানগর

সরকারি হাজিরা ৯ কোটি ৪০ লাখ টাকা ফেরত পাচ্ছেন

হজে অব্যয়িত অর্থ--------

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ৮:৩৮ পিএম

সরকারি হাজিরা চলতি বছর হজে বেঁচে যাওয়া অর্থ ৯ কোটি ৪০ লাখ টাকা ফেরত পাচ্ছেন । সউদ আরবে বাড়ি ও হোটেল ভাড়ার অব্যয়িত অর্থ সরকারি ব্যবস্থাপনায় যাওয়া হাজিরা ফেরত পাবেন। এ ব্যাপারে ধর্ম মন্ত্রণালয় প্রায় সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। আজ বৃহস্পতিবার হজে বেঁচে যাওয়া অর্থ ধর্ম মন্ত্রণালয় থেকে ঢাকার আশকোণাস্থ হজ অফিসের পরিচালক হজের বরাবর প্রেরণ করা হয়েছে। ধর্ম মন্ত্রণালয়ের নির্ভরযোগ্য সূত্র এতথ্য জানিয়েছে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সরকারি ব্যবস্থাপনার ৩ হাজার ৭০০ এর বেশি হাজিকে এ টাকা ফেরত দেয়া হবে। প্যাকেজ-১ এর হাজিরা প্রত্যেকে ৪৭ হাজার ৭২৬ টাকা এবং প্যাকেজ-২ এর হাজিরা ১০ হাজার ২৯৩ টাকা করে ফেরত পাবেন। সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে হাজিদের টাকা দেয়া শুরু হবে। এবার সরকারিভাবে হজে যেতে প্যাকেজ-১ এ ৫ লাখ ৮৬ হাজার ৩৪০ এবং প্যাকেজ-২ এ ৫ লাখ ২১ হাজার ১৫০ টাকা খরচ হয়েছে। বেসরকারিভাবে এজেন্সিগুলোর ‘সাধারণ প্যাকেজ’র মাধ্যমে হজ পালনে খরচ ধরা হয়েছিল ৫ লাখ ২২ হাজার ৭৪৪ টাকা।
ধর্ম মন্ত্রণালয় থেকে হজ পরিচালকের কাছে লেখা এক চিঠিতে ২০২২ সালের হজে অব্যয়িত অর্থ সরকারি ব্যবস্থাপনার হাজিদের ফেরত দেয়ার জন্য কার্যক্রম শুরু করার নিদের্শ দেয়া হয়েছে। ২০২২ সালে সরকারি ব্যবস্থাপনায় যাওয়া প্যাকেজভিত্তিক নিবন্ধিত হাজিদের মধ্যে এ অর্থ আর্থিক বিধি-বিধান অনুসরণ করে চেকের মাধ্যমে বিতরণ শেষে প্রতিবেদন ধর্ম মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর জন্য হজ পরিচালককে অনুরোধ জানানো হয় চিঠিতে।
বেসরকারিভাবে এজেন্সিগুলোর মাধ্যমে হজে যাওয়া ব্যক্তিদের খরচ ফেরতের বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ নেয়া হবে কি না জানতে চাইলে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের জনৈক কর্মকর্তা বলেন, হজ এজেন্সিস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (হাব) নেতাদের ডাকা হয়েছিল। তারা বলেছেন, সরকার লাভ করে না, তাই তারা টাকা ফেরত দিতে পারে, এজেন্সিগুলো তো মুনাফা করে। এছাড়া হিসাব-নিকাশের কাজও শেষ, তাই হাজিদের অর্থ ফেরত দেয়ার কোনো সুযোগ তাদের নেই।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন