বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৮ মাঘ ১৪২৯, ০৯ রজব ১৪৪৪ হিজিরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

ইউক্রেনের সহায়তায় ভেটো হাঙ্গেরির

ইইউ’র সাথে বিরোধ তীব্র কিয়েভকে রাশিয়ায় হামলার জন্য অস্ত্র দেয়ার কথা অস্বীকার যুক্তরাষ্ট্রের ইউক্রেনকে সামরিক সহায়তা প্রদান অব্যাহত থাকবে : ব্লিঙ্কেন পরিস্থিতি ভয়াবহ হলেও ইউক্রেনের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৯ ডিসেম্বর, ২০২২, ১২:০৩ এএম

মঙ্গলবার ইউক্রেনের জন্য ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)-এর আর্থিক সহযোগিতা প্যাকেজে ভেটো দিয়েছে হাঙ্গেরি। এর ফলে ইউক্রেনের জন্য ইইউ’র ১৮ বিলিয়ন ইউরোর (১৮.৯৩ বিলিয়ন ডলার) প্যাকেজ আটকে গেল। শুরু থেকেই রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনের প্রতি সমর্থন জানিয়ে আসছিলেন হাঙ্গেরির প্রধানমন্ত্রী ভিক্টর অরবান। এই ভেটোর ফলে ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং সদস্য রাষ্ট্র হাঙ্গেরির মধ্যে সম্পর্কের ফাটল আরও গভীর হয়েছে। এখন ইইউ সদস্য রাষ্ট্রগুলোকে একটি জটিল টেকনিক্যাল পরিকল্পনা প্রণয়ন করতে হবে, যাতে করে নতুন বছরে ইউক্রেনে সহযোগিতা প্রদান অব্যাহত থাকে।

ইইউ’র কয়েকটি দেশ মনে করে, হাঙ্গেরির এই কৌশল মূলত নিজেদের নিয়মিত তহবিল এবং মহামারি পুনরুদ্ধার কর্মসূচির জন্য ব্লকের কাছ থেকে অর্থ ছাড় নিশ্চিত করা। চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য ১৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত সময় পাচ্ছে ইইউ’র ২৭টি দেশ। আগামী সপ্তাহে দুই দিনের সম্মেলনে বসছেন ব্লকের নেতারা। এতে করে ধারণা করা হচ্ছে, বিষয়টি আরও কিছু দিন অমীমাংসিত থাকবে। ইইউ কাউন্সিল ইকনোমিক অ্যান্ড ফিন্যান্সিয়াল কমিটির চেয়ারম্যান টুমাস সারেনহেইমো বলেন, শেষ পর্যন্ত ইউক্রেনে দ্রুত সহযোগিতা পাঠানোর পদ্ধতির বিষয়ে একমত হওয়া গেছে। এতে যেভাবে ইইউ নিজেদের তহবিল ব্যবস্থাপনা করে তাতে মৌলিক পরিবর্তন আসছে না। আমি সমঝোতা বললেও বাস্তবে এটি ছিল মাইনাস ওয়ান। এর আগে হাঙ্গেরির প্রধানমন্ত্রী ভিক্টর ওরবান ইইউ কর্মকর্তাদের বিরাগভাজন হয়েছিলেন ইউক্রেনে আক্রমণের কারণে রাশিয়ার ওপর ব্লকটির নিষেধাজ্ঞার সমালোচনা করে।

কিয়েভকে রাশিয়ায় হামলার জন্য অস্ত্র দেয়া কথা অস্বীকার যুক্তরাষ্ট্রের : মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র নেড বুধবার প্রাইস সাংবাদিকদের বলেছেন, মার্কিন সরকার রাশিয়ার ভূখণ্ডে হামলার জন্য ইউক্রেনকে অস্ত্র সরবরাহ করে না। ‘(২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু করে), মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আমাদের ইউক্রেনীয় অংশীদারদের নিজেদের রক্ষা করার জন্য, তাদের সার্বভৌমত্ব রক্ষার জন্য, তাদের স্বাধীনতা রক্ষার জন্য, তাদের আঞ্চলিক অখণ্ডতা রক্ষার জন্য যা প্রয়োজন তা প্রদান করেছে,’ তিনি বলেন, ‘আমরা ইউক্রেনকে রাশিয়ার অভ্যন্তরে ব্যবহার করার জন্য অস্ত্র সরবরাহ করিনি। আমরা খুব স্পষ্ট বলেছি যে এগুলো প্রতিরক্ষামূলক সরবরাহ।’

তিনি আশ্বস্ত করেন যে, ওয়াশিংটন ইউক্রেনকে তার ভূখণ্ডের বাইরে লক্ষ্যবস্তুতে হামলা করতে উৎসাহিত করেনি। ‘আমরা ইউক্রেনকে তার সার্বভৌম ভূখণ্ডে, ইউক্রেনের মাটিতে যা ব্যবহার করতে হবে তা সরবরাহ করছি,’ মুখপাত্র যোগ করেছেন। একই সময়ে, তিনি রাশিয়ার বিমানঘাঁটিতে হামলার চেষ্টার জন্য কিয়েভের দায়িত্ব সম্পর্কে মন্তব্য করতে অস্বীকার করেন। ‘প্রথম, আমরা জানি না যে, কেউ আনুষ্ঠানিকভাবে রাশিয়ার অভ্যন্তরে সাম্প্রতিক দিনগুলিতে যে বিস্ফোরণগুলি ঘটেছে তার দায় স্বীকার করেছে,’ তিনি বলেছিলেন।

এর আগে, রাশিয়ান প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় মিডিয়াকে বলেছিল যে, সোমবার সকালে, কিয়েভ রাশিয়ার যুদ্ধবিমানগুলিকে নিষ্ক্রিয় করার লক্ষ্যে রিয়াজান অঞ্চলের দিয়াগিলেভো এবং সারাতোভ অঞ্চলের এঙ্গেলসের সামরিক বিমানঘাঁটিতে সোভিয়েত তৈরি জেট ড্রোন দিয়ে হামলার চেষ্টা করেছিল। প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে যে, অ্যারোস্পেস ফোর্সের বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কম উচ্চতায় উড়ন্ত ইউক্রেনীয় ড্রোনগুলিকে বাধা দেয়। পরে, কুরস্ক অঞ্চলের গভর্নর রোমান স্টারোভয়েট বলেন, কুরস্কের একটি বিমানঘাঁটির কাছে একটি তেলের ট্যাঙ্কারে আগুন লেগেছে, কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

ইউক্রেনকে সামরিক সহায়তা প্রদান অব্যাহত থাকবে : মঙ্গলবার ওয়াশিংটনে মার্কিন-অস্ট্রেলীয় আলোচনার পর মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন বলেছেন, মার্কিন সরকার কিয়েভের সৈন্যদের রাশিয়ার ভূখণ্ডে আক্রমণ করতে উৎসাহিত করে না, তবে ইউক্রেনকে আত্মরক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় সামরিক সহায়তা প্রদান অব্যাহত রাখবে। তার ভাষায়, ওয়াশিংটন ‘ইউক্রেনীয়দের রাশিয়ার অভ্যন্তরে হামলা চালাতে উৎসাহিত বা সক্ষম করেনি।’ যাইহোক, তিনি যোগ করেছেন যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং তার মিত্ররা কিয়েভ সরকারকে ‘আত্মরক্ষার জন্য, তাদের অঞ্চল রক্ষার জন্য, তাদের স্বাধীনতা রক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় সরঞ্জামগুলি’ সরবরাহ করতে বদ্ধপরিকর।

পরিস্থিতি ভয়াবহ হলেও ইউক্রেনের সেনাদের পিছু হটতে দেয়া হচ্ছে না : ইউক্রেনীয় সশস্ত্র বাহিনীর উচ্চপদস্থ কর্তারা সৈন্যদের পশ্চাদপসরণ করার জন্য নির্দেশ জারি করতে নারাজ, যদিও সৈন্যরা একটি ভয়ঙ্কর পরিস্থিতির মধ্যে রয়েছে, গতকাল ডোনেৎস্ক পিপলস রিপাবলিক (ডিপিআর) এর ভারপ্রাপ্ত প্রধান ডেনিস পুশিলিন একটি সাক্ষাতকারে বলেছেন।

‘গোপন রেডিও যোগাযোগ অনুসারে, যখন ইউক্রেনীয় সৈন্যরা দেখে যে একটি জনবহুল এলাকা ধরে রাখা আর সম্ভব নয় এবং সম্পূর্ণরূপে নিরর্থক, এবং পিছু হটার অনুমতির অনুরোধ করে, তখন তাদের কমান্ডাররা এই ধরনের আদেশ জারি করতে অস্বীকার করে,’ তিনি বলেছিলেন, ‘কিছু ক্ষেত্রে, কমান্ডার যারা তাদের জীবন এবং তাদের অধীনস্থদের জীবন বাঁচাতে চায় তাদের দমন-পীড়নের সম্মুখীন হতে হয়। কখনও কখনও, কট্টর জাতীয়তাবাদীদের দ্বারা গঠিত অ্যান্টি-রিট্রিট ইউনিটকে ডাকা হয়।’ কর্মকর্তার মতে, প্রধানত পোল্যান্ড থেকে আসা বিপুল সংখ্যক ভাড়াটে যোদ্ধা সোয়াতোভো, ক্রেমেনায়া এবং আর্টেমভস্ক এলাকায় দেখা গেছে। পুশিলিন যোগ করেছেন যে, কিয়েভের সৈন্যরা তাদের নিয়ন্ত্রণে থাকা প্রতিটি জনবহুল এলাকাকে ‘এমনকি একটিক্ষুদ্রতম গ্রামও’ রক্ষা করার চেষ্টা করে, তাই ফ্রন্টলাইনের সমস্ত সেক্টরে লড়াই সবসময় তীব্র থাকে। সূত্র : তাস, দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট, বিবিসি নিউজ, রয়টার্স।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন