শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২০ মাঘ ১৪২৯, ১১ রজব ১৪৪৪ হিজিরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

যুদ্ধের মধ্যেও রাশিয়ার সাথে যোগাযোগ বজায় রাখবে যুক্তরাষ্ট্র

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৮ নভেম্বর, ২০২২, ১১:৫৯ এএম

ইউক্রেন যুদ্ধে পরস্পর বিরোধী অবস্থান থাকার পরেও মস্কো এবং ওয়াশিংটনের যোগাযোগের চ্যানেল খোলা থাকবে বলে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জ্যাক সুলিভান। তিনি বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের স্বার্থেই ক্রেমলিনের সঙ্গে যোগাযোগ রাখতে হবে।

ইউক্রেনে যাতে কোন পারমাণবিক উত্তেজনা তৈরি না হয়, সেজন্য জ্যাক সুলিভানের নেতৃত্বে রাশিয়ার সঙ্গে আলোচনা চলছে, এরকম একটি খবর কয়েকদিন আগে ওয়াশিংটন জার্নালে প্রকাশিত হয়। সেই তথ্য অস্বীকার করেনি হোয়াইট হাউজ। তারই প্রেক্ষিতে সুলিভান এই বক্তব্য দিলেন। ওই খবরে বলা হয়, রাশিয়ার নিরাপত্তা কাউন্সিলের সেক্রেটারি নিকোলাই পেত্রুশেভ আর ক্রেমলিনের জ্যেষ্ঠ বৈদেশিক নীতি বিষয়ক সহকারী ইউরি উশাকভের সঙ্গে গত কয়েকমাস ধরে গোপনে আলোচনা করছেন মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জ্যাক সুলিভান।

মার্কিন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, কীভাবে ইউক্রেন যুদ্ধে পারমাণবিক উত্তেজনা নিরসন করা যায়, তা নিয়ে এই কর্মকর্তারা আলোচনা করেছেন। কিন্তু ইউক্রেন যুদ্ধের সমাপ্তি বিষয়ক কোন আলোচনায় তারা অংশ নেননি। গত মাসেই সুলিভান বলেছিলেন, পারমাণবিক অস্ত্রের কোনরকম ব্যবহার রাশিয়ার জন্য ‘মারাত্মক বিপর্যয়কর’ হবে। এনবিসি টেলিভিশনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, রাশিয়ার কর্মকর্তাদের সাথে গোপন আলোচনার সময় মার্কিন কর্মকর্তারা পরিষ্কার করে জানিয়ে দিয়েছেন, এরকমটা হলে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিক্রিয়া কী হতে পারে।

ওই খবর নিশ্চিত করার ব্যাপারে অস্বীকৃতি জানিয়ে মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিলের মুখপাত্র অ্যাড্রিয়েন ওয়াটসন বলেছিলেন, ‘মানুষ অনেক বিষয় নিয়েই কথা বলে।’ আর ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ পশ্চিমা গণমাধ্যমকে অভিযুক্ত করে বলেছিলেন, ‘তারা অনেক প্রতারণামূলক’ সংবাদ প্রকাশ করছে। তবে হোয়াইট হাউজের প্রেস সেক্রেটারি কারিন জেন-পিয়ের সোমবার বলেছিলেন, রাশিয়ার সঙ্গে আলোচনার অধিকার আছে যুক্তরাষ্ট্রের।

গত সপ্তাহে ওয়াশিংটন পোস্টের একটি সংবাদে বলা হয়, রাশিয়ার সঙ্গে আলোচনার ব্যাপারে যাতে কিয়েভ খোলামেলা মনোভাব প্রকাশ করে, সেজন্য অনুরোধ করছে মার্কিন কর্মকর্তারা। সেই সঙ্গে ভ্লাদিমির পুতিন ক্ষমতায় থাকা পর্যন্ত যুদ্ধের সমাপ্তি নিয়ে কোন আলোচনা হবে না বলে ইউক্রেন যে ঘোষণা দিয়ে আসছে, প্রকাশ্যে সেসব কথা না বলার জন্যও তারা চাপ দিচ্ছে। সূত্র: বিবিসি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন