বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১১ কার্তিক ১৪২৮, ১৯ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

কমিশন করে ওয়ান ইলেভেনের ঘটনা উদঘাটন করতে হবে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশের সময় : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, ওয়ান-ইলেভেন সময়কালের সকল ঘটনা কমিশন করে উদঘাটন করা উচিত, যাতে করে বাংলাদেশে পুনরায় আর এ ধরনের পরিস্থিতির সৃষ্টি না হয়। গতকাল রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে আয়োজিত এক চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
মন্ত্রী বলেন, দেশের উন্নয়নে গণতান্ত্রিক পরিবেশ অত্যান্ত জরুরি। সরকারের পরিবর্তন হবে গণতান্ত্রিক উপায়ে ভোটের মাধ্যমে। রাষ্ট্র পরিচালনা রাজনীতিবিদদের কাজ, সমরিক বাহিনীর নয়। যতবারই দেশে সামরিক শাষণ এসছে ততোবারই দেশ পিছিয়ে পড়েছে। তাই সচেতন হতে হবে আর যেন ১/১১ না আসে। সেমিনার-সিম্পোজিয়ামে করে আর পত্রিকায় লিখে কেউ যেন কারো চরিত্র হরণের চেষ্টা না করে, সরকার পরিবর্তনের চেষ্টা না করে।
মোহাম্মদ নাসিম বলেন, রাজনীতিবিদ ভুল করলে জেলে যেতে হয়, চিকিৎসকরা ভুল করলে মামলা খেতে হয়। কিন্তু একটি সম্প্রদায় আছে, অনেক বড় ভুল করলেও যাদের জেলে যেতে হয় না, মামলা খেতে হয় না। শুধু সরি বললেই হয়ে যায়। এটা কোন ধরনের সংস্কৃতি?
রাজধানীর উত্তরায় ৬০০ শয্যাবিশিষ্ট বিশেষায়িত একটি হাসপাতাল নির্মাণের লক্ষ্যে জাপানের শিপ হেলথ কেয়ার হোল্ডিংসের সঙ্গে বাংলাদেশের আইচি মেডিকেল গ্রুপের মধ্যে এই চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠিত হয়। চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন জাপানের শিপ হেলথ কেয়ার হোল্ডিংসের চেয়ারম্যান হিরোতাকা ওগাওয়া এবং আইচি মেডিকেল গ্রুপের চেয়ারম্যান ডা. মোয়াজ্জেম হোসেন।
চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, বিনিয়োগ বোর্ডের নির্বাহী কর্মকর্তা সালমা নাসরিন, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন-বিএমএ’র মহাসচিব প্রফেসর ডা. এম ইকবাল আর্সনাল, জাপান দূতাবাসের ফাস্ট সেক্রেটারি তাকেসি মাতসুনাগে, জেটরো বাংলাদেশের প্রতিনিধি কেই কায়ানো ও শিপ-আইচি মেডিকেল সার্ভিসের নির্বাহী পরিচালক হিরোইউকি কোবায়েসি।
শিপ আইচি মেডিকেল সার্ভিস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, বেসরকারি পর্যায়ে বিনিয়োগকৃত নতুন এই বিশেষ বিশেষায়িত হাসপাতালে ধনীদের পাশপাশি দরিদ্র রোগীরাও সেবা পাবেন। কারণ ৬০০ শয্যার এই হাসপাতালের ২০ ভাগ সিট দরিদ্র ও আর্থিকভাবে অসচ্ছলদের জন্য বরাদ্দ থাকবে। যেখানে সম্পূর্ণ বিনাখরচে চিকিৎসা সেবা দেওয়া হবে। এই হাসপাতালে থাকবে কার্ডিওলজি, নেফ্রলজি এবং ট্রমার আন্তর্জাতিক মানের সেবা। এছাড়া থাকবে বিশ্বমানের আইসিইউ, এনআইসিইউ ও বিভিন্ন উন্নত মানের পরীক্ষা-নিরীক্ষার ব্যবস্থা।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন