শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০, ১২ শাবান সানি ১৪৪৫ হিজরী

সারা বাংলার খবর

বাংলাদেশের শ্রমিকদের জীবন মান উন্নয়নে মজুরী বাড়িয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

নাটোর জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৭ জানুয়ারি, ২০২৩, ৪:১৭ পিএম

“বাংলাদেশের শ্রমিকদের জীবন মান উন্নয়নে ২১ শতাংশ মজুরী বাড়িয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি শ্রমিক বান্ধব, কৃষি বান্ধব, বিনিয়োগ বান্ধব। পূর্বে একজন সরকারী কর্মচারী পেনশন বাবদ ১৫০ টাকা পেতেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তা বাড়িয়ে ২৫০ টাকা করেছেন। গার্মেন্টস শ্রমিকদের বেতন ১৬২০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৮ হাজার টাকা করেছেন। নারী কর্মচারীদের মাতৃত্বকালীন ছুটি ৩ মাস থেকে বাড়িয়ে ৬ মাস করা হয়েছে। শ্রমিকদের ভালো থাকার জন্য, ভারোভাবে জীবন নির্বাহ করার জন্য এসবই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অবদান। বাংলাদেশ নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু করেছে। মেট্রোরেল চালু করেছে। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে দেশ ও জনগন অনেক কিছু পায়। আথচ বিএনপি ক্ষমতায় থাকলে দেশ দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হয়। বেগম খালেদা জিয়া এতিমের টাকা আত্মসাৎ করেছে। তার কারনে তাকে জেলে রাখা হয়েছিল। বর্তমানে মানবিক দিক বিবেচনা করে শেখ হাসিনা তাঁকে তাঁর নিজ গৃহে রেখেছেন। তারেক জিয়া মানি ল্যান্ডারিং করেছে। অথচ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকলে দেশ সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড, ফ্রান্স হয়ে যায়। ২০৪১ সাল লাগবে না আপনারা এভাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় রাখলে দেশ ২০৩০ সালের মধ্যেই উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হয়ে যাবে।”
নাটোরে শ্রমিক লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে এসব কথা বলেন সম্মেলনের উদ্বোধক জাতীয় শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নূর কুতুব আলম মান্নান এবং প্রধান বক্তা জাতীয়শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারন সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা কে,এম আযম খসরু। শনিবার নাটোর শহরের অনিমা চৌধুরী অডিটোরিয়ামে এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।
অনুষ্ঠানে জাতীয় শ্রমিক লীগ নাটোর জেলা শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি কাজী মোঃ ইউসুফের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালে সংযুক্ত থেকে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও নাটোর-৪ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস। এছাড়াও সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক শরিফুল ইসলাম রমজান, নাটোর- আসনের সংসদ সদস্য শফিকুল ইসলাম শিমুল, সাবেক ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী আহাদ আলী সরকার প্রমুখ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন