সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০, ২২ শাবান সানি ১৪৪৫ হিজরী

খেলাধুলা

আবাহনীর গোল উৎসবের দিন জিতেছে মোহামেডান

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ৯:৩০ পিএম

ঘরোয়া ফুটবলের মর্যাদার আসর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) প্রথম পর্বের শেষ রাউন্ডে নবাগত আজমপুরের বিপক্ষে ঢাকা আবাহনীর গোল উৎসবের দিন রহমতগঞ্জের বিপক্ষে জয় পেয়েছে মোহামেডান। অন্যদিকে আরেক নবাগত ফর্টিস এফসি রুখে দিয়েছে অপেক্ষাকৃত শক্তিশালী শেখ জামালকে।

শুক্রবার ময়মনসিংহের রফিকউদ্দিন ভূঁইয়া স্টেডিয়ামে প্রথম পর্বের শেষ ম্যাচে ফরোয়ার্ড ফয়সাল আহমেদ ফাহিম ও এলিটা কিংসলের হ্যাটট্রিকের সুবাদে ঢাকা আবাহনী লিমিটেড ৭-০ গোলে বিধ্বস্ত করে আজমপুর এফসি উত্তরাকে। বিজয়ী দলের হয়ে ফয়সাল ও এলিটা তিনটি করে গোল বাকি গোলটি করেন ফরোয়ার্ড নাবীব নেওয়াজ জীবন।

ম্যাচের শুরু থেকে আবাহনী আক্রমণাত্মক ফুটবল উপহার দিয়ে একের পর এক সুযোগ তৈরী করলেও গোল পেতে তাদের প্রায় আধঘন্টা অপেক্ষায় থাকতে হয়। ম্যাচের ৩৫ মিনিটে ফয়সাল আহমেদ ফাহিমের গোলে লিড নেয় আবাহনী (১-০)। এগিয়ে যাবার পর ব্যবধান বাড়াতে মরিয়া ঢাকা আবাহনী দ্বিতীয় গোল পায় ৫৪ মিনিটে। এসময় এলিটা কিংসলে গোল করে ব্যবধান বাড়ান (২-০)। তিন মিনিট পর এলিটার যোগান দেয়া বলে নিজের দ্বিতীয় গোল করেন ফাহিম (৩-০)। আবাহনীর পক্ষে ম্যাচের ৬১ মিনিটে চতুর্থ গোলটি করেন এলিটা। নাবিব নেওয়াজ জীবনের পাস থেকে বল পেয়ে শটে লক্ষ্যভেদ করেন এলিটা (৪-০)। ফাহিম ও এলিটা যখন পাল্লা দিয়ে গোল করে যাচ্ছেন তখন বসে থাকেননি জীবন। তিনি ম্যাচের ৬৪ মিনিটে গোল করে আবাহনীকে ৫-০ ব্যবধানে এগিয়ে নেন। আক্রমণে ধারা অব্যাহত রেখে ম্যাচের ৭৯ মিনিটে গোল করে নিজের হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন ফাহিম (৬-০)। অন্যদিকে ম্যাচের যোগকরা সময়ে (৯০+৪ মিনিট) দলের পক্ষে সপ্তম গোল করে এলিটা কিংসেলও হ্যাটট্রিক করেন (৭-০)। এতেই শেষ হয় ঢাকা আবাহনীর গোলউৎসব। ম্যাচ জিতে আবাহনী দশ খেলায় ছয় জয়, তিন জয় ও এক হারে ২১ পয়েন্ট পেয়ে তালিকার দ্বিতীয় স্থানেই রইল। সমান ম্যাচে দুই ড্র ও আট হারে ২ পয়েন্ট নিয়ে সবার শেষে আজমপুর।

এদিকে আগের ম্যাচে নবাগত ফর্টিস এফসির কাছে হারের হতাশা ভুলে ফের জয়ের ধারায় ফিরেছে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। শুক্রবার মুন্সিগঞ্জের বীরশ্রেষ্ঠ ফ্লাইট লে.মতিউর রহমান স্টেডিয়ামে নিজেদের দশম ম্যাচে মোহামেডান ১-০ গোলে হারায় রহমতগঞ্জ মুসলিম ফ্রেন্ডস সোসাইটিকে। বিজয়ী দলের হয়ে ম্যাচের ৭ মিনিটে একমাত্র গোলটি করেন মিডফিল্ডার শাহরিয়ার ইমন। ম্যাচ জিতে দশ খেলায় তিনটি করে জয় ও ড্র এবং চার হারে ১২ পয়েন্ট নিয়ে ষষ্ঠ স্থানে উঠে এলো মোহামেডান। সমান ম্যাচে দুই জয়, তিন ড্র ও পাঁচ হারে ৯ পয়েন্ট পাওয়া রহমতগঞ্জের অবস্থান আটে।

এদিন রাজশাহীর মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি স্টেডিয়ামে দিনের আরেক মাচে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবকে রুখে দিয়েছে আগের ম্যাচে মোহামেডানকে হারানোর নবাগত ফর্টিস এফসি। দশজন নিয়ে কাল জামালের বিপক্ষে ১-১ গোলে ড্র করে ফর্টিস। ম্যাচের ১৯ মিনিটে শেখ জামালের সীমানায় ফ্রি-কিক পায় ফর্টিস। ফ্রি-কিকের সময় বক্সে জায়গা দখলকে কেন্দ্র করে শেখ জামালের প্যারাগুয়ের ডিফেন্ডার জর্জ আগুইলার মিরান্ডাকে ঘুষি মেরে বসেন ফর্টিসের আফগান স্ট্রাইকার আমীরুদ্দিন শরীফি। রেফারি ভূবন মোহন সরাসরি লাল কার্ড দেখান শরীফিকে। দশজনের দল নিয়েও দমে যায়নি ফর্টিস। ম্যাচের ২৩ মিনিটে ডিফেন্ডার সবুজ হোসেন গোল করে ফর্টিসকে এগিয়ে নেন (১-০)। তবে শেখ জামালকে নির্ঘাত হারের হাত থেকে বাঁচান তাদের উজবেকিস্তানের মিডফিল্ডার নদিরবেক। ম্যাচের যোগকরা সময়ে (৯০+১ মিনিট) নদিরবেকের গোলেই সমতায় ফেরে শেখ জামাল (১-১)। ম্যাচ ড্র হওয়ায় দশ ম্যাচে তিন জয়, পাঁচ ড্র ও দুই হারে ১৪ পয়েন্ট পেয়ে তালিকার পঞ্চম স্থানে শেখ জামাল। সমান ম্যাচে দুটি করে জয় ও হার এবং ছয় ড্রতে ১২ পয়েন্ট নিয়ে সপ্তম স্থানে ফর্টিস।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন