বুধবার ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১২ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

পাকিস্তানের সঙ্গে কোনো আলোচনা নয় : অমিত শাহর হুঙ্কার

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৬ অক্টোবর, ২০২২, ৩:১৪ পিএম

পাকিস্তানের সঙ্গে কোনো ধরনের আলোচনা হবে না বলে মন্তব্য করেছেন ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। একইসঙ্গে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদকে উৎসাহিত করার অভিযোগও এনেছেন তিনি। বুধবার (৫ অক্টোবর) ভারত-নিয়ন্ত্রিত জম্মু ও কাশ্মিরে নিজের প্রথম জনসভায় এসব মন্তব্য করেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (৬ অক্টোবর) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস এবং পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম দ্য ডন।
প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারতনিয়ন্ত্রিত জম্মু ও কাশ্মিরকে বিশেষ মর্যাদা প্রদানকারী সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের পর প্রথমবারের মতো কাশ্মিরের বারামুল্লায় বক্তৃতা করেন অমিত শাহ। এসময় শাহ ‘সত্তর বছর ধরে কাশ্মির শাসনকারী তিনটি পরিবারের’ বিরুদ্ধে নিজের ক্ষোভ তুলে ধরেন।
অমিত শাহকে উদ্ধৃত করে ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বলেছে, নির্বাচন কমিশন ভোটার তালিকা সংশোধনের প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার পরই ভারত-নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মিরে বিধানসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

অমিত শাহ সমাবেশে বলেন, ‘কিছু লোক আমাকে পরামর্শ দিচ্ছে যে, আমার পাকিস্তানের সাথে কথা বলা উচিত। যারা এখানে সত্তর বছর ধরে শাসন করেছে তারাও আমাকে এই পরামর্শ দিচ্ছে। কিন্তু আমি পরিষ্কার করে বলতে চাই, আমি পাকিস্তানের সঙ্গে কথা বলতে চাই না। আমি বারামুল্লার গুজ্জর ও পাহাড়িদের সঙ্গে কথা বলব। আমি কাশ্মিরের তরুণদের সঙ্গে কথা বলব।’
তিনি দাবি করেন, ‘তারা (পাকিস্তান) এখানে সন্ত্রাস ছড়িয়েছে। তারা কাশ্মিরের জন্য কী ভালো করেছে।’

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস জানিয়েছে, বহু স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্যে বারামুল্লায় বুধবারের সমাবেশটি অনুষ্ঠিত হয়। এতে ১০ হাজারেরও বেশি লোক অংশগ্রহণ করে। যাদের বেশিরভাগই তাংধর, উরি এবং বান্দিপোরার মতো সীমান্তের নিয়ন্ত্রণ রেখার কাছাকাছি অঞ্চলের বাসিন্দা।
অমিত শাহ তার ২৫ মিনিটের বক্তৃতার একটি বড় অংশ ব্যবহার করেছেন মূলত ‘৭০ বছর ধরে কাশ্মির শাসন করা তিনটি পরিবারের’ নিন্দা জানাতে। যদিও বিজেপি নেতারা প্রায়শই আবদুল্লাহ এবং মুফতিদের পরিবারকে আক্রমণের লক্ষ্যবস্তু করেছেন, তবে এবারই প্রথমবারের মতো গান্ধীদেরও আক্রমণ করেছেন অমিত শাহ।

ভারতীয় এই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমি মেহবুবা (মুফতি) জির একটি টুইট দেখেছি। তিনি বলেছিলেন, কাশ্মিরকে তারা যা দিয়েছে তার হিসাব দেওয়ার পরই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ফিরে যাওয়া উচিত। মেহবুবা জি, কান-চোখে শুনুন, আমরা যা করেছি, তার হিসাব আমি দেব, কিন্তু আপনি এবং ফারুক (আবদুল্লাহ) সাহেব যা করেছেন, আপনাদের সেই হিসাব দেওয়া উচিত।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি এখানে এসেছি আপনাকে জিজ্ঞাসা করতে, মেহবুবা এবং ফারুক সাহেব, আমাদের বলুন গত ৭০ বছরে কাশ্মিরে কত বিনিয়োগ এসেছে, কতগুলো শিল্প স্থাপন করা হয়েছে, কতগুলো কারখানা খোলা হয়েছে এবং কত যুবককে কর্মসংস্থান দেওয়া হয়েছে।’
তার দাবি, ‘(এখানে) গত ৭০ বছরে মাত্র ১৫ হাজার কোটি (রুপি) বিনিয়োগ হয়েছে। আর গত তিন বছরে (প্রধানমন্ত্রী) মোদিজি এখানে ৫৬ হাজার কোটি রুপি বিনিয়োগ এনেছেন।’

অমিত শাহ বলেন, ১৯৯০ সাল থেকে জম্মু ও কাশ্মিরে ‘সন্ত্রাসবাদের কারণে’ ৪২ হাজার মানুষ নিহত হয়েছে। তার দাবি, ‘এই ৪২ হাজার মানুষের মৃত্যুর জন্য কে দায়ী? তিনটি পরিবার, যারা ৭০ বছর ধরে কাশ্মির শাসন করেছে, তারা দায়ী।’
ভারতীয় এই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমরা চাই কাশ্মির থেকে বিচ্ছিন্নতাবাদের ভয় দূর হোক, সন্ত্রাসবাদ দূর হোক এবং কাশ্মির হয়ে উঠুক ভারতের স্বর্গ।’

তার দাবি, কাশ্মির আগে ‘সন্ত্রাসবাদের হটস্পট’ ছিল, কিন্তু এখন বিজেপির অধীনে ‘পর্যটনের হটস্পটে’ পরিণত হয়েছে। সূত্র : দ্য ডন

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন