ঢাকা রোববার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২ আশ্বিন ১৪২৭, ০৯ সফর ১৪৪২ হিজরী

খেলাধুলা

শেষ চারে ঢাকা আবাহনীও

| প্রকাশের সময় : ২৭ মে, ২০১৭, ১২:০০ এএম

স্পোর্টস রিপোর্টার : শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব ও চট্টগ্রাম আবাহনীর পর তৃতীয় দল হিসেবে ওয়ালটন ফেডারেশন কাপের শেষ চার নিশ্চিত করলো ঢাকা আবাহনী লিমিটেড। গতকাল সন্ধ্যায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে টুর্নামেন্টের তৃতীয় কোয়ার্টার ফাইনালে আবাহনী ২-১ গোলে হারায় ব্রাদার্স ইউনিয়ন ক্লাবকে।
ম্যাচের শুরু থেকেই দু’দল আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে খেলেছে। সুযোগও পেয়েছে প্রায় একই রকম। তবে তা বেশী কাজে লাগিয়েছে আবাহনীই। ম্যাচের ১১ মিনিটে প্রথম সুযোগ পায় ব্রাদার্স। এসময় আবাহনী বক্সে ঢুকে শট নেন ব্রাদার্সের বিদেশী ফরোয়ার্ড সিও জোনাপিও। কিন্তু বল ফিরিয়ে দিয়ে তাকে হতাশ করেন প্রতিপক্ষ ডিফেন্ডারা। ২৪ মিনিটে সুযোগ আসে আবাহনীরও। বাঁমপ্রান্ত দিয়ে ব্রাদার্স বক্সে ঢুকে বল সামনে ফেলেন আবাহনীর অধিনায়ক মামুন মিয়া। প্রায় ফাঁকা পোস্টে বলে পা লাগাতে পারলেই নিশ্চিত গোল ছিলো। কিন্তু আবাহনীর কোন ফুটবলারই বলের নাগাল পাননি। ব্রাদার্সের ডিফেন্ডাররা তা ক্লিয়ার করেন। ম্যাচের ৩০ মিনিটে একটি গোল পেয়েছিলো ব্রাদার্স। সিও জোনাপিওর শট আবাহনীর জালে ঢুকলেও ফাউলের অযুহাতে রেফারী তা বাতিল করে দেন। তবে ৪৩ মিনিটে প্রথম গোল পায় আবাহনী। বাঁমপ্রান্ত দিয়ে সোহেল রানার পাসে বক্সে বল পেয়ে ব্রাদার্সের গোলরক্ষক কামাল হোসেন টিটুকে বোকা বানিয়ে বল জালে ঠেলে দেন ফরোয়ার্ড নাবীব নেওয়াজ জীবন (১-০)। এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় আবাহনী। বিরতির পর ব্যবধান দ্বিগুন করার চেষ্টায় থাকে বিজয়ীরা। ৫১ মিনিটে সুযোগও আসে তাদের সামনে। এসময় মিডফিল্ডার ইমন মাহমুদের কর্ণারে বক্সে বল পেয়ে হেড নেন নাসির উদ্দিন। উড়ন্ত বলে মাথা ছুইয়ে দেন জীবন। বল অল্পের জন্য গোলে পরিণত হয়নি। ৮০ মিনিটে আত্মঘাতী গোলে আরো পিছিয়ে পড়ে ব্রাদার্স। বাঁমপ্রান্ত দিয়ে কোনাকোনি শট নেন রুবেল মিয়া। পা দিয়ে বল ক্লিয়ার করতে গিয়ে নিজেদের জালেই তা পাঠিয়ে দেন ব্রাদার্স ডিফেন্ডার আকরামুজ্জামান লিটন (২-০)। ম্যাচের অন্তিম মুহুর্তে এসে এক গোল শোধ দেয় ব্রাদার্স। বক্সের খুব কাছে ফ্রি কিক পায় তারা। দারুণ শটে জোনাপিও গোল করেন (১-২)। তবে শেষ পর্যন্ত আর ম্যাচে ফিরতে পারেনি ব্রাদার্স।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন