বুধবার ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১২ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

রাশিয়ান বাহিনীতে যোগ দিয়েছে ২ লাখেরও বেশি রিজার্ভ সেনা

রুশ পারমাণবিক সামরিক ট্রেনকে চলতে দেখা গেছে যুদ্ধে ইউক্রেনের জয়ের সম্ভাবনা নেই : ইলন মাস্ক :: মাস্কের ওপর ক্ষেপেছেন জেলেনস্কি :: ইউক্রেনীয় যুদ্ধদল খেরসন অঞ্চলে আটকা পড়ে :: ক্র্যাস

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৬ অক্টোবর, ২০২২, ১২:১৫ এএম

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি তার রুশ সমকক্ষের সাথে সরাসরি শান্তি আলোচনা বাতিল করে একটি ডিক্রিতে স্বাক্ষর করেছেন।
রাশিয়া বলেছে যে, পুতিন একটি ‘আংশিক সংহতি’ অভিযান ঘোষণার পর থেকে ২ লাখেরও বেশি রিজার্ভ সৈন্যকে নিয়োগ করা হয়েছে। রাশিয়ার পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ সর্বসম্মতিক্রমে ইউক্রেনের চারটি অঞ্চলকে সংযুক্ত করার পক্ষে ভোট দিয়েছে, কারণ কিয়েভের সৈন্যরা দক্ষিণ ও পূর্ব দিকে অগ্রসর হচ্ছে। পশ্চিমা নিন্দা সত্ত্বেও রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন আনুষ্ঠানিকভাবে দোনেৎস্ক, লুহানস্ক, খেরসন এবং জাপোরিঝিয়াকে রাশিয়ায় ‘অন্তর্ভুক্ত’ করার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে প্রস্তুত। উত্তর কোরিয়া ইউক্রেন থেকে বিচ্ছিন্ন ৪টি রুষভাষী অঞ্চলকে রাশিয়ার সাথে অন্তভুক্তিকে সমর্থন জানিয়েছে।

২ লাখেরও বেশি রিজার্ভ সেনা রাশিয়ান সেনাদের সাথে যোগ দিয়েছে : প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু মঙ্গলবার বলেছেন, ২ লাখেরও বেশি সংরক্ষক আংশিক সংহতকরণে রাশিয়ান সশস্ত্র বাহিনীতে যোগ দিয়েছে। শোইগু বলেছেন, ‘রাশিয়ান ফেডারেশনের প্রেসিডেন্টের [ভøাদিমির পুতিন] একটি ডিক্রি মেনে ২১ সেপ্টেম্বর থেকে দেশে একটি আংশিক সংহতি চলছে। আজ অবধি, ২ লাখেরও বেশি সংরক্ষিত সেনা সশস্ত্র বাহিনীতে যোগদান করেছে’। প্রতিরক্ষা প্রধান বলেছেন, সংরক্ষিতদের প্রয়োজনীয় সেট জামাকাপড় এবং অন্যান্য গিয়ার সরবরাহ এবং তাদের সামরিক পোস্টে বরাদ্দের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। শোইগু বলেন, ‘গঠিত ইউনিটের কর্মীরা আশিটি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র এবং ছয়টি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন’।

শোইগু বলেন, সৈনিকরা যারা তাদের সক্রিয় দায়িত্ব সম্পন্ন করেছেন বা সম্পন্ন করছেন তারা দেশে ফিরে যাবেন এবং ২০০২ সালের পতনের খসড়া নিয়োগকারী ইউনিটগুলোতে পাঠানো হবে যারা ইউক্রেনে রাশিয়ার বিশেষ সামরিক অভিযানে অংশ নিচ্ছে না।

শোইগু বলেছেন, ‘এখন প্রেসিডেন্টের ডিক্রি অনুসারে সামরিক পরিষেবার জন্য নাগরিকদের কল-আপ নভেম্বরে শুরু হবে এবং সক্রিয় দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি অক্টোবর-ডিসেম্বর মাসে হবে। দেশের সমস্ত অঞ্চলে ২,৭০০টিরও বেশি নিয়োগ কমিশন তাদের কাজ শুরু করবে। মোট ১ লাখ ২০ হাজার নাগরিককে ডাকা হবে, বা গত বছরের পতনের তুলনায় ৭,৫০০ জন কম।

রাশিয়ান প্রতিরক্ষা প্রধান যেমন জোর দিয়ে বলেন, ‘সমস্ত নিয়োগপ্রাপ্ত সেনাসদস্য যারা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন বা তাদের সামরিক পরিষেবা শেষ করছেন তারা দেশে ফিরে আসবেন এবং বিশেষ সামরিক অভিযানে জড়িত নয় এমন ইউনিটগুলোতে নতুন নিয়োগপ্রাপ্তদের পাঠানো হবে’।

রুশ পারমাণবিক সামরিক ট্রেনকে চলতে দেখা যায় : মিডিয়া জানিয়েছে, রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের পারমাণবিক অস্ত্র চালনা বিভাগের সাথে যুক্ত একটি বিশাল মালবাহী ট্রেনের বিশেষজ্ঞ সামরিক সরঞ্জাম চলাচলের ফুটেজ দেখা গেছে, যা প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনের বাহিনীর কাছ থেকে সঙ্ঘাত বৃদ্ধির আশঙ্কা প্রকাশ করেছে।
ডেইলি মেইল জানিয়েছে, রোববার রাশিয়াপন্থি চ্যানেল রাইবার টেলিগ্রাম মেসেজিং অ্যাপে পোস্ট করা একটি ক্লিপে বিপিএম-৯৭ আর্মড পার্সোনেল ক্যারিয়ার (এপিসি) এবং অন্যান্য সামরিক যানবাহনকে মধ্য রাশিয়ার মধ্য দিয়ে ভ্রমণ করতে দেখা গেছে।

এপিসিগুলোকে আরো সক্ষম বুরুজ, শক্তিশালী অ্যামবুশ এবং মাইন-প্রুফ বর্ম এবং একটি বায়ু পরিশোধন ব্যবস্থার সাথে আপগ্রেড করা হয়েছে বলে মনে করা হয় যাতে এর দখলদারদের টেকসই পদাতিক আক্রমণের মুখে কার্যকরভাবে কাজ করার অনুমতি দেওয়া হয়।

এ ধরনের উন্নত সামরিক হার্ডওয়্যার, যার পছন্দগুলো খুব কমই ইউক্রেনের প্রথম সারিতে মোতায়েন করা হয়েছে, কথিত আছে যে, রাশিয়ান এমওডি-এর ১২তম প্রধান অধিদফতরের অন্তর্গত।

এ বিশেষজ্ঞ বিভাগটি স্ট্র্যাটেজিক রকেট ফোর্সেস, একটি রাশিয়ান সামরিক শাখা যা পারমাণবিক ক্ষেপণাস্ত্র নিয়ন্ত্রণ করে এবং পুতিনের পারমাণবিক কর্মসূচির একটি মূল অংশ গঠন করে, স্ট্র্যাটেজিক রকেট ফোর্সের মতো অস্ত্রের স্টোরেজ, রক্ষণাবেক্ষণ এবং সরবরাহের জন্য নিবেদিত, ডেইলি মেইল রিপোর্ট করেছে।
সামরিক বিশ্লেষক কনরাড মুসিকা দাবি করেছেন যে এই ধরনের ইউনিট মোতায়েনের ফলে রাশিয়ার উষ্ণতাপ্রবণ প্রেসিডেন্টের কাছ থেকে সঙ্ঘাতের আসন্ন বৃদ্ধির ইঙ্গিত হতে পারে বা বড় আকারের পারমাণবিক মহড়ার অগ্রদূত হতে পারে।

এটি আসে যখন ন্যাটো সদস্য দেশগুলোকে সতর্ক করে যে, রাশিয়ার অত্যাধুনিক বেলগোরোড পারমাণবিক সাবমেরিন তার শ্বেত সাগরের ঘাঁটি ছেড়ে চলে গেছে, অন্যদিকে পুতিনের মূল মিত্র রমজান কাদিরভ বলেছেন যে, রাশিয়ার সামরিক বাহিনীকে ‘কম ফলনের পারমাণবিক অস্ত্র’ ব্যবহার করা উচিত। মুজিকা বলেন, পরমাণু-চালিত ইউনিটের ভারী সামরিক হার্ডওয়্যার চলাচলের মানে এই নয় যে, রাশিয়া ইউক্রেনে পারমাণবিক অস্ত্র মোতায়েনের প্রস্তুতি নিচ্ছে।

তবে তিনি বলেন যে, এটি পশ্চিমের কাছে একটি সঙ্কেত হতে পারে যে, মস্কো সঙ্ঘাতকে বাড়িয়ে তুলছে, যোগ করে যে রাশিয়ার স্ট্র্যাটেজিক রকেট ফোর্সেস (আরভিএসএন) শরৎকালে ব্যাপক প্রশিক্ষণ ড্রিলের মধ্য দিয়ে যেতে পরিচিত।

আরভিএসএন হল রাশিয়ার সশস্ত্র বাহিনীর একটি শাখা যা দেশের পারমাণবিক প্রতিরক্ষা এবং প্রতিরোধ কর্মসূচির ভিত্তিপ্রস্তর গঠন করে, যা বিশ্বের বৃহত্তম এবং সবচেয়ে উন্নত, ডেইলি মেইল জানিয়েছে।
এটি কয়েক ডজন মিসাইল রেজিমেন্টের সমন্বয়ে গঠিত যারা একসাথে হাজার হাজার পারমাণবিক অস্ত্র, আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র (আইসিবিএম) নিয়ন্ত্রণ করে এবং তাদের উৎক্ষেপণ কেন্দ্রগুলির রক্ষণাবেক্ষণ ও সুরক্ষার জন্য দায়ী।

যুদ্ধে ইউক্রেনের জয়ের সম্ভাবনা নেই -ইলন মাস্ক : বিশ্বের শীর্ষ ধনী ইলন মাস্ক টুইটারে লিখেছেন, রাশিয়ার সাথে যুদ্ধে ইউক্রেনের জয়ী হওয়ার সম্ভাবনা নেই। তিনি টুইটারে লিখেছেন, ‘রাশিয়া আংশিক সেনা সমাবেশ করছে। ক্রিমিয়া ঝুঁকিতে থাকলে তারা পূর্ণ যুদ্ধে সংগঠিত হবে। উভয় পক্ষের মৃত্যু হবে বিধ্বংসী’। ‘রাশিয়ার জনসংখ্যা ইউক্রেনের তিনগুণ, তাই সর্বাত্মক যুদ্ধে ইউক্রেনের জয়ের সম্ভাবনা কম। আপনি যদি ইউক্রেনের জনগণের কথা চিন্তা করেন, তাহলে শান্তির সন্ধান করুন’ মাস্ক যোগ করেন। এর আগে তিনি ইউক্রেনে শান্তির বিকল্প নিয়ে একটি টুইটার পোল শুরু করেছিলেন।

মাস্কের ওপর ক্ষেপেছেন জেলেনস্কি : দেখতে দেখতে আট মাস হয়ে গিয়েছে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের। কিন্তু এখনও থামেনি লড়াই। এহেন পরিস্থিতিতে এবার আসরে অবতীর্ণ মার্কিন ধনকুবের এলন মাস্ক। কিন্তু শান্তি ফেরাতে তার দেয়া প্রস্তাবে ক্ষুব্ধ ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি। আসলে এই সংঘর্ষের নিষ্পত্তি করতে জনমত সংগ্রহের কথা বলেছেন টেসলার মালিক। আর তাতেই রেগে গিয়েছেন জেলেনস্কি। তীব্র সমালোচনা করেছেন মাস্কের।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞাকে উড়িয়ে দিয়ে ক্রিমিয়ার মতোই পূর্ব ইউক্রেনের দখলকৃত অংশে গণভোট করিয়েছে রাশিয়া। ওই চার অঞ্চলেই ভোট মস্কোর পক্ষে গেছে বলে দাবি পুতিন বাহিনীর। যদিও ওই গণভোটের তীব্র বিরোধিতা করেছে কিয়েভ। প্রতিবাদে মুখর হয়েছে পশ্চিমা দেশগুলোও। মাস্কের প্রস্তাব, ওই চার অঞ্চলে এবার জাতিসংঘের তত্ত্বাবধানে নির্বাচন হোক। পাশাপাশি ২০১৪ সালে রাশিয়ার দখল করা ক্রিমিয়াকে আনুষ্ঠানিক ভাবে রাশিয়ার অধিকৃত অঞ্চলের স্বীকৃতি দিক ইউক্রেন।

আর মাস্কের এমন প্রস্তাবেই চটেছেন জেলেনস্কি। তিনি পালটা একটি গণরায় চেয়েছেন টুইটারে। তার প্রশ্ন, ‘আপনি কোন ইলন মাস্ককে বেশি পছন্দ করবেন? যিনি ইউক্রেনকে সমর্থন করেন নাকি যিনি রাশিয়াকে সমর্থন করেন?’ কেবল জেলেনস্কিই নন, ইউক্রেন প্রশাসনের অন্যান্যরাও রীতিমতো ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন। এই পরিস্থিতিতে সংবাদ সংস্থা এএফপিকে মাস্ক জানিয়েছেন, রাশিয়া যদি পুরোদস্তুর যুদ্ধের পথে হাঁটে, তাহলে দুই দেশেরই বহু মানুষ মারা যাবেন। তার প্রস্তাব, ‘ইউক্রেনকে যুদ্ধে কখনোই জিততে পারবে না। যদি আপনারা ইউক্রেনের মানুষের পরোয়া করেন, শান্তির দাবি তুলুন।’

এদিকে, গণভোট নিয়ে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি আগেই জানিয়েছিলেন, অধিকৃত অঞ্চলে যদি গণভোট হয়, তা হলে আলোচনার সমস্ত পথ বন্ধ হয়ে যাবে। এমনটা কোনওভাবেই মেনে নেবে না ইউক্রেন ও তার মিত্র দেশগুলি। কিন্তু সেই হুমকি উড়িয়ে দিয়েছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন। ফলে পরিস্থিতি যেদিকে যাচ্ছে তাতে আগামিদিনে যুদ্ধের ঝাঁজ যে আরও বাড়তে পারে, সেই উদ্বেগ রয়েছে ওয়াকিবহাল মহলের।

ইউক্রেনীয় ভূখণ্ড দখলে উত্তর কোরিয়ার সমর্থন পেল রাশিয়া : ইউক্রেনের কাছ থেকে ছিনিয়ে নেয়া চার অঞ্চলকে রাশিয়ায় যুক্ত করেছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন। এ ঘটনায় রাশিয়া পশ্চিমা সমালোচনার মুখে পড়লেও সমর্থন পেয়েছেন উত্তর কোরিয়ার কাছ থেকে। ইউক্রেনের কিছু অংশকে রাশিয়ায় সংযুক্তির ঘোষণাকে সমর্থন করার কথা জানিয়ে মঙ্গলবার উত্তর কোরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় যুক্তরাষ্ট্রকে অন্য দেশের বিষয়ে হস্তক্ষেপের সময় ‘গ্যাংস্টারের মতো দ্বৈত ভূমিকা’ পালনের অভিযোগ করেছে। উত্তর কোরিয়ার সরকারি সংবাদমাধ্যম দ্য কোরিয়ান সেন্ট্রাল নিউজ এজেন্সি (কেসিএনএ) মস্কোর দাবিকে সমর্থন করে জানিয়েছে, ইউক্রেনের এ অঞ্চলগুলো রাশিয়ার অংশ হওয়ার বিষয়টি নিজেরাই (ভোটের মাধ্যমে) বেছে নিয়েছে।

ইউক্রেনীয় যুদ্ধদল খেরসন অঞ্চলে আটকা পড়ে : মঙ্গলবার আঞ্চলিক সামরিক-বেসামরিক প্রশাসনের উপ-প্রধান কিরিল স্ট্রিমাসভ বলেছেন, ইউক্রেনের যুদ্ধদল যেটি খেরসন অঞ্চলের দুদচানি গ্রামের দিকে অগ্রসর হয়েছিল তা রাশিয়ান বাহিনীর স্থাপন করা ফায়ার পকেটে আটকা পড়েছিল। তিনি তার টেলিগ্রাম চ্যানেলে পোস্ট করা একটি ভিডিওতে বলেছেন, ‘দুদচানি এলাকায়, ইউক্রেনীয় নিও-নাৎসিদের অগ্রগতি কার্যত বন্ধ হয়ে গেছে এবং এখন বিমান এবং কামান যারা রাশিয়ান ফেডারেশনের সার্বভৌম ভূখণ্ডে অনুপ্রবেশ করেছিল তাদের সকলকে ফায়ার পকেটে চূর্ণ করা শেষ করছে’।

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের মুখপাত্র লেফটেন্যান্ট-জেনারেল ইগর কোনাশেনকভ সোমবার রিপোর্ট করেছেন যে, অপ্রতিরোধ্য ইউক্রেনীয় সাঁজোয়া ইউনিটগুলো খেরসন অঞ্চলের জোলোটায়া বালকা এবং আলেকসান্দ্রোভকার কাছে রাশিয়ান সেনাবাহিনীর প্রতিরক্ষায় প্রবেশ করেছে।

ক্র্যাসনি লিমানের কাছাকাছি যোগাযোগ লাইন বরাবর পরিস্থিতি স্থিতিশীল, ডিপিআর নেতা : দোনেৎস্ক পিপলস রিপাবলিক (ডিপিআর) নেতা ডেনিস পুশিলিন মঙ্গলবার চ্যানেল ওয়ানকে বলেছেন, ক্র্যাসনি লিমানের নির্দেশে যোগাযোগের লাইন বরাবর পরিস্থিতি স্থিতিশীল হচ্ছে। ‘সেখানে সামনের সারির পরিস্থিতি স্থিতিশীল হচ্ছে। শত্রু অবশ্যই ভেদ করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে, কিন্তু তাদের বাহিনী আগের মতো নেই, কারণ আর্টিওমোভস্ক এবং সøাভিয়ানস্কের কাছাকাছি থেকে নির্দিষ্ট রিজার্ভ টেনে নেওয়া হয়েছে’ তিনি যোগ করে বলেন: ‘মিত্র বাহিনী একটি ভাল কাজ করেছেন’।

ডিপিআর নেতা বলেছেন, মিত্র বাহিনী ক্র্যাসনি লিমানের উত্তর-পূর্বে অবস্থিত লুগানস্ক পিপলস রিপাবলিক (এলপিআর) এর ক্রেমেনায়ার কাছে একটি প্রধান প্রতিরক্ষা লাইন তৈরি করছে। তিনি জানিয়েছেন, ‘আমি যে তথ্য পেয়েছি তার ভিত্তিতে শত্রুরা [ক্রেমেনায়ার দিকে অগ্রসর হওয়ার] সুযোগ দাঁড়াতে পারে না’।

ডিপিআর নেতা আরো বলেছেন যে, ইউক্রেনীয় বাহিনী আর্টিওমভস্কের (ইউক্রেনীয় নাম বাখমুত) নির্দিষ্ট এলাকায় পিছু হটছে, যখন মিত্রবাহিনী সেখানে অবস্থান নিচ্ছে। ইউক্রেনীয় সৈন্যরা আর্টিওমভস্কের দিক থেকে মজুদ টেনে নিয়েছিল, যখন তারা ক্র্যাসনি লিমান আক্রমণ করেছিল, তিনি উল্লেখ করেছিলেন।

এর আগে, এলপিআর পিপলস মিলিশিয়া অফিসার আন্দ্রে মারোচকো তাস-কে বলেন যে, ইউক্রেনীয় বাহিনী প্রতিরক্ষা ভেদ করার চেষ্টা করছে, প্রচুর ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে, কিন্তু সেদিকের পরিস্থিতি এখনও মিত্র বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে ছিল। রাশিয়ান প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র লেফটেন্যান্ট-জেনারেল ইগর কোনাশেনকভ গত ১ অক্টোবর বলেন যে, ঘেরাও এড়াতে মিত্র সৈন্যদের ক্রাসনি লিমান থেকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। সূত্র : আল-জাজিরা, তাস, এএফপি, বিবিসি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন