মঙ্গলবার ০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১১ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

সামনে সুদিন আসছে, সকলকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে : আলেম-ওলামাদের উদ্দেশে এ এম এম বাহাউদ্দীন

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৬ অক্টোবর, ২০২২, ১২:১৫ এএম | আপডেট : ১২:২৬ পিএম, ৬ অক্টোবর, ২০২২

মাদরাসা শিক্ষক-কর্মচারীদের অরাজনৈতিক সংগঠন বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের সভাপতি ও দৈনিক ইনকিলাব সম্পাদক আলহাজ্ব এ এম এম বাহাউদ্দীন বলেছেন, দেশ এবং সমাজে ভয়াবহ সঙ্কট সৃষ্টি হয়েছে। খুন, ধর্ষণ, মাদকসহ নানা ধরণের অপরাধ বাড়ছে। খোদ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, পুলিশ, আমলা, বড় বড় ব্যবসায়ী এবং শিক্ষকরা এর সাথে জড়িত। নারীরাও বিভিন্ন অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে, তারা তাদের সন্তানকে হত্যার মতো ঘটনা ঘটাচ্ছে। এই সময়ে সমাজে আলোকবর্তিকা হিসেবে আলেমদেরই কাজ করতে হবে।

তিনি বলেন, সামনে আলেম-ওলামাদের সুদিন আসছে, সঙ্কটে নিপতিত ও পঁচে যাওয়া এই সমাজ পুনর্গঠনে আগামী দিনে তাদেরকেই ঘর থেকে ডেকে ডেকে দায়িত্ব দেয়া হবে। সেই সময়ের জন্য এখন থেকেই সকলে ঐক্যবদ্ধ থেকে প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হবে, নিজেদের তৈরি করতে হবে।

গতকাল বুধবার সকালে রাজধানীর মহাখালিস্থ গাউসুল আজম কমপ্লেক্সে বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদার্রেছীন ঢাকা মহানগরীর উদ্যোগে আয়োজিত প্রতিনিধি সম্মেলন ও সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মাদরাসা শিক্ষা নিয়ে ষড়যন্ত্রের কথা তুলে ধরতে গিয়ে জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের সভাপতি বলেন, আজকে মাদরাসার প্রশাসনিক কাজে একজনও আলেম নেই। এই দর্শনটা আগে থেকেই ছিল, এখন এটিকে আরও মজবুত করা হয়েছে। কিন্তু যারা এটা করছেন তারা আগামীতে থাকবেন না। মাদরাসা থাকবে, ইসলামী শিক্ষা থাকবে, জমিয়াতুল মোদার্রেছীন আরও শক্তিশালী হবে। তিনি বলেন, যারা এখন এসব করছে তারাই সামনের দিনে আলেমদের ডেকে ডেকে দায়িত্ব দিবে। সেই সময়ের জন্য আমরা তৈরি কিনা সেটা এখন ভাবতে হবে। এজন্য আলেমদের প্রস্তুত করতে হবে, মাদরাসায় ছাত্রছাত্রী বাড়াতে হবে। সমস্ত শিক্ষককে সাথে নিয়ে ইসলামী সমাজ ও রাষ্ট্র কিভাবে ঠিক থাকবে সেটা নিয়ে কিভাবে কাজ করতে পারি ভাবতে হবে। দরবারগুলোর সাথে সম্পৃক্ততা আরও বাড়াতে হবে। ছাত্রছাত্রীদের সাথে যোগাযোগ বাড়াতে হবে। আগামী দিনের যোগ্য নাগরিক হিসেবে তৈরি করতে হবে। সামনে সুদিন আসছে, সকলকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। ষড়যন্ত্র যারা করার তারা তাদের কাজ করুক আমরা আমাদের কাজ করি। জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের অগ্রযাত্রা রুখে দিতে অতীতে অনেক ষড়যন্ত্র হয়েছে কিন্তু সকল বাধা অতিক্রম করে জমিয়াত এগিয়ে গেছে।

এ এম এম বাহাউদ্দীন বলেন, আলেম-ওলামাদের এখন ভয় পাওয়ার কোন কারণ নেই, সময়ের কারণে এখন তাদের গুরুত্ব অনেক বেশি। তিনি বলেন, এই আলেম-ওলামাগণই সমাজ গঠনে বিনা স্বীকৃতিতে কাজ করছেন। তারা নৈতিকতা সম্পন্ন এমন মানুষ তৈরি করছেন যারা সরকারি-বেসরকারি ও সমাজের বিভিন্ন স্তরে সততা, যোগ্যতা ও দক্ষতার স্বাক্ষর রাখছে। মাদরাসা শিক্ষায় শিক্ষিত ছাত্রীরা যোগ্য মা হিসেবে তৈরি হচ্ছে।

রাষ্ট্র ও সমাজ গঠনে অভিজ্ঞ অবসরপ্রাপ্তদের গুরুত্ব ও ভূমিকার কথা তুলে ধরে দৈনিক ইনকিলাব সম্পাদক বলেন, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর জাপান যখন পারমানবিক বোমার আঘাতে ধ্বংস হয়ে গিয়েছিল তখন তারা অবসরপ্রাপ্ত জেনারেল, বিজ্ঞানী, শিক্ষকদের নিযুক্ত করেছিল। আজকে জাপানের যে উত্থান সেটার পেছনে সেই অবসরপ্রাপ্তদের অবদান ছিল। তাদের সেই কৌশল ৭০’র দশকে অনুসরণ করে চীন। চীন আবার জাপানের অবসরপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের এনে তাদেরকে কাজে লাগিয়ে টেকনোলজিতে সমৃদ্ধ হয়ে এখন জাপানের চেয়ে এগিয়ে গেছে।

জমিয়াতুল মোদার্রেছীনেও অভিজ্ঞদের সমাজ ও ইসলামী শিক্ষার উন্নয়নে কাজে লাগানোর কথা জানিয়ে তিনি বলেন, জমিয়তে অনেক অভিজ্ঞ ব্যক্তি রয়েছেন, যারা জ্ঞান, অভিজ্ঞতা, যোগ্যতায় সমৃদ্ধ। তাদের কাজে লাগাতে হবে। জমিয়াতুল মোদার্রেছীন শুধু বেতন-ভাতা আদায়ের জন্য বার্গেনিং এজেন্ট না। এটা আলেম-ওলামাদের তাহজিব, তামাদ্দুন, ইসলামী শিক্ষা, ভাবধারা, মূল ধারা ঠিক রাখার জন্য একটি সংগঠন।

বিশ্বব্যাপীই ক্ষমতার পুনগর্ঠন হচ্ছে এবং মুসলমানরা শক্তিশালী হচ্ছে জানিয়ে জমিয়াত সভাপতি বলেন, যুদ্ধের কারণে সারাবিশ্বের সম্পদ ও ক্ষমতা পুননির্ধারণ হচ্ছে। আগামী দিনের অর্থনীতি চলবে সেটি নতুন ধারা চালু হচ্ছে। কয়েকজন ব্যক্তিই এটি করছে। আমেরিকান-ইউরোপিয়ানরা চীন-রাশিয়া নিয়ে উদ্বিগ্ন না, তারা উদ্বিগ্ন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিন পিং, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনকে নিয়ে।

তিনি বলেন, মুসলমানরা এখন সম্পদে ক্ষমতায় শক্তিশালী হচ্ছে। গত ৬-৭ মাসে আরব উপসাগরীয় অঞ্চলের দেশগুলোতে ১ ট্রিলিয়ন ডলার রিজার্ভ হয়েছে। আগামী ২ বছর পর আরও সাড়ে ৩ ট্রিলিয়ন ডলার তাদের অতিরিক্ত আসবে। গত কয়েকবছর ধরে বলা হচ্ছিল তুরস্কের অর্থনীতি ভেঙে চুরে গেছে। এখন দেখা যাচ্ছে ডলারের বিরুদ্ধে সমস্ত দেশের এমনকি যুক্তরাজ্যের মুদ্রাও যখন পড়ে গেছে তখন কিন্তু লিরার দাম বেড়ে গেছে। এরদোগান আরও শক্তিশালী হয়েছে সম্পদে, ক্ষমতায় এবং পলিসিতে। বিশ্বব্যাপী আল্লাহ তা’আলা সম্পদ মুসলমানদের হাতে দিয়ে দিয়েছে। আফ্রিকার দেশগুলোতে প্রাকৃতিক এতো সম্পদ দিয়ে দিয়েছে। এখন এগুলো কাজে লাগছে।

ইনকিলাব সম্পাদক বলেন, বিশ্বে এখন যারা শক্তিশালী হচ্ছে তারা সকলেই সুন্নী ধারার। বাংলাদেশেও সুন্নীদের বাইরে যাওয়ার সুযোগ নেই। ২০০৫ সালে বলেছিলাম জামায়াতে ইসলামীর সাইনবোর্ড বাংলাদেশে থাকবে না। ওই ধারা আর এখানে আসবে না। পাকিস্তানে ইমরান খান, আফগানিস্তানে তালিবানরা হানাফি, মধ্য এশিয়াতে সবগুলো রাষ্ট্রই হানাফি, চেচেন ও তাজিকিস্তানের মুলসলমানরা সুন্নি, পুরো আফ্রিকান সুন্নী, উপসাগরীয় আরব দেশগুলো সুন্নী ধারার। পাকিস্তান, আফগানিস্তানসহ এই অঞ্চলে যারা উগ্রতার ধারা সৃষ্টি করেছিল তারা এখন আর নেই। সিরিয়াতে আসাদকে কম্প্রোমাইজ করতে হচ্ছে এরদোগানের সাথে।

জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা শাব্বীর আহমদ মোমতাজী বলেন, মাদরাসা শিক্ষকদের দীর্ঘদিনের যেসকল দাবি-দাওয়া ছিল তার সবই জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের নেতৃত্বে পুরণ হয়েছে। এখন স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসা শিক্ষকরা বেতন পাচ্ছে না, সংযুক্ত মাদরাসার শিক্ষার্থীরা উপবৃত্তি পাচ্ছে না। এগুলোও সামনের দিনে পুরন হয়ে যাবে।

তিনি বলেন, এই সংগঠন ওলিদের সংগঠন। এর নেতারা পরীক্ষিত। তাই অনেকে জমিয়াতের নেতাদের নানারকম প্রলোভন দেখিয়েও কোন লাভ হয়নি। দেশের সকল পর্যায়ের আলেম-ওলামা, পীর-মাশায়েখগণ আমাদের সাথে আছেন। সকলে মিলে মাদরাসা শিক্ষার উন্নয়নে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে যাবো।

ঢাকা মহানগর জমিয়াতের সভাপতি অধ্যক্ষ মাওলানা আ খ ম আবুবকর সিদ্দিকের সভাপতিত্বে ও কেন্দ্রীয় জমিয়াতের দপ্তর সম্পাদক অধ্যক্ষ মাওলানা ইজহারুল হকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন- মহানগর জমিয়াতের সেক্রেটারি অধ্যক্ষ মাওলানা আবু জাফর মো. ছাদেক হাসান।

এছাড়া আরও বক্তব্য রাখেন- কেন্দ্রীয় জমিয়াতের সিনিয়র সহ-সভাপতি কবি মাওলানা রুহুল আমীন খান, ঢাকা মহানগর জমিয়াতের উপদেষ্টা অধ্যক্ষ মাওলানা মো. তাজুল আলম, অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুর রাজ্জাক, সাংগঠনিক সম্পাদক ড. ইদ্রিস খান, ঢাকা জেলার সভাপতি অধ্যক্ষ মাওলানা আবু জাফর মোঃ ছালেহ্, ঢাকা মহানগরের সহ-সভাপতি ড. নজরুল ইসলাম আল-মারুফ, শাহ্ মো. মাহমুদুল হাসান ফেরদৌস, অধ্যক্ষ মাওলানা রেজাউল হক, অধ্যক্ষ মাওলানা শরিফ মো. আবু হানিফ, অধ্যক্ষ মাওলানা আবু জাফর মো. হেলাল উদ্দীন, নরসিংদী জেলার সেক্রেটারি অধ্যক্ষ মাওলানা আবু রায়হান চৌধুরী, গাজীপুরের সেক্রেটারি অধ্যক্ষ মাওলানা জহিরুল হক, ভোলা জেলার সেক্রেটারি উপাধ্যক্ষ মাওলানা মোবাশ্বিরুল হক নাঈম, ঢাকা মহানগরের যুগ্ম সম্পাদক অধ্যক্ষ মাওলানা জাহাঙ্গির আলম মজুমদার, উপদেষ্টা সহকারী অধ্যাপক মাওলানা আব্দুল বাতেন, ঢাকা নেছারীয়া কামিল মাদরাসার সাবেক মুহাদ্দিস মাওলানা এ কে এম আব্দুল ওয়াদুদ, সবুজবাগ থানার সভাপতি মাওলানা মো. ওয়ালীউল্লাহ হেলালী।

অনুষ্ঠানে অধ্যক্ষ আ খ ম আবু বকর সিদ্দিককে সভাপতি, অধ্যক্ষ আবু জাফর মো. ছাদেক হাসনকে সেক্রেটারী ও অধ্যক্ষ ইজহারুল হককে সাংগঠনিক সম্পাদক করে ১০৭ সদস্য বিশিষ্ট ঢাকা মহাগনরী কমিটি গঠন করা হয়।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (35)
Ezharul Hoque ৬ অক্টোবর, ২০২২, ৭:৫১ পিএম says : 0
আপনার নেতৃত্বে বাংলাদেশে ইসলামী শিক্ষা সংস্কৃতি বিশেষকরে মাদ্রাসা শিক্ষার অগ্রগতি ও উন্নতি হবে এটা আমরা মনেপ্রাণে বিশ্বাস করি।
Total Reply(0)
A Mannan Bablu ৬ অক্টোবর, ২০২২, ৭:৫৭ পিএম says : 0
আল্লাহ কবুল করুন
Total Reply(0)
দেলোয়ার বাবু ৬ অক্টোবর, ২০২২, ৭:৫৭ পিএম says : 0
আল্লাহতায়ালা কোরআন মজিদের বিভিন্ন আয়াতে বার বার বিভিন্নভাবে ঐক্যের জন্য তাগিদ করেছেন এবং বিচ্ছিন্নতা, বিভেদ ও অনৈক্যকে বিপজ্জনক এবং মুশরিকদের ও জাহিলিয়াত যুগের বৈশিষ্ট্য হিসেবে উল্লেখ করে তা থেকে দূরে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন। মুসলিম উম্মাহর একত্ব সম্পর্কে কোরআন মজিদে ইরশাদ হচ্ছে, ‘তোমাদের এ উম্মাহ্ নিঃসন্দেহে এক অভিন্ন উম্মাহ। আর আমিই তোমাদের রব; অতএব তোমরা আমারই দাসত্ব-আনুগত্য কর। আর তারা (অনৈক্যের নায়করা) তাদের বিষয়কে (দ্বীনকে) পারস্পরিকভাবে টুকরো টুকরো ও বিভক্ত করে নিয়েছে। কিন্তু (তাদের এ মারাত্মক কাজ করার আগে মনে রাখা উচিত ছিল যে,) প্রত্যেককেই আমাদের কাছে ফিরে আসতে হবে।’ (আল-আম্বিয়া : ৯২-৯৩)।
Total Reply(0)
খলিল ৬ অক্টোবর, ২০২২, ৪:৩১ এএম says : 0
জামায়াত আছে এবং থাকবে
Total Reply(0)
Sayed Muzaffar Ahmad ৬ অক্টোবর, ২০২২, ৭:৫১ পিএম says : 0
মাশাআল্লাহ- যুগোপযোগী গঠনমূলক চমৎকার গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা করার জন্য জমিয়তুল মোদার্রেসীন সভাপতিকে ধন্যবাদ জানাই।
Total Reply(0)
Principal Shafikul Amin ৬ অক্টোবর, ২০২২, ৭:৫১ পিএম says : 0
সকল নেতৃবৃন্দকে কুমিল্লা মহানগর জমিয়তের পক্ষ থেকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন
Total Reply(0)
Muhammad Shoaib ৬ অক্টোবর, ২০২২, ৭:৫২ পিএম says : 0
সকল নেতৃবৃন্দ কে ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের পক্ষ থেকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জ্ঞাপন করছি।
Total Reply(0)
Mohammed Barkot ৬ অক্টোবর, ২০২২, ৭:৪৯ পিএম says : 0
ইনশাআল্লাহ জয় হবেই।
Total Reply(0)
J Alam Khan ৬ অক্টোবর, ২০২২, ৭:৫৮ পিএম says : 0
দ্বীনের কাজ বা কোনো ভালো উদ্দেশ্যে মুমিনদের মধ্যকার কিছু লোক যদি দলবদ্ধ বা সংঘবদ্ধ হয় এবং তা যদি মুসলিম উম্মাহর বৃহত্তর ঐক্যে ফাটল না ধরায় এবং তারা তাদের দ্বীন থেকে খারেজ বা বাতিল বলে গণ্য না করে তাহলে এ ধরনের সংঘবদ্ধতা নিন্দিত দলাদলি বা বিভক্তি বলে গণ্য হবে না। এটা মূলত ঐক্যের মধ্যে থেকেও কাজ ও অঙ্গনের বিভক্তি, যা দোষণীয় নয়। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্য, বর্তমানে মুসলিম উম্মাহর মধ্যে যত রকমের দ্বীনি ও বৈষয়িক দল, গোষ্ঠী ও সংগঠন রয়েছে নগণ্যসংখ্যক ব্যতিক্রম বাদে প্রায় সবার মধ্যে নেতিবাচক ও অবাঞ্ছিত বৈশিষ্ট্যগুলোই বিদ্যমান। এ থেকে বাঁচতে হবে।
Total Reply(0)
Jamal Hossain Mizi ৬ অক্টোবর, ২০২২, ৭:৫৯ পিএম says : 0
১৯২৪ সালের ৩ মার্চ খেলাফত বিলুপ্ত হওয়ার কারণেই আজ মুসলমানদের এমন দুরবস্থা ৷ আমাদের উচিত মুসলিম দেশসমূহে ইসলামি শিক্ষা ও ইসলামি ইমারত প্রতিষ্ঠা করে আবার খেলাফত ব্যবস্থায় ফিরে আসা ৷
Total Reply(0)
Jamal Uddin ৬ অক্টোবর, ২০২২, ৭:৫৯ পিএম says : 0
আমার দেখা পত্রিকার মধ্যে দৈনিক ইনকিলাব পত্রিকাটি ইসলামের সটিক তথ্য তুলে ধরে..! শুভ কামনা রইলো দৈনিক ইনকিলাবের প্রতি..!
Total Reply(0)
মেহের আলী ৬ অক্টোবর, ২০২২, ১২:৫৬ এএম says : 0
শুকরিয়া স্যার। মুসলিম উম্মাহর ঐক্য এখন জরুরী বিষয়||| মহান আল্লাহ বলেন- তোমরা একত্রিত হয়ে আল্লাহর রজ্জুকে (আল-কোরআন তথা আল্লাহর দ্বীনকে দৃঢ়ভাবে আঁকড়ে ধর এবং দলাদলিতে লিপ্ত হয়ো না।( সুরা আলে-ইমরান:১০৩)
Total Reply(0)
Idris Khan ৬ অক্টোবর, ২০২২, ৭:৫১ পিএম says : 0
ইনশাআল্লাহ খুব শীগ্রই ভাল ফলাফল আসতে শুরু হবে।
Total Reply(0)
Md Akbar Hussain ৬ অক্টোবর, ২০২২, ৭:৫২ পিএম says : 0
এভাবে ঐক্যবদ্ধ হলে সুদিন আরও দুর্দিনে পরিণত হবে। প্রকৃতঅর্থে ঐক্যবদ্ধ হওয়া প্রয়োজন।
Total Reply(0)
কুদ্দুস তালুকদার ৬ অক্টোবর, ২০২২, ১২:৫১ এএম says : 0
মাদ্রাসা শিক্ষার জন্য আপনাদের এই খেদমতকে আল্লাহ কবুল ও মঞ্জুর করুক, আমিন
Total Reply(0)
মমতাজ আহমেদ ৬ অক্টোবর, ২০২২, ১২:৫১ এএম says : 0
এদেশে প্রকৃত যারা আলেম-ওলামা, পীর-মাশায়েখ, ইসলাম সমাজ যারা প্রতিষ্ঠা করতে চায় তাদের কোন পৃষ্টপোষক দরকার হবে না। এসব আলেমদেরকে রাষ্ট্রের প্রয়োজন হচ্ছে, আগামী দিনেও হবে। তাদের মাধ্যমেই ইসলামী সমাজ, ও রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা হবে।
Total Reply(0)
মাহফুজ আহমেদ ৬ অক্টোবর, ২০২২, ১২:৫১ এএম says : 0
বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের নেতৃত্বেই এদেশের আলেম সমাজ ঐক্যবদ্ধ হবে। মাদ্রাসা শিক্ষার বিকাশে ভূমিকা রাখবে।
Total Reply(0)
Md Parves Hossain ৬ অক্টোবর, ২০২২, ১২:৫১ এএম says : 0
ওলামা-মাশায়েখ আলোকিত মানুষ তৈরি করায় সমাজ-দেশ এগোচ্ছে
Total Reply(0)
তানভীর তারিক ৬ অক্টোবর, ২০২২, ১২:৫২ এএম says : 0
অনেক আশা জাগানির কথা। দোয়া করি মুসলিমরা আবার বিশ্বের নেতৃত্ব ফিরে পাক।
Total Reply(0)
কে এম শাকীর ৬ অক্টোবর, ২০২২, ১২:৫২ এএম says : 0
কোরআন ও হাদিসের আলোকে মাদরাসাগুলোর ক্লাসেই সু-শিক্ষা দেয়া হয়। সুশিক্ষা ছাড়া সমাজে ভাল মানুষ তৈরি হয় না। বর্তমান সরকারের সময় দেশের যে উন্নয়ন হচ্ছে তা ধরে রাখতে সমাজে-নের্তৃত্বে সুশিক্ষিত-ভালো মানুষের প্রয়োজনীয়তা অপরিহার্য।
Total Reply(0)
মাহফুজ আহমেদ ৬ অক্টোবর, ২০২২, ১২:৫২ এএম says : 0
বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের নেতৃত্বেই এদেশের আলেম সমাজ ঐক্যবদ্ধ হবে। মাদ্রাসা শিক্ষার বিকাশে ভূমিকা রাখবে।
Total Reply(0)
Md Akbar Hussain ৬ অক্টোবর, ২০২২, ১২:৫২ এএম says : 0
এদেশের ১৬ কোটি ধর্মপ্রাণ মানুষ সেটাই প্রত্যাশা করে।
Total Reply(0)
Antara Afrin ৬ অক্টোবর, ২০২২, ১২:৫২ এএম says : 0
ইসলাম ও আলেম-ওলামাদের বিরুদ্ধে যারাই ষড়যন্ত্র করবে, তারা নিজেরাই নিজেদের ধ্বংস ডেকে আনবে।
Total Reply(0)
সাব্বির আহমেদ ৬ অক্টোবর, ২০২২, ১২:৫২ এএম says : 0
মাদরাসা শিক্ষা ও ইসলামের জন্য আপনার ও আপনার পিতার অবদান এদেশের ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা চিরদিন মনে রাখবে। আপনাদের কাজ আপনারা চালিয়ে যান। এদেশের মানুষ সর্বদাই আপনাদের পাশে আছে। বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়নের জন্য আপনারা যে নিরলস চেষ্টা করে যাচ্ছেন এজন্য আল্লাহ আপনাদেরকে উত্তম জাযাহ দান করুক।
Total Reply(0)
মাজহারুল ইসলাম ৬ অক্টোবর, ২০২২, ১২:৫৩ এএম says : 0
বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদার্রেছীন আপনার নেতৃত্বে মাদ্রাসা শিক্ষা ও শিক্ষকদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলেছে। ভবিষ্যতেও ভূমিকা রাখবে সেটা প্রত্যাশা করছি। পাশাপাশি আপনাদের সফলতা কামনা করছি।
Total Reply(0)
Anwarul Haque Anwar ৬ অক্টোবর, ২০২২, ১২:৫৩ এএম says : 0
সময়োপযোগী বক্তব্য। মাননীয় সম্পাদক সাহেবকে অসংখ্য ধন্যবাদ আজকের অনুষ্ঠানে তাঁর সূ-চিন্তিত ও বাস্তবমুখী বক্তব্য রাখার জন্য।
Total Reply(0)
Md Ali Azgor ৬ অক্টোবর, ২০২২, ১২:৫৩ এএম says : 0
আলেম-ওলামাদের ঐক্য ছাড়া এসব সম্ভব না।
Total Reply(0)
Sharif Ali ৬ অক্টোবর, ২০২২, ১২:৫৩ এএম says : 0
মুসলমারা তখনি পারবে ষখন সব আলেম একমতে আসবে।
Total Reply(0)
Nazmul Huda ৬ অক্টোবর, ২০২২, ১২:৫৩ এএম says : 0
আলহামদুলিল্লাহ্‌, আল্লাহ মুসলমানদের বিভেদ ভূলে একতাবদ্ধ হয়ে জীবন যাপন করার তৌফিক দিন; আমিন।
Total Reply(0)
Zahirul Islam ৬ অক্টোবর, ২০২২, ১২:৫৪ এএম says : 0
Our main problem is that, we can't do any thing for us, because we are not united. If we are united, we will the ruler of the Country.
Total Reply(0)
Md Parves Hossain ৬ অক্টোবর, ২০২২, ১২:৫৪ এএম says : 0
দেশ ও সমাজের এই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি নিয়ে কথা বলায় বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের সভাপতি ও দৈনিক ইনকিলাব সম্পাদক এ এম এম বাহাউদ্দীন সাহেবকে অসংখ্য ধন্যবাদ
Total Reply(0)
H.M. Abu Bakar Siddik ৬ অক্টোবর, ২০২২, ১২:৫৪ এএম says : 0
জঙ্গিবাদ ও মাদকমুক্ত সমাজ কায়েমে মাদ্রাসা শিক্ষা এবং দেশের আলেম সমাজের ভূমিকা অপরিসীম। আগামীদিনে একটি সুন্দর সমাজ তথা ইসলামী সমাজ কায়েমে আলেমদের আরো তৎপর হতে হবে।
Total Reply(0)
Mahbub Rahman ৬ অক্টোবর, ২০২২, ১২:৫৫ এএম says : 0
ওলী আউলিয়াদের হাতে গড়া মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠতাই আমাদের স্বাধীনতার প্রধান নিয়ামক শক্তি। তাদের প্রচারিত শান্তিময় ইসলামী শিক্ষা-সংস্কৃতি এ দেশের রক্ষাকবচ। যত মতপার্থক্যই থাকুক ‘আল্লাহু আকবার’ ধ্বনি আমাদের এক কাতারে এনে দেয়। ইসলাম, দেশপ্রেম ও জাতীয় ঐক্যের ক্ষেত্রে আমাদের আওয়াজ একটাই হবে- আর এটা হচ্ছে ‘আল্লাহু আকবার’।
Total Reply(0)
Anwar Hossain ৬ অক্টোবর, ২০২২, ১২:৫৫ এএম says : 0
এ মুহূর্তে ঐক্যের বিকল্প নেই , আলেম সমাজ সকল ক্ষেত্রেই ভূমিকা রাখছে। ইসলাম, দেশপ্রেম ও জাতীয় ঐক্যের ক্ষেত্রে আমাদের আওয়াজ একটাই হবে- আর এটা হচ্ছে ‘আল্লাহু আকবার’।
Total Reply(0)
মহিব্বুল্লাহ ৬ অক্টোবর, ২০২২, ১২:৫৭ এএম says : 0
100% right. But ইসলামি বিদ্বেষী একটি গোষ্ঠী সবসময়ই বাংলাদেশের মুসলমান ও আলেম সমাজকে সাম্প্রদায়িক ও উগ্রবাদি হিসেবে চিত্রায়িত করতে বিভিন্ন সময় ষড়যন্ত্র করেছে, এখনও করছে, সামনেও করবে। এ বিষয়ে অবশ্যই সতর্ক ও সজাগ থাকতে হবে।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন