ঢাকা বুধবার, ২০ জানুয়ারি ২০২১, ০৬ মাঘ ১৪২৭, ০৬ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

ইসলামী প্রশ্নোত্তর

আমি আমার এক ক্লাসমেট মেয়েকে ২ জন স্বাক্ষীর উপস্থিতিতে ১ লক্ষ টাকা দেন মোহর নির্ধারন করে, মোবাইল ফোনে বিবাহ করি, পরবর্তীতে সরাসরি দেখা হলে আমারা আবার ইজাব কবুল বলি, এবং একে অপরকে স্বামী স্ত্রী হিসাবে মৌখিক স্বীকৃতি দেই, এবং সে আমাকে স্বামী হিসাবে গ্রহন করে এবং আমরা রাত্রি যাপন করি। এখন তার পরিবার এই বিয়ে শুদ্ধ হয়নি বলে, তাকে জোর করে তার অমতে অন্য ছেলের কাছে বিবাহ দেয়, এখন আমার প্রশ্ন আমাদের বিয়ে শুদ্ধ ছিলো কিনা? শুদ্ধ হলে ২য় বিয়ের হুকুম কি হবে? উল্লেখ্য যে, আমার বয়স ২৯ মেয়ের ২৭।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক
ইমেইল থেকে

প্রকাশের সময় : ১ জানুয়ারি, ২০২১, ৭:৩৭ পিএম

উত্তর : টেলিফোনে বিয়ে হলে স্বাক্ষী রাখা হয় কীভাবে? স্বাক্ষী তো উপস্থিত থাকতে হয়। তারা স্বামী বা স্ত্রী যে কোনো এক প্রান্তে উপস্থিত ছিল। ইজাব কবুল তারা শুনেছে। তবে, এ ঘটনার সময় তারা মজলিসে উপস্থিত ছিল না। অতএব, আপনাদের বিবাহে টেলিফোনে বিয়ে জায়েজ হওয়ার পদ্ধতি অবলম্বন করা হয়েছে বলে মনে হয় না। এ প্রশ্নটির ব্যখ্যা আগে দরকার। এরপর আপনাদের মনে সন্দেহ ছিল বলেই দু’জনের সাক্ষাতের সময় আবার ইজাব কবুল করেছেন। তখন যদি স্বাক্ষী উপস্থিত থাকতো, তাহলে বিয়ে সহীহ হতো। দেনমোহর তো নির্ধারণ করাই ছিল। বর্তমানে যে বিবরণ আমরা শুনলাম, এতে বিয়ে হয়নি বলার সুযোগ আছে। অভিভাবকরা এ সুযোগটিই ব্যবহার করেছেন। বিষয়টি মাসআলা অনুযায়ী পরিস্কার না হওয়ায় আপনাদের একত্রবাস, এই বিয়ে শুদ্ধ হওয়ার কোনো প্রমাণ নয়। এজন্য আল্লাহর নিকট ক্ষমা প্রার্থনা ও তওবা করতে হবে। আর যদি আগের বিয়ে মাসআলা অনুযায়ী শুদ্ধ পর্যায়ভুক্ত হয়ে থাকে, তাহলে পরের বিয়েটি বৈধ হবে না। এখন বাস্তব পরিস্থিতির আলোকে আপনাদের সিদ্ধান্ত নিতে হবে।
উত্তর দিয়েছেন : আল্লামা মুফতি উবায়দুর রহমান খান নদভী
সূত্র : জামেউল ফাতাওয়া, ইসলামী ফিক্হ ও ফাতওয়া বিশ্বকোষ।
প্রশ্ন পাঠাতে নিচের ইমেইল ব্যবহার করুন।
inqilabqna@gmail.com

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন