ঢাকা, শনিবার, ৩০ মে ২০২০, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০৬ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনীর হাতে আসছে লেজার অস্ত্র

প্রকাশের সময় : ৪ মার্চ, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : ২০২৩ সালের মধ্যে মার্কিন সামরিক বাহিনীর হাতে লেজার অস্ত্র দেয়ার পরিকল্পনা করছে দেশটির সরকার। ইতোমধ্যে প্রাথমিক পরীক্ষার মাধ্যমে এই অস্ত্রের নজিরবিহীন ক্ষমতা প্রমাণিত হয়েছে। ২০২০ সালে এই মারণাস্ত্রের প্রথম প্রদর্শন করা হবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা। এ লক্ষ্যকে সামনে রেখে ল্যাব টেস্টের জন্য একটি পূর্ণাঙ্গ ও চৌকস সামরিক দল তৈরির কাজে ব্যস্ত রয়েছেন লেজার অস্ত্রের সাথে জড়িত বিশেষজ্ঞরা। সামরিক বাহিনীর গবেষণা ও প্রযুক্তি শাখার ডেপুটি অ্যাসিস্টেন্ট সেক্রেটারি মেরি জে মিলার হাউজ আর্মড সার্ভিসেস কমিটির সাবকমিটির উদ্দেশে নব্য হুমকি ও দেশটির সক্ষমতা সম্পর্কে বলেন, সামরিক বাহিনীর হাতে লেজার অস্ত্র দেয়ার ব্যাপারে আমরা খুবই কাছে চলে এসেছি। তবে মার্কিন যোদ্ধাদেরকে এই অস্ত্র দেয়ার আগে ব্যাপকভাবে পরীক্ষা চালানো হবে। সামরিক বাহিনীর প্রত্যেক যোদ্ধার হাতে এই অস্ত্র দেয়ার আগে লেজার অস্ত্রের পূর্ণ সক্ষমতা সম্পর্কে তাদেরকে পুরো ধারণা দেয়া দরকার।
প্রতিরক্ষামূলক লেজার শিল্ড নির্মাণের কাজে হাত দিয়েছে মার্কিন বিমান বাহিনী রিসার্চ ল্যাবরেটরি। ৩৬০ ডিগ্রির লেজার বাবল নামে এই নব্য অস্ত্রটি মার্কিন বিমানের প্রতিরক্ষায় কাজ করবে। ক্ষেপণাস্ত্র বা শত্রু পক্ষের বিমান এই লেজার বাবল এর ভেতরে আসলে তা নিষ্ক্রিয় বা ধ্বংস করার ক্ষমতা রাখে এই অস্ত্রটি। এই শিল্ড নির্মাণে দরকার টার্রেট বা কামান রাখার মঞ্চবিশষ। লকহিড মার্টিন ও ডারপার (পেন্টাগন্স ডিফেন্স এডভান্সড রিসার্চ প্রোজেক্টস এজেন্সি) সঙ্গে যৌথভাবে এই ধরনের মঞ্চ নির্মাণে একটি সফল পরীক্ষা ইতোমধ্যে চালানো হয়েছে। ডেইলি মেইল।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন