শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২৩, ১৩ মাঘ ১৪২৯, ০৪ রজব ১৪৪৪ হিজিরী

সারা বাংলার খবর

টাঙ্গাইলের দেলদুয়ারে ওয়াজ মাহফিলের খিচুড়ি খেয়ে বৃদ্ধার মৃত্যু, অসুস্থ দুই শতাধিক

টাঙ্গাইল জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৬ নভেম্বর, ২০২২, ২:১৯ পিএম

টাঙ্গাইলের দেলদুয়ার উপজেলার আটিয়া ইউনিয়নের গজিয়াবাড়ি গ্রামে ওয়াজ মাহফিলের খিচুড়ি খেয়ে রাহেলা বেগম(৯৪) নামে এক বৃদ্ধার মৃত্যু এবং শিশুসহ দুই শতাধিক ব্যক্তি অসুস্থ হয়ে পড়েছে। এ ঘটনায় বুধবার (১৬ নভেম্বর) সকালে ওই এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পড়েছে।
গজিয়াবাড়ি গ্রামের মৃত বিশা চৌধুরীর স্ত্রী রাহেলা বেগম মঙ্গলবার (১৫ নভেম্বর) রাতে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেছেন বলে নিশ্চিত করেছেন দেলদুয়ার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মো. আশরাফুল আলম।

স্থানীয়রা জানায়, গজিয়াবাড়ি গ্রামের আক্কাস মিঞার বাড়িতে রোববার (১৩ নভেম্বর) রাতে ওয়াজ মাহফিলের আয়োজন করা হয়। ওয়াজ মাহফিল শেষে গভীর রাতে আগতদের মাঝে তবারক হিসেবে রান্নাকরা খিচুড়ি বিতরণ করা হয়। স্থানীয় বাবুর্চি আব্দুল গণির রান্নাকরা ওই খিচুড়ি খেয়ে নারী ও শিশু সহ ওই গ্রামের দুই শতাধিক ব্যক্তি অসুস্থ হয়ে পড়ে। খবর পেয়ে দেলদুয়ার উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সের মেডিকেল টিম গজিয়াবাড়ি গ্রামের বাড়ি বাড়ি গিয়ে অসুস্থদের চিকিৎসা দিচ্ছেন। এছাড়া স্থানীয় মসজিদে মাইকিং করে অসুস্থদেরকে চিকিৎসার জন্য আটিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার সিরাজুল ইসলাম মল্লিকের বাড়িতে আসতে বলা হয়।

আলেয়া নামে এক নারী জানান, ওয়াজ মাহফিলের খিচুড়ি খেয়ে তিনদিন ধরে গ্রামের শিশু ও নারী-পুরুষরা ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে ক্রমান্বয়ে অসুস্থ হচ্ছেন। বুধবার ভোরে অবস্থা আরও মারাত্মক আকার ধারণ করে।

আটিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার সিরাজুল ইসলাম মল্লিক জানান, রোববার গভীর রাতে খিচুড়ি খাওয়ার পর বুধবার সকাল পর্যন্ত গ্রামের নারী ও শিশুসহ দুই শতাধিক ব্যক্তি ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে রাহেলা বেগম নামে গজিয়াবাড়ি গ্রামের এক বৃদ্ধা চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেছেন।

দেলদুয়ার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মো. আশরাফুল আলম জানান, আক্রান্তদের স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এদের মধ্যে ৩০ জনের অবস্থা আশংকাজনক। তাদের উন্নত চিকিৎসার জন্য দেলদুয়ার উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল ও মির্জাপুর কুমুদিনী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন