বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ০৬ আষাঢ় ১৪৩১, ১৩ যিলহজ ১৪৪৫ হিজরী

খেলাধুলা

আর্জেন্টাইন এনজোই এখন ইংল্যান্ডের দামী

স্পোর্টস ডেস্ক : | প্রকাশের সময় : ২ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ১২:০০ এএম

কাতার বিশ্বকাপে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে মুগ্ধ হয়েই এনজো ফার্নান্দেজের জন্য মরিয়া হয়ে ওঠে চেলসি। বেশ কয়েকটি প্রস্তাব দিয়েও মন গলাতে পারেনি বেনফিকার। শেষ পর্যন্ত সুরাহা করতে পেরেছে ব্লজরা। তার জন্য দিতে হয়েছে রিলিজ ক্লজের পুরো অর্থ। তাতে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের নতুন রেকর্ড গড়েই এনজোকে স্টামফোর্ড ব্রিজে আনল ক্লাবটি।
জানুয়ারির ট্র্যান্সফারের একেবারের শেষ দিনে এসে এনজোকে দলে টানতে পারে চেলসি। এরজন্য খরচ হয়েছে ১২১ মিলিয়ন ইউরো (১০৭ মিলিয়ন পাউন্ড)। বাংলাদেশি মূদ্রায় প্রায় ১৩শ নিরানব্বই কোটি টাকা! তাতে প্রিমিয়ার লিগের সর্বোচ্চ দামী খেলোয়াড় এখন এনজো। আগের রেকর্ড ভেঙে গত মৌসুমে ১০০ মিলিয়ন পাউন্ডে জ্যাক গ্রিলিশকে দলে টেনেছিল ম্যানচেস্টার সিটি।
অথচ চলতি মৌসুমের শুরুতে মাত্র ১০ মিলিয়ন পাউন্ড খরচ করে আর্জেন্টাইন ক্লাব রিভারপ্লেট থেকে তাকে কিনে আনে বেনফিকা। মৌসুমের অর্ধেক না যেতেই বিশাল পরিমাণ অর্থ পকেটে ঢুকালো পর্তুগিজ ক্লাবটি। তবে লাভ হয়েছে রিভারপ্লেটেরও। চুক্তি অনুযায়ী এর ২৫ শতাংশ পাবে তারা। মোট ছয় কিস্তিতে এ অর্থ পরিশোধ করবে চেলসি। এনজোর সঙ্গে চেলসির চুক্তি হওয়ার বিষয়টি এক বিবৃতি দিয়ে বেনফিকা নিশ্চিত করেছে, ‘খেলোয়াড় এনজো ফার্নান্দেজের সব রাইটস বিক্রির জন্য চেলসি এফসির সঙ্গে একটি চুক্তিতে পৌঁছেছে বেনফিকা।’
মূলত কাতারে এনজোর নজরকাড়া পারফরম্যান্সই বদলে দেয় সব। আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ জয় দারুণ অবদান ছিল ২২ বছর বয়সী এ তরুণের। জানুয়ারির ট্রান্সফার শুরু হওয়ার পরই তাকে পাওয়ার লড়াইয়ে নামে ক্লাবগুলো চেলসির সঙ্গে তখন ছিল লিভারপুল ও ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডও। এক পর্যায়ে এগিয়ে যায় চেলসি। তবে মাঝে গুঞ্জনটা থেমেও গিয়েছিল। গত কয়েক দিনে ফের গুঞ্জন ওঠে। শেষ পর্যন্ত তাকে দলে টেনেই ছাড়ে ব্লুজরা।
ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের সর্বোচ্চ ট্র্যান্সফারের রেকর্ড হলেও সব মিলিয়ে যৌথভাবে ষষ্ঠ এটা। ২০১৯ সালে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ থেকে সমান পরিমাণ অর্থ খরচ করে আঁতোয়ান গ্রিজমানকে কিনেছিল বার্সেলোনা। তবে মিডফিল্ডারদের মধ্যে সর্বোচ্চ ট্র্যান্সফারের রেকর্ড এটি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন