শুক্রবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১৪ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

ইউক্রেনের ১৬ হিমারস রকেট ধ্বংস করেছে রুশ সেনা

একদিনে আটটি কমান্ড পোস্ট বিধ্বস্ত, ১২০ সেনা নিহত

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৭ অক্টোবর, ২০২২, ১২:২১ এএম

রাশিয়ার শিল্প উৎপাদন গত বছরের স্তরে ফিরে এসেছে : পুতিন
রুশ বাহিনীর সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে রয়েছে খেরসন অঞ্চল
ইউক্রেনকে রক্তে ডুবানোর জন্য হিমারস সরবরাহ করেছে যুক্তরাষ্ট্র
জেনারেল পদে পদোন্নতি পেলেন চেচেন নেতা রমজান কাদিরভ
জাপোরোজিয়া প্লান্ট আনুষ্ঠানিকভাবে রাশিয়ায় অন্তর্ভ‚ক্ত
ইনকিলাব ডেস্ক
রাশিয়ার বিমান প্রতিরক্ষা বাহিনী গত দিনে ইউক্রেনে তাদের বিশেষ সামরিক অভিযানে যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি ১৬টি হিমারস এবং ওলখা রকেট এবং দুটি রাডার বিরোধী ক্ষেপণাস্ত্র ‘হার্ম’ ধ্বংস করেছে, রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র লেফটেন্যান্ট-জেনারেল ইগর কোনাশেনকভ বুধবার জানিয়েছেন। পাশাপাশি, গতকাল রাশিয়ার যুদ্ধ বিমান, ক্ষেপণাস্ত্র এবং আর্টিলারি সৈন্যরা গত দিনে ইউক্রেনের আটটি সেনা কমান্ড পোস্টে আঘাত করেছে।

‘গত ২৪ ঘন্টায়, রাশিয়ার বিমান প্রতিরক্ষা বাহিনী আমেরিকার তৈরি হিমারস মাল্টিপল লঞ্চ রকেট সিস্টেমের ১৫টি শেল খেরসন অঞ্চলের করোবকি, ভেসিলোয়ে, আন্তোনোভকা, নোভায়া কাখোভকা, টোকারেভকা এবং রাকোভকার বসতি এলাকায় গুলি করে ধ্বংস করে। ওলখা মাল্টিপল লঞ্চ রকেট সিস্টেমের একটি শেল নোভায়া কাখোভকা এলাকার কাছে এবং খেরসন অঞ্চলের আন্তোনোভকার বসতি এলাকায় দুটি রাডার বিরোধী মিসাইল হার্ম ধ্বংস করা হয়েছে,’ মুখপাত্র বলেছেন।

সাধারণ হিসাবে উল্লেখ করা হয়েছে, ‘গত ২৪ ঘন্টায়, বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাগুলি খারকভ অঞ্চলের গ্রাকোভো, লুগানস্ক পিপলস রিপাবলিকের নভোচেরভোনয়, ডোনেটস্ক পিপলসের স্টারোমায়রস্কয়, উরোজাইনয়ে এবং ডোকুচায়েভস্কের জনবসতি অঞ্চলে নয়টি মানববিহীন আকাশযান বা ড্রোন ধ্বংস করেছে।’ ‘অপারেশনাল-কৌশলগত এবং সেনা বিমান চলাচলের বিমান, ক্ষেপণাস্ত্র এবং আর্টিলারি সৈন্যদের হামলায় ১৭৩টি এলাকায় ইউক্রেনের সেনাবাহিনীর আটটি কমান্ড পোস্ট, ফায়ারিং পজিশনে ৬৩টি আর্টিলারি ইউনিট, শত্রæর জনশক্তি এবং সামরিক সরঞ্জাম ধ্বংস হয়েছে,’ মুখপাত্র বলেছেন।

রুশ সৈন্যরা ডোনেৎস্ক পিপলস রিপাবলিক এবং জাপোরোজিয়া শহরের সেভার্সক এবং ভোডিয়ানয়য়ের বসতিগুলির কাছে চারটি গোলাবারুদ এবং ক্ষেপণাস্ত্র/আর্টিলারি অস্ত্রের ডিপো নিশ্চিহ্ন করেছে, জেনারেল বলেছেন। কোনাশেনকভ রিপোর্ট করেছেন যে রাশিয়ান বাহিনী কুপিয়ানস্ক এলাকায় ইউক্রেনের সেনাবাহিনীর অগ্রসর হওয়ার প্রচেষ্টাকে ব্যর্থ করে দিয়েছে, ১২০ জনেরও বেশি জঙ্গিকে হত্যা করেছে।

‘কুপিয়ানস্ক এলাকায়, শত্রæরা পারশোত্রাভনেভয়ে, কিসলোভকা এবং বেরেস্তোভয়ের দিকে আক্রমণ পুনরায় শুরু করার জন্য তিনটি ব্যাটালিয়ন কৌশলগত গোষ্ঠী মোতায়েন করার একটি ব্যর্থ প্রচেষ্টা করেছিল। সমস্ত আক্রমণ রাশিয়ান সৈন্যদের সিদ্ধান্তমূলক অভিযান দ্বারা প্রতিহত করা হয়েছিল। তারা ১২০ জনেরও বেশি ইউক্রেনীয় জঙ্গিকে হত্যা করেছিল। এবং পাঁচটি ট্যাঙ্ক, ১২টি যুদ্ধের সাঁজোয়া যান এবং ১৪টি মোটর গাড়ি ধ্বংস করেছে,’ মুখপাত্র বলেছেন।

‘রাশিয়ার বিমান প্রতিরক্ষা ক্ষমতা খেরসন অঞ্চলের চেরভোনোআরমেইসকোয়ে, দিমিত্রেঙ্কো এবং চারিভনয়, লুহানস্ক পিপলস রিপাবলিকের পোকরভস্কয়, পোলতাভা এবং ট্রয়েটসকোয়ে, ডোনেটস্কে রিপাবলিকের অরলিনস্কয় এবং মোসপিনোর জনবসতি এলাকায় নয়টি ইউক্রেনীয় মানববিহীন আকাশযান ধ্বংস করেছে। তারা ডোনেৎস্ক পিপলস রিপাবলিকের ভেলিকায়া নোভোসিওলকা বসতি এলাকায় ওলখা মাল্টিপল লঞ্চ রকেট সিস্টেমের তিনটি শেল গুলি করে নামিয়েছে,’ মুখপাত্র বলেছেন।

ইউক্রেনে তাদের বিশেষ সামরিক অভিযানে সব মিলিয়ে রাশিয়ান সশস্ত্র বাহিনী ৩১৫টি ইউক্রেনীয় যুদ্ধ বিমান, ১৫৭টি হেলিকপ্টার, ২,১৬০টি মনুষ্যবিহীন আকাশযান, ৩৭৯টি সারফেস টু এয়ার মিসাইল সিস্টেম, ৫,৪১২টি ট্যাংক এবং যুদ্ধের অন্যান্য সাঁজোয়া যান, ৮৬২টি মাল্টিপল লঞ্চ রকেট সিস্টেম, ৩,৪৫২টি ফিল্ড আর্টিলারি গান ও মর্টার এবং ৬,৩১৬টি বিশেষ সামরিক মোটর যান ধ্বংস করেছে, কোনাশেনকভ রিপোর্ট করেছেন।

রাশিয়ার শিল্প উৎপাদন গত বছরের স্তরে ফিরে এসেছে : রাশিয়ায় শিল্প উৎপাদন চার মাসের পতনের পর গত বছরের স্তরে ফিরে এসেছে, বৃহস্পতিবার অর্থনৈতিক বিষয়ে বৈঠকে প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন বলেছেন।
‘চার মাসের পতনের পর শিল্প উৎপাদন গত বছরের স্তরে ফিরে এসেছে। অটোমোবাইল শিল্প এবং ধাতু শিল্পের মতো যে শিল্পগুলি সবচেয়ে চ্যালেঞ্জিং পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়েছিল, সেগুলি ধীরে ধীরে পুনরুদ্ধার করছে,’ পুতিন বলেছিলেন। কৃষি খাত ভাল গতিশীলতা দেখায়, জানুয়ারি - আগস্টে ৪ দশমিক ৬ শতাংশ বৃদ্ধি দেখিয়েছে, রাষ্ট্রপ্রধান বলেছেন। ‘নির্মাণও বেড়েছে। গত বছরের মতো সময়ের তুলনায় আগস্টে নির্মাণ কাজের পরিমাণ ৭ দশমিক ৪ শতাংশ বেড়েছে। নির্মাণ খাতের এই ধরনের অগ্রিম গতিশীলতা অন্যান্য সংশ্লিষ্ট শিল্পকেও আনতে হবে, তাদের একটি অতিরিক্ত প্রেরণা প্রদান করবে,’ পুতিন যোগ করেছেন।

রুশ বাহিনীর সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে রয়েছে খেরসন অঞ্চল : খেরসন অঞ্চলের পরিস্থিতি এখন রুশ সেনার নেতৃত্বাধীন যৌথ বাহিনীর সম্প‚র্ণ নিয়ন্ত্রণে রাখা হয়েছে এবং ইউক্রেনের সৈন্যরা সেখানে অগ্রসর হচ্ছে না। ওই অঞ্চলের সামরিক-বেসামরিক প্রশাসনের উপপ্রধান কিরিল স্ট্রেমুসভ বার্তা সংস্থা তাসকে বলেছেন। ‘পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে, ইউক্রেনের সশস্ত্র বাহিনী কোনো অগ্রগতি করেনি এবং আমাদের সামরিক বাহিনী কাজ করছে,’ তিনি বলেছেন।

স্ট্রেমাসভ উল্লেখ করেছেন যে, ইউক্রেনীয় সশস্ত্র বাহিনী খেরসন ফ্রন্টে ন্যাটো দেশগুলি থেকে প্রচুর পরিমাণে সরঞ্জাম নিযুক্ত করছে এবং রাশিয়ান সৈন্যরা তাদের বীরত্বের সাথে আক্রমণ মোকাবেলা করছে। তার মতে, পোসাদ-পোকরোভস্ক এবং নিকোলায়েভে ইউক্রেনীয় সামরিক বাহিনীর ‘কোন সম্ভাবনা নেই’, কারণ ‘এখানে রাশিয়ান সৈনিকরা আছে যারা ইতিমধ্যেই রাষ্ট্রীয় অলঙ্করণে ভ‚ষিত হতে পারে’। স্ট্রেমাসভের মতে, ডেভিডভ ব্রড থেকে ক্রিভয় রোগের দিকে যাওয়ার সময়, ইউক্রেনের সৈন্যরা থেমে গেছে এবং অগ্রসর হচ্ছে না, কারণ প্রতিরক্ষা লাইন আরও দূরে। কর্মকর্তার তথ্য অনুসারে, ইউক্রেনের সশস্ত্র বাহিনী বর্তমানে একটি কিল জোনে রয়েছে এবং তাদের নির্ম‚ল করা হচ্ছে।

ইউক্রেনকে রক্তে ডুবানোর জন্য হিমারস সরবরাহ করেছে যুক্তরাষ্ট্র : রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা বৃহস্পতিবার এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে বলেছেন, কিয়েভ সরকারকে ওয়াশিংটনের হিমারস মাল্টিপল রকেট লঞ্চার এবং গোলাবারুদ সরবরাহের উদ্দেশ্য ইউক্রেনকে রক্তে ডুবিয়ে দেয়া।

‘প্রতি সপ্তাহে আরও বেশি করে অর্থ ঢেলে দেয়া হচ্ছে এই অঞ্চলে, কিয়েভ শাসনের কাছে, যাতে শত্রæতা বন্ধ না হয় এবং আরও বেশি লোক মারা যায়, যাতে কোনও কিছুর সমর্থন না করে আমেরিকান অর্থ দিয়ে এই অঞ্চলকে রক্তে ডুবিয়ে দেয়া যায়। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে, যাদের পাবলিক ঋণ সম্প্রতি ৩১ ট্রিলিয়ন ডলার ছাড়িয়েছে,’ ইউক্রেনে হিমারস-এর আরেকটি ব্যাচ পাঠানোর জন্য ওয়াশিংটনের প্রস্তুতির বিষয়ে মন্তব্য করে জাখারোভা বলেছেন।

জাখারোভা জোর দিয়েছিলেন যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ইতিমধ্যেই সরবরাহ করা ষোলটি হিমারস সিস্টেম এবং ৬২ কোটি ৫০ লাখ ডলার মূল্যের গোলাবারুদগুলোর সাথে আরও চারটি লঞ্চার যোগ করতে প্রস্তুত। ‘আপনি আমাদের প্রতি ঘৃণার শক্তি কল্পনা করতে পারেন,’ তিনি যোগ করেন, ‘আমেরিকানরা খোলাখুলিভাবে স্বীকার করে যে তারা ইউক্রেনীয় সেনাবাহিনীর কমান্ডে প্রায় রিয়েল টাইম মোডে স্যাটেলাইট এবং অন্যান্য গোয়েন্দা তথ্য প্রেরণ করে এবং সামরিক অভিযানের পরিকল্পনায় অংশ নেয়। এটা কি, যদি জটিলতা না হয়? এটি একটি সত্যিকারের হাইব্রিড যুদ্ধ।’

জেনারেল পদে পদোন্নতি পেলেন চেচেন নেতা রমজান কাদিরভ : চেচনিয়ার নেতা রমজান কাদিরভ বুধবার বলেছেন যে, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন তাকে ইউক্রেনে তার সেবার জন্য জেনারেল বানিয়েছেন। কাদিরভকে এমন সময়ে শীর্ষ সামরিক পদমর্যাদা দেয়া হল, যখন তিনি ইউক্রেনের যুদ্ধ পরিচালনার জন্য রাশিয়ার শীর্ষস্থানীয় ব্যক্তিদের সমালোচনা করেছিলেন।

চেচনিয়ার ৪৬ বছর বয়সী প্রধান, যিনি ১৯৯০-এর দশকে উত্তর ককেশাসে বিচ্ছিন্নতাবাদী যুদ্ধের সময় রাশিয়ান সরকারী বাহিনীর বিরুদ্ধে লড়াই করেছিলেন, বুধবার তার টেলিগ্রাম চ্যানেলে ‘খুশির সংবাদ’ বলে তার জেনারেল হওয়ার সংবাদ জানিয়েছেন, বলেছেন যে, তিনি কর্নেল জেনারেল পদে ভ‚ষিত হয়েছেন। ‘ভøাদিমির ভøাদিমিরোভিচ (পুতিন) আমাকে ব্যক্তিগতভাবে বলেছিলেন এবং আমাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন: আমার পরিষেবার উচ্চ সম্মানের জন্য আমি আমাদের কমান্ডার-ইন-চিফের কাছে অত্যন্ত কৃতজ্ঞ,’ তিনি বলেছিলেন, ‘এটা আমার জন্য বড় সম্মানের। আমি শপথ করছি যে তিনি আমার উপর যে আস্থা রেখেছেন আমি তার প্রতিদান দেব।’ তবে পুতিনের ডিক্রি এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশিত হয়নি।

জাপোরোজিয়া প্লান্ট আনুষ্ঠানিকভাবে রাশিয়ায় অন্তর্ভ‚ক্ত : এদিকে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন একটা ডিক্রি সই করে দক্ষিণ ইউক্রেনের জাপোরোজিয়া পরমাণু পাওয়ার প্লান্ট আনুষ্ঠানিকভাবে রাশিয়ায় অন্তর্ভ‚ক্ত করেছেন। এই পরমাণু কেন্দ্রটি যুদ্ধের শুরু থেকে রাশিয়ার সৈন্যদের দখলে ছিল। রাশিয়া বলছে ইউরোপের সবচেয়ে বড় পরমাণু কেন্দ্রটি এখন একটি নতুন কোম্পানি চালাবে।

এর আগে রুশ ফেডারেশনের অন্তর্ভুক্ত নতুন চারটি অঞ্চলকে ‘স্থিতিশীল’ রাখা হবে বলে প্রতিজ্ঞা করেছেন পুতিন। এ বিষয়ে তিনি চ‚ড়ান্ত কাগজে সাক্ষর করেছেন। ইউক্রেনের চারটি অঞ্চল রুশ ফেডারেশনের অন্তর্ভুক্ত করার প্রশ্নে একটা গণভোটের আয়োজন করা হয়- যার মাধ্যমে ডোনেৎস্ক, লুহানস্ক এবং দক্ষিণের খেরসন এবং জাপোরোজিয়াকে নিজেদের অঞ্চলের মধ্যে অন্তর্ভ‚ক্ত করে রাশিয়া। ইউক্রেন বলেছে তারা লুহানস্ক এবং খেরসনের বেশ কিছু গ্রাম পুনর্নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে এবং সম্প্রতি দোনেৎস্কে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি করেছে। ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেছেন, রাশিয়া যেসব অঞ্চলের নিয়ন্ত্রণ হারিয়েছে সেসবের আবার নিয়ন্ত্রণ নিতে পারে। সাম্প্রতিক ক্ষয়ক্ষতি নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘এখানে কোন অসংগতি নেই। তারা চিরদিনের জন্য রাশিয়ার সঙ্গে থাকবে। তারা ফিরে আসবে।’

রাশিয়ায় শিক্ষক দিবসে. পুতিন এক ভাষণে বলেন তিনি ‘শান্তভাবে অন্তর্ভুক্ত অঞ্চলগুলোতে উন্নত করবেন’। লুহানস্কের গভর্নর সেরহি হেইদাই বিবিসিকে বলেছেন বুধবার ঐ এলাকার ছয়টা গ্রাম পুনর্নিয়ন্ত্রণ নেয়া হয়েছে। রাশিয়া এখনো রিজার্ভ সৈন্য নিয়ে কাজ করছে। গত মাসে পুতিন তিন লক্ষ মানুষকে ডেকে পাঠান যারা দেশটিতে বাধ্যতামূলক মিলিটারি সার্ভিস সম্পন্ন করেছে। সূত্র : বিবিসি নিউজ, দ্য টেলিগ্রাফ, রয়টার্স, তাস।

 

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (4)
Abdul Halim ৭ অক্টোবর, ২০২২, ৬:৪০ এএম says : 0
আমি রাশিয়ার পক্ষে --
Total Reply(0)
Jahidur Rahman ৭ অক্টোবর, ২০২২, ৬:৪০ এএম says : 0
ইউক্রেন এবং পশ্চিমারা, অপরদিকে রাশিয়া একাই লড়ছে। ধন্যবাদ পুতিনকে তোমার জন্য মন থেকে দোয়া। তুমি জিতবেই তুমি এগিয়ে যাও।
Total Reply(0)
Kamrul Islam ৭ অক্টোবর, ২০২২, ৬:৪০ এএম says : 0
শেষ করে দেয়া হোক পশ্চিমা প্রেতাত্মা কমেডিয়ান টাকে
Total Reply(0)
Koushik Das Joy ৭ অক্টোবর, ২০২২, ৬:৪১ এএম says : 0
যখন রাশিয়া মারে তখন তারা লুকিয়ে থাকায় রাশিয়া এগোতে পারে না। তাই রাশিয়া এলাকা ছেড়ে যায় তারা বের হয়ে এসে খুশিতে নাচে এরপর রাশিয়ার মাইরে ইউক্রেনের বলদগুলো মরে
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন