সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৩ মাঘ ১৪২৯, ১৪ রজব ১৪৪৪ হিজিরী

জাতীয় সংবাদ

সুইডেনে কোরআন পোড়ানোর ঘটনায় মুসলিম উম্মাহ চরমভাবে ক্ষুব্ধ

বিভিন্ন ইসলামী দলের নেতৃবৃন্দ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৫ জানুয়ারি, ২০২৩, ১২:০০ এএম

সুইডেনে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় উগ্রবাদীদের দ্বারা পবিত্র কোরআন পোড়ানোর ধৃষ্টতার প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়ে বিভিন্ন ইসলামী দলের নেতৃবৃন্দের বিবৃতি অব্যাহত রয়েছে। বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, পবিত্র কোরআন পুড়িয়ে ফেলার ঘটনায় মুসলিম উম্মাহ চরমভাবে ক্ষুব্ধ। অবিলম্বে সুইডেন সরকারকে মুসলমানদের কাছে ক্ষমা চাইতে হবে এবং বিতর্কিত ব্যক্তিকে কঠোর শাস্তি দিতে হবে। নতুবা মুসলিম বিশ্ব সুইডেনের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলবে।

পীর সাহেব চরমোনাই ঃ সুইডেনের রাজধানী স্টকহোমে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় উগ্রবাদীদের দ্বারা পবিত্র কোরআন পোড়ানোর ধৃষ্টতা এবং কোরআনে অগ্নিসংযোগ করে পুড়িয়ে দেয়ার ঘটনায় গভীর উদ্বেগ ও ক্ষোভ প্রকাশ করে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলদেশের আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই।

গতকাল মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, সুইডেনে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় উগ্র ডানপন্থী রাজনৈতিক দল হার্ড লাইনের বিতর্কিত নেতা রাসমুস পালুদান পবিত্র কোরআনে অগ্নিসংযোগ করেছেন। যা শুধু কোরআন নয়; বরং বিশ্বের সকল মুসলমানসহ শান্তিকামী প্রতিটি মানুষের কলিজাকে দগ্ধ করার শামিল। তিনি বলেন, আল কোরআন মুসলমানের কাছে নিজ জানের চেয়েও প্রিয়। এক বর্ণবাদী ও ইসলামবিদ্বেষী ব্যক্তিকে পবিত্র কোরআন পোড়ানো অনুমতি দিয়ে সুইডেন সরকার চরম অন্যায় করেছে। তিনি বলেন, মতপ্রকাশের স্বাধীনতার নামে এমন ইসলামবিরোধী কাজের অনুমতি কোনোমতেই মেনে নেয়া যায় না। অবিলম্বে সুইডেন সরকারকে মুসলমানদের কাছে ক্ষমা চাইতে হবে এবং বিতর্কিত ব্যক্তিকে কঠোর শাস্তি দিতে হবে। নতুবা মুসলিম বিশ্ব সুইডেনের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলবে। তিনি মুসলিম নেতৃবৃন্দসহ বিশ্ববাসীর প্রতি আহŸান জানিয়ে বলেন, এমন নিকৃষ্ট কর্মকাÐ বন্ধে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণে জাতিসঙ্ঘ, ওআইসি, আরবলীগসহ সকল মুসলিম দেশ, নেতৃবৃন্দ ও শান্তিকামী মানুষের প্রতি আহŸান জানাচ্ছি।

সম্মিলিত সংগ্রাম পরিষদ ঃ সুইডেনে কোরআন পোড়ানোর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে সম্মিলিত সংগ্রাম পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ মোস্তফা খান, ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট জোহরা খাতুন ও মহাসচিব মাওলানা আনোয়ার হোসাইন বলেছেন, সারা বিশ্বে মুসলমানদের নিয়ে গভীর ষড়যন্ত্র চলছে। মুসলমানদের ওপর গণহত্যা, দখল, নির্যাতন, লুটপাট চালানোর সাথে সাথে তথাকথিত সভ্য দেশগুলো মুসলমানদের কলিজায় আঘাত দিয়ে যাচ্ছে। তারই অংশ হিসেবে সুইডেনে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় উগ্রবাদীদের দ্বারা পবিত্র কোরআন পোড়ানো হয়েছে। যা মুসলমানদের প্রতি চরম ধৃষ্টতা। এ গর্হিত কাজ কোনোভাবেই মত প্রকাশের স্বাধীনতা হতে পারে না; বরং মত প্রকাশের স্বাধীনতার আড়ালে পরিকল্পিতভাবে মুসলমানদের পবিত্র মূল্যবোধকে অবমাননা করা হয়েছে। এসব দেশ নিজেদের সভ্য বলে দাবি করে এবং অন্য দেশকে মানবাধিকারসহ নানা বিষয়ে ছবক দেয়। কিন্তু পৃথিবীর প্রায় ২০০ কোটি মুসলমানদের প্রাণের চেয়ে প্রিয় কোরআন পুড়িয়ে, মুসলমানদের কলিজা দগ্ধ করে সুইডেন কোন সভ্যতার পরিচয় দিচ্ছে। তা বিশ্বের শান্তিকামী ও বিবেকসম্পন্ন মানুষের বোধগম্য নয়।

বাংলাদেশ নেজামে ইসলাম পার্টি ঃ বাংলাদেশ নেজামে ইসলাম পার্টি ও ইসলামী ঐক্য জোটের চেয়ারম্যান মাওলানা অ্যাডভোকেট আব্দুর রকিব গতকাল মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে সুইডেনে পবিত্র কোরআন পোড়ানোর ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, সুইডেনে কোরআন পোড়ানোর ঘটনায় নিজেদের মর্যাদা, অধিকার ও মূল্যবোধকে টিকিয়ে রাখতে মুসলমানদেরকেই দ্রæত কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। কোরআন ও মুসলমানদের জাতিসত্তার প্রশ্নে সকল মুসলিম নেতাকে ঐক্যবদ্ধ হওয়া এখন ঈমানের দাবি। আমরা অবিলম্বে পবিত্র কোরআনে অগ্নিসংযোগকারীদের গ্রেফতার ও সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত এবং এমন ন্যাক্কারজনক ঘটনার পুণরাবৃত্তি রোধে সুইডেন সরকার ও একই সাথে ওআইসি, আরবলীগ, জাতিসংঘসহ বিশ্বের বিবেকবান সকল মানুষকে এহেন ঘৃণ্য কর্ম বন্ধে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে। তিনি ইসলাম বিদ্বেষী মুসলমানদের দুশমন সুইডেনের সকল প্রকার পণ্য বর্জন করতে হবে। পবিত্র কোরআন পুড়িয়ে ইসলামের অগ্রযাত্রাকে দমিয়ে রাখা যাবে না বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (3)
Mohmmed Dolilur ২৫ জানুয়ারি, ২০২৩, ২:২৪ এএম says : 0
আপনাদের সরকার কি মুসলিম,যদি মুসলিম হয় তবে সুইডেন দূতাবাস বন্ধ করছে না কি জন্য,এই সরকার যত দিন থাকবে মনে হয় মুসলমানের কোনো আশা নেই যে মুসলমানের উপকারে কিছু করবে।
Total Reply(0)
Mohmmed Dolilur ২৫ জানুয়ারি, ২০২৩, ২:২৯ এএম says : 0
আপনাদের সরকার কি মুসলিম,যদি মুসলিম হয় তবে সুইডেন দূতাবাস বন্ধ করছে না কি জন্য,এই সরকার যত দিন থাকবে মনে হয় মুসলমানের কোনো আশা নেই যে মুসলমানের উপকারে কিছু করবে।
Total Reply(0)
A Patwary ২৫ জানুয়ারি, ২০২৩, ৬:৫৬ এএম says : 0
silence of Bangladesh Govt indicates they are favour of Sweeden which is very unfortunate. themuslim should declare ZIHAD AGAINST B'desh Govt rather thanSweeden......
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন